খেলা ও ধুলা

সাব্বির কি গায়েবী ইশারায় দলে সুযোগ পেলেন?

নিউজিল্যান্ড সিরিজের দলে সাব্বির রহমানের ডাক পাওয়াটা বেশ অবাক করেছে সবাইকেই। শৃঙখলাজনিত কারণে ছয় মাসের নিষেধাজ্ঞার শাস্তি ভোগ করছেন সাব্বির, এটা তো পুরনো খবর। কিন্ত সেই নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হবার আগেই কি করে তিনি জাতীয় দলের হয়ে খেলার জন্যে আবার ডাক পেলেন, আর ডাক পেলেও সেটা কোন পারফরম্যান্সের ভিত্তিতে- এই ব্যাপারগুলোই জন্ম দিয়েছে অজস্র প্রশ্নের। মজার ঘটনা কি জানেন? নিষেধাজ্ঞা ফুরোনোর আগে সাব্বির কিভাবে জাতীয় দলে- এই প্রশ্নের জবাব জানা নেই কারো! না নির্বাচকদের, না অধিনায়কের, না বোর্ড কর্তাদের, এমনকি বোর্ড প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান পাপনও জানেন না এই প্রশ্নের উত্তর। একজন কেবল আরেকজনের দিকে আঙুল তাক করেই চলেছেন। বিরক্ত হয়ে মাশরাফি বলেছেন, কেউ যখন দায় নিচ্ছে না, আমিই নিলাম সব দায়ভার!

আচরণবিধি ভঙ্গের অপরাধে গত সেপ্টেম্বরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে ছয় মাসের জন্যে নিষিদ্ধ করা হয়েছিল সাব্বির রহমানকে। সাব্বির অবশ্য এজ জায়গায় পুরনো পাপী, এর আগেও মাঠে দর্শক পিটিয়ে নিষিদ্ধ হয়েছেন, আফগানিস্তানের বিপক্ষে টি-২০ সিরিজে সতীর্থের ওপর চড়াও হয়েছেন, নারী কেলেঙ্কারীতেও নাম লিখিয়েছেন। সব মিলিয়ে সাব্বির নিষিদ্ধ হওয়ায় তার ক্যারিয়ারের শেষটাও দেখে ফেলেছিলেন অনেকেই।

সাব্বির বীরসাব্বির রহমান, নিষেধাজ্ঞা, ইভ টিজিং, বিসিবিত্ব, সাব্বির ব্যাটিং, সাব্বির অধিনায়ক

তবে বিপিএলে ৮৫ রানের একটা ইনিংস খেলে আলোচনায় এসেছেন তিনি। শোনা গেছে, অধিনায়ক মাশরাফিও নাকি সাব্বিরকে দলে চান, প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নুর দাবী অন্তত এমনটাই। আর অধিনায়কের দাবীর কারণেই নাকি সাব্বিরকে রাখা হয়েছে নিউজিল্যান্ড সিরিজের ওয়ানডে দলে। এদিকে মাশরাফি বলেছেন, সাব্বিরের ব্যাপারে তিনি কেবল তার মতামত দিয়েছেন, এর বেশি কিছু নয়। ডেথ ওভারের জন্যে সাব্বির সবসময়ই কার্যকর একজন ব্যাটসম্যান, কিন্ত দলে কে থাকবে না থাকবে, সেটা তো পুরোপুরিই নির্বাচকদের এখতিয়ার।

বিসিবির কর্তাব্যক্তিদের কথাবার্তা শুনে রহস্যটা কেমন যেন আরও বেড়ে গেল। তাদের কেউ পরিষ্কার বলতে পারেননি কোন বিবেচনায় সাব্বিরের নিষেধাজ্ঞা হুট করে কমে গেল, কিভাবে তিনি দলে সুযোগ পেলেন। বোর্ড প্রেসিডেন্ট যেটা বললেন, সেটা তো পিলে চমকে ওঠার মতোই। নিউজিল্যান্ড সিরিজের দল ঠিকঠাক হবার পরে তাকে জানানো হয়েছিল, তখন তিনি জানতে চেয়েছিলেন, সাব্বিরের শাস্তি শেষ হচ্ছে কবে? উত্তরে তাঁকে বলা হয়েছে, ‘শাস্তি শেষ’!

পাপন, নান্নু, চন্দিকা হাথুরুসিংহে, প্রেমাদাসার উইকেট

সাব্বিরকে দলে নেওয়ার অনুরোধ আগেও অনেকবার এসেছিল বলে জানিয়েছেন বিসিবি সভাপতি, বলেছেন, ‘ওকে যখন বাদ দেওয়া হয় তারপর অনেকবার অনুরোধ এসেছে দলে নেওয়ার। আমরা সাধারণত এভাবে নিতে চাই না বা নিই না। কিন্তু অনেকেই মনে করে সে (সাব্বির) অনেক বদলেছে। এটাই ওর শেষ সুযোগ। ১৫-২০ দিন তো বড় কথা না (নিষেধাজ্ঞা শেষ হওয়া)। এরপর যদি আবারও একই ভুল করে জীবনে সে আর খেলতে পারবে না।’

এটা সাব্বিরের ফার্স্ট টাইম লাস্ট চান্স নাকি লাস্ট টাইম ফার্স্ট চান্স, নাকি ফুল এন্ড ফাইনাল চান্স- সেসবে আমাদের আগ্রহ নেই। আমরা শুধু জানতে চাই, নিয়ম ভেঙে সাব্বির কি করে জাতীয় দলে ঢুকলেন? কার ইশারায় ঘটলো এই ঘটনা? নিউজিল্যান্ড সিরিজের সময়সূচি তো দুই বছর আগে থেকেই ঠিক হয়ে আছে, সাব্বিরকে নিষিদ্ধ করার সময় কি তাহলে সেভাবে দিন-তারিখ দেখে নিষেধাজ্ঞা দেয়াটা দরকার ছিল না? এখন কেন নিয়ম ভেঙে অযথা বিতর্কের জন্ম দেয়া?

সাব্বির রহসাব্বির রহমান, নিষেধাজ্ঞা, ইভ টিজিং, বিসিবিমান, ফেসবুক, বিসিবি

আর গত ছয় মাসে সাব্বির এমন কি পারফরম্যান্স করেছেন যে তাকে জাতীয় দলের জন্যে বিবেচনা করা হলো? ৮৫ রানের ইনিংসটাই কি প্রভাব হিসেবে কাজ করলো এখানে? তাহলে অন্যান্য ব্যাটসম্যানেরা কি দোষ করলেন? অনেকেই তো ধারাবাহিকভাবে ভালো খেলে চলেছেন, রান পাচ্ছেন, দলকে জেতাচ্ছেন, হেরে যাওয়া ম্যাচেও টেম্পারমেন্টের দারুণ নজির রেখে বুক চিতিয়ে লড়ছেন। ওই একটা ইনিংস দিয়ে সাব্বির যদি সুযোগ পান, তার চেয়ে ভালো করেও বাকীরা কেন পাবেন না?

আর পুরো ব্যাপারটা যেভাবে রহস্যে মুড়ে রাখা হয়েছে, সেটাও তো অবাক করার মতো। নির্বাচক জানেন না কিভাবে সাব্বির দলে এলেন, অধিনায়কের ঘাড়ে দোষ চাপানো হচ্ছে, তার চাওয়াতেই নাকি সাব্বিরকে দলে নেয়া হয়েছে! অথচ মাশরাফি বলছেন ভিন্ন কথা। বোর্ড কর্তারা নিজেদের অজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন, জানেন না বোর্ড প্রেসিডেন্টও! তাহলে কি সাব্বির রহমান আকাশ থেকে টুপ করে পড়লেন? নাকি গায়েবী মদদে নিউজিল্যান্ড সিরিজের দলে জায়গা পেলেন?

Facebook Comments

Tags

Related Articles

Back to top button