খেলা ও ধুলা

মিরপুরে মাশরাফির শেষ এত জলদি?

যেতে নাহি দিব হায়, তবু যেতে দিতে হয়! বাংলাদেশের ক্রিকেট সমর্থকেরা কিছুদিন পরেই হয়তো এমন একটা বাস্তবতার সম্মুখীন হবেন। লিমিটেড ওভারের ক্রিকেটে বাংলাদেশের সর্বকালের সেরা অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার বয়স আজ পঁয়ত্রিশ হলো, ফার্স্ট বোলারদের জন্যে এই বয়স পর্যন্ত খেলা চালিয়ে যাওয়াটা খুব একটা সহজ কিছু নয়। তার ওপর ইনজুরির ধকল সামলানোর ব্যাপারটা তো আছেই।

মাশরাফির দুই হাঁটু যে কতবার ডাক্তারের ছুরির নিচে কাটা পড়েছে, সেটা গুণতে গেলেও দুই হাতের আঙুল ফুরিয়ে যাবে। সঙ্গে আছে নেতৃত্বের অদৃশ্য একটা চাপ। এতকিছু সামলেও মানুষটা পারফর্ম করে চলেছেন, নিজের ফিটনেস ধরে রেখেছেন দুর্দান্তভাবে, এখনও দলের সেরা বোলারদের একজন তিনি, সেরা ফিল্ডারদের মধ্যেও অন্যতম!

কিন্ত বয়সের ঘড়িটাও তো থেমে থাকছে না। টিকটিক করে সেটাও এগিয়ে চলেছে সামনের দিকে, নিত্য জানান দিচ্ছে, সময় ফুরিয়ে আসছে। প্রকৃতির নিয়ম মেনে নিয়েই একদিন বিদায় বলতে হবে মাশরাফিকে, বুটজোড়া তুলে রাখতে হবে চিরদিনের মতো। হুট করেই একদিন আমরা আবিস্কার করবো, ওয়ানডেতে বাংলাদেশের হয়ে মাশরাফির পরিবর্তে টস করতে নেমেছেন সাকিব আল হাসান, কিংবা অন্য কেউ। সেই দিনটার জন্যে আমরা হয়তো প্রস্তুত নই মানসিকভাবে, কিন্ত সময়টা তো একদিন আসবেই, তাই না? 

মাশরাফি বিন মুর্তজা, টাইমলাইন, এশিয়া কাপ, শিরোপা, ফাইনাল, মাশরাফি ক্যারিয়ার

মাশরাফি নিজে তার অবসর নিয়ে আলোচনা করতে পছন্দ করেন না তেমন। তার সোজাসাপ্টা কথা- যতোদিন পারফরম্যান্স ঠিকঠাক আছে, যতদিন ক্রিকেটটা এনজয় করছেন, ততদিন তিনি খেলে যেতে চান। যেদিন তার মনে হবে ব্যাট-প্যাড তুলে রাখার সময় হয়েছে, তিনি বিদায় জানিয়ে দেবেন। সেটার জন্যে কোন বড় মঞ্চের প্রয়োজন নেই।

অবসর নিয়ে মাশরাফি কি ভাবছেন সেটা আমরা জানি না। হয়তো তিনি ভাবছেনই না। তবে বাস্তবতা হচ্ছে, মাশরাফি চিরদিন থাকবেন না। মাশরাফির অবসরের বিষয়ে সবচেয়ে বড় গুঞ্জন যেটা, সেটা আগামী বিশ্বকাপকে নিয়ে। আগামী বছরের জুন-জুলাইতে ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ওয়ানডে বিশ্বকাপ খেলেই ক্রিকেটকে বিদায় জানাতে পারেন মাশরাফি, এমন একটা সম্ভাবনার কথা বলছেন অনেকে। মাশরাফি নিজে অবশ্য ২০১৯ বিশ্বকাপ মিশন নিয়ে দারুণ আশাবাদী। বিশেষ করে গত চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনাল খেলার পর থেকে ইংল্যান্ডের মাটিতে ভালো কিছু করার বিশ্বাসটা আরও বেশি জায়গা করে নিয়েছে তার মনের ভেতরে। অধিনায়ক মাশরাফির ধ্যান-জ্ঞান-চিন্তা সবকিছুই এখন আসন্ন বিশ্বকাপকে ঘিরে। 

অবসরের গুঞ্জনটা সত্যি হলে, বাংলাদেশের জার্সিতে মাশরাফিকে ক্রিকেট মাঠে খুব বেশিদিন দেখতে পাওয়া যাবে না আর। আঙুল গুনে বের করে ফেলা যাবে, আর কয়টা আন্তর্জাতিক ম্যাচ পাচ্ছেন মাশরাফি। টি-২০ থেকে অবসর নেয়ায় মাশরাফি এখন শুধু ওয়ানডেটাই খেলছেন। সামনে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হোম সিরিজ আছে, সেখানে সফরকারীদের বিপক্ষে তিনটে ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। এর আগে আঙুলের ইনজুরি থেকে সেরে উঠতে পারলে হয়তো সবগুলো ম্যাচই খেলবেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। 

নভেম্বর-ডিসেম্বরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ দল। সেখানেও ওয়ানডে ম্যাচ তিনটি। সুস্থ থাকলে মাশরাফি সবগুলো ম্যাচই খেলবেন নিশ্চয়ই। দুঃখের ব্যাপার কি জানেন? হয়তো এই সিরিজের পরে দেশের মাটিতে মাশরাফির আর কোন আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা হবে না! জানুয়ারীতে বিপিএল, তারপরে নিউজিল্যান্ড সফরে উড়াল দেবে দল। মে মাসের শেষ নাগাদ বিশ্বকাপ শুরু, তার আগে আয়ারল্যান্ডে একটা ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্ট আয়োজনের কথা রয়েছে, যদিও সেটা এখনও নিশ্চিত হয়নি।

দেশের মাটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পরে আরেকটা ওয়ানডে ম্যাচ খেলার জন্যে মাশরাফিকে অপেক্ষা করতে হবে ২০২১ সাল পর্যন্ত! ততদিন মাশরাফি ক্রিকেটে থাকবেন তো? এই প্রশ্নটা উঠছেই, কারণ ২০২০ এশিয়া কাপ হবে টি-২০ ফরম্যাটে, সেখানে মাশরাফি নেই। ২০১৯-২০২০ এই দুই বছরে ঘরের মাঠে ৬টি টেস্ট এবং ১০টি টি-২০ খেলবে বাংলাদেশ। কিন্ত দীর্ঘ এই সময়ে কোন ওয়ানডে ম্যাচ হবে না বাংলাদেশে। কাজেই এমনও হতে পারে, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজটাই দেশের মাটিতে মাশরাফির খেলা সবশেষ সিরিজ হয়ে থাকবে! 

মাশরাফি ক্যারিয়ার, মাশরাফি ওয়ানডে উইকেট, মাশরাফি এশিয়া কাপ

তেমনটা হলে, মিরপুরের হোম অব ক্রিকেটে মাশরাফি আর মাত্র তিনটি ম্যাচ খেলার সুযোগ পাবেন। জিম্বাবুয়ে সিরিজে একটি ম্যাচ, ২১শে অক্টোবর। এরপরে ডিসেম্বরের ৯ ও ১১ তারিখে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুটি ওয়ানডে বাংলাদেশ খেলবে মিরপুরে, অন্য ম্যাচটি চট্টগ্রামে। আমাদের ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে বড় অর্জনগুলোর বেশিরভাগই এসেছে এই শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম থেকে। মাশরাফির বাসাও হোম অব ক্রিকেট থেকে খুব কাছেই। সেই স্টেডিয়াম থেকেই কি শেষের শুরুর পথে যাত্রা শুরু করছেন আমাদের ক্যাপ্টেন ফ্যান্টাস্টিক? 

আরও পড়ুন-

তথ্য কৃতজ্ঞতা- ফাহিম রহমান

Facebook Comments

Tags

Related Articles

Back to top button