মনের অন্দরমহলরিডিং রুম

শান্তির মা মরে গেছে!

শান্তিতে নোবেল দেয়ার বিষয়টা আমার ভালো লাগে না। কারণ, এতে যোগ্য লোকের হাতে নোবেল যায় না। যে সময় কেউ  একজন “পারমানবিক বোমা থামাও” গল্প শুনিয়ে নোবেল পাচ্ছে, সেই একই সময় পৃথিবীতে কিছু রাষ্ট্র বলছে, “তোর কিসের বা** বোমা, আমার বোমা বেশি বড়। মাই ওয়ান ইজ ফাদার অফ অল।”

যে সময় মালালারা নোবেল পায়, সেই একই সময়ে প্রতিদিন আফগানিস্থান-সিরিয়া-ইরাকে মানুষ মরে। মালালাদের নোবেল শান্তি আনতে পারে কি না জানি না, কিন্তু তাদের নোবেল মৃত্যু থামাতে পারে না। যে সময় ভুংভাং সুচিকে গৃহবন্দী থাকার কারণে ও বিবিধ গণতান্ত্রিক হাম-তামের কারণে নোবেল দেয়া হয়, সেই একই সুচির দেশের পাঁচ লক্ষ লোক এখন গৃহহারা।

আমি চাই পৃথিবীতে অশান্তির উপর পুরষ্কার দেয়া হোক। অশান্তির উপর পুরষ্কার দিলে অনেক যোগ্য লোক খুঁজে পাওয়া যাবে। এই পৃথিবী একটা আই-ওয়াশ। পৃথিবীতে আগে অপরাধ আসেনি, আগে এসেছে শাস্তি। আদম অপরাধ কি চিনতো না, তাকে বলা হয়েছে গন্ধম ফলের কাছে যাবে না। তাহলে তোমার কঠিন সমস্যা হবে। আদম তবুও অপরাধ করেছিলেন শাস্তি জেনেও। যারা আজকের পৃথিবীতে অস্ত্র বেঁচে ভাত খায়, তারা আগে অস্ত্র বিক্রির মাঠ তৈরি করে। ঔষুধ বিক্রির আগে রোগ তৈরি হয় এই দুনিয়াতে।

আজকে সংবাদ মাধ্যমগুলোতে শুধু অপরাধের খবর। অমুকে চলতি বাসে ধর্ষণ হয়েছে, সাথে তার রসালো বর্ণনা। ছিনতাইকারীর হামলা, সমাজপতিদের বিরুদ্ধে দূর্নীতির মামলা। সবাই খবরগুলো পছন্দ করে। ডাইনিং টেবিলে বসে খবর শুনতে শুনতে উত্তেজিত হয়। এই যে আমরা সবার “কন্টেন্ট কনজিউমার” হয়ে যাচ্ছি, সেটা আমাদেরই অবদান।

কিছু মানুষ কন্টেন্ট বানাচ্ছে। কারো কন্টেন্ট যুদ্ধ, কারো কন্টেন্ট ভাইরাস, কারো কন্টেন্ট “মানবতা বিক্রয় স্টোর”, কারো কন্টেন্ট রসের আলাপ। আমরা সব কিছুতেই হামলে পড়ি। কি অদ্ভুত! আমি ভেবেছিলাম শুধু আমরা অল্প বয়সী ছেলেমেয়ে যাদের যৌবনের শিখা টলমল তারাই শুধু অস্থিরতায় ভোগে। আসলে এই অস্থিরতা সবার মধ্যেই তো আছে।

তাই, আমি চাই অস্থির অশান্ত কাউকে নোবেল দেয়া হোক। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশ্ন ফাঁস করে যারা অশান্তি করে, তাদের নোবেল দেয়া হোক। যারা চালের দাম বাড়িয়ে মধ্যবিত্ত সংসার অশান্ত করে, তাদের নোবেল দেয়া হোক। যারা প্ল্যাগারিজম করে তাদের নোবেল দেয়া হোক। যারা সিম্পল একটা সরকারি চাকরিকে মহামান্য রূপ দিয়ে তরুণদের অশান্ত করে, তাদের নোবেল দেয়া হোক। যারা অমুকের বিয়ে, তমুকের ডিভোর্স নিয়ে ফেসবুক অশান্ত করে- তাদের নোবেল দেয়া হোক। যারা রাজনীতির নামে ফটোশপ আর সেলফি উৎসব করে তাদের নোবেল দেয়া হোক। ঘুষখোরদের নোবেল দেয়া হোক। ধর্ষকদের নোবেল দেয়া হোক।

কারণ, আমি চাই সবসময় যোগ্য লোকটাই নোবেল পাক। শান্তিতে যোগ্য কেউ নেই। শান্তির মা মরে গেছে…

Comments
Tags

Related Articles

Back to top button