রিডিং রুমলেখালেখি

ইউরোপ-আমেরিকায় ‘স্যার’ নেই, আছে শুধু বাংলাদেশেই!

শুনলাম এক ম্যা‌জি‌ষ্ট্রেট আপা‌কে দি‌দি বলায় লাথি খে‌য়ে‌ছেন ক‌য়েকজন মৎস্যজীবী। এই ঘটনার সত্য-মিথ্যার বি‌শ্লে‌ষণে যা‌চ্ছি না। ত‌বে আমি নি‌জে এমন বহু ঘটনা জা‌নি। এক জু‌নিয়র ম্যা‌জ‌িষ্ট্রেট আমার এক সাংবা‌দিক সহকর্মী‌কে ব‌লেছি‌লেন- ভাই না, স্যার ব‌লেন। এক জেলার জু‌নিয়র ম্যা‌জ‌িষ্ট্রেট আমা‌কে ব‌লে‌ছি‌লেন- ডি‌সি অ‌ফি‌সে কোনো ভাই নয়। সবাই‌কে স্যার বল‌বেন। এমন‌কি অ‌ফিস সহকারী‌কেও। একটু পর অবশ্য ওই জেলার ডি‌সি সা‌হেবের সা‌থে তি‌নি যখন আমা‌কে গল্প কর‌তে দেখ‌লেন এবং তা‌কে আমি ভাই সম্বোধ‌ন কর‌ছিলাম, তখন তা‌কে বিব্রত হ‌তে দে‌খি। য‌দিও ওই ম্যা‌জ‌িষ্ট্রেটের কাণ্ড ডি‌সি‌কে আমি ব‌লি‌নি। ব‌লে কী লাভ? কারণ সমস্যাটা মান‌সিক।

আমি জা‌নি না এই দে‌শের সব স্যারেরা জা‌নেন কিনা, এই রা‌ষ্ট্রের জনক বঙ্গবন্ধু প‌রি‌চিত ছি‌লেন মু‌জিব ভাই না‌মে। এমন‌কি প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পরেও মু‌জিব ভাই। বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হা‌সিনা‌ও একইভা‌বে প‌রি‌চিত আপা নামে। অথচ এই রা‌ষ্ট্রের বহু সরকা‌রি বেসরকা‌রি আমলা-কামলা নি‌জে‌দের স্যার ভা‌বেন। স্যার না ডাক‌লে তারা মন খারাপ ক‌রেন। আরেকজন‌কে অপদস্থ ক‌রেন। জনগণ‌কে তারা লা‌থি মা‌রেন।

জা‌নি না এদের মন‌নে-মগ‌জে কী থা‌কে। শো‌নেন হে স্যার ম্যাডামরা, মানুষ ভা‌লোবে‌সে আপনা‌কে আপা-ভাই কিংবা স্যারও বল‌তে পা‌রে। আমি যেমন বহু মানুষ‌কে স্যার ব‌লি।‌ কিন্তু স্যার না শুন‌লে য‌দি আপনার আত্মা জ্ব‌লে যায়, তাহ‌লে আর কে কী ভা‌বে জা‌নি না, আমি বু‌ঝে নেই, আপনা‌কে দি‌য়ে এই দে‌শের বা মানুষের জন্য কল্যাণকর কিছু হ‌বে না। বরং আপনার চি‌কিৎসা দরকার। ম‌নে রাখ‌বেন, যা‌কে দি‌য়ে দেশ মানু‌ষের উপকার হবে, যি‌নি মানু‌ষের ভা‌লোবাসায় বিশ্বাস ক‌রেন, তি‌নি স‌ত্যিকা‌রের স্যার, তা‌কে স্যার না ভাই বল‌লেন, তা‌তে তার কিছু যায় আসে না।

জা‌নি না স্যার‌দের বো‌ধোদয় হ‌বে কিনা! জা‌নি না তা‌দের প্র‌শিক্ষ‌ণে বিষয়গু‌লো কেন শেখা‌নো হয় না! জা‌নি না স্যার না শ‌ুন‌লে যা‌দের মন খরাপ হয়, তা‌দের কেন ম‌নোচি‌কিৎসক দেখা‌নো হয় না। জা‌নি না তারা জা‌নে কিনা, সাধারণ নাগ‌রিক‌দেরই তা‌দের স্যার বলার কথা। জা‌নি না যারা স‌ত্যিকা‌রের শিক্ষক তা‌দের কেন এই স্যা‌রেরা স্যার ব‌লতে লজ্জা পান। আমি বহু আমলা‌কে বাবার বয়সী প্রি‌ন্সিপাল‌কে প্রি‌ন্সিপাল সা‌হেব আর স্কুলের প্রধান শিক্ষক‌কে হেডমাষ্টার সাহেব বল‌তে শু‌নে‌ছি। তারা এই শিক্ষা ক‌োথা থে‌কে পান? অ‌াচ্ছা এই স্যা‌রেরা কি জা‌নে, ব্রি‌টেন বা ইউরো‌পে স‌্যার ব‌লে কিছু নেই। অথচ ব্রি‌টিশ ভূত টিকে আছে ভারতব‌র্ষে।

আমি জা‌নি না আমা‌দের স্যা‌রেদের বোধ হ‌বে কি না, তবু ব‌লি, ম‌নে রাখ‌বেন, আমা‌দের কৃষক, আমা‌দের পুষ্টিহীন পোষাককর্মী আর কো‌টি প্রবাসীরা আছেন ব‌লেই দেশটা টি‌কে আছে। আপনার ম‌তো স্যার‌দের কার‌ণে নয়। আর ম‌নে রাখবেন, সাধারণ মানুষ খুব বে‌শি কিছু চায় না। কাজ না কর‌তে পার‌লেও একটু সম্মান করুন। তারা বল‌বে, স্যারটা ফে‌রেশতার ম‌তো। এভা‌বেই বহু সরকা‌রি কর্মকর্তা‌কে এদে‌শের স্থানীয় মানুষজন অন্তর থে‌কে ভা‌লোবে‌সে‌ছেন। তারা স‌ত্যিকা‌রের স্যার। দেশটা টি‌কে আছে তা‌দের ম‌তো স‌ত্যিকা‌রের স্যার‌দের কার‌ণে।

আপনারা যারা স্যার শুনতে চান, তারা সম্পদ না বোঝা, সে‌টি অবস‌রে গে‌লে টের পাবেন! গত ৫০ বছ‌রে কম ক‌রে হ‌লেও ৫০০ স‌চিব অবস‌রে গে‌ছেন। কয়জন‌কে মানুুষ ম‌নে রে‌খে‌ছে? আশা কর‌ছি বোধগু‌লো জাগ্রত কর‌বেন। ত‌বে ভা‌লো থাকুক স‌ত্যিকা‌রের স্যা‌রেরা।

Facebook Comments

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button