অদ্ভুত,বিস্ময়,অবিশ্বাস্যএরাউন্ড দ্যা ওয়ার্ল্ড

আলোকের এই ঝর্ণাধারায়

দুই কিলোমিটার দীর্ঘ ক্যানভাস। তিনশ মিলিয়ন বছরের পুরনো। আঁকবেন নাকি ছবি? আঁকতে হবে কিন্তু রং দিয়ে নয়, আলো দিয়ে! ওকে, রং থাকতে পারে, তবে সেটা হতে হবে আলোর রং, অর্থাৎ রঙ্গিন আলো। আর যে ক্যানভাসের কথা বলছি, সেটা হলো বিখ্যাত ম্যাকডোনেল পর্বতমালা!

এমনই এক অনন্য শিল্পকর্ম তৈরি করে দেখালেন অস্ট্রেলিয়ার আদিবাসীরা। দেশটির অন্যতম বড় শহর “ইমপারতুই”, বা এলিস স্প্রিংসে আরেরন্দে জনগোষ্টির শিল্প এবং ঐতিহ্য তুলে ধরার জন্যে বার্ষিক পারজিমা উৎসবে এবছর আয়োজন করা হয়েছে চোখ ধাধানো সব ডিসপ্লের, যার মধ্যে সবচেয়ে আকর্ষনীয় হচ্ছে এই আলোর উৎসব। ভূমি থেকে বিশাল সব লাইট প্রজেকশন ব্যাবহার করে তিরিশ কোটি বছরের পুরনো ম্যাকডোনেল পর্বতমালাকে অদ্ভুত, অপার্থিব, আর এনিগম্যাটিক সব শিল্পকর্মে আলোকিত করে তোলা এই ডিসপ্লের নাম “দ্যা হার্টবিট অফ দ্যা এলিমেন্টস অফ দ্যা কান্ট্রি”। স্থানীয় ভাষায় এর নামের মানে দাড়ায় “অল কান্ট্রি ইজ এলাইভ”। অপার্থিব এই “জীবন্ত প্রকৃতি”র কিছু ছবি দেখে নিন- (Courtesy: James Horan Photography)

Light Festival Australia Light Festival Australia Light Festival Australia Light Festival Australia Light Festival Australia Light Festival Australia Light Festival Australia

আরেরন্দে ভাষায় “পারজিমা” মানে হলো কোনকিছুর উপর আলোকপাত করা এবং স্পষ্টভাবে বোঝা। তারা যে নিজেদের ইতিহাস আর ঐতিহ্যকেই প্রজন্মের পর প্রজন্মকে এবং সাথে অন্যান্য জনগোষ্ঠির মানুষদের কাছে বোঝাতে এবং বয়ে নিয়ে যেতে চাচ্ছেন তা স্পষ্ট। উৎসবের বিভিন্ন আয়োজনের নামগুলো চমৎকারভারে তাদের স্বকীয়তা আর ঐতিহ্যের প্রতিনিধিত্ব করে। যেমন, আরেকটি প্রদর্শনীর নাম হলো “দেয়ার ইজ নো প্লেস লাইক হোম”!

স্থানীয় শিল্প সংগ্রাহক এবং পারজিমা উৎসবে অংশগ্রহনকারী বেনেডিক্ট স্টিভেনস বলেন, “আমরা চাই মানুষ জানুক যে এই ভূমি এবং প্রকৃতি সবসময় আমাদের এবং আমরা এর অংশ। পারজিমা উৎসব আমাদের তরুনদের মাথা উচু করে এবং গর্বের সাথে বলার সুযোগ দেয় যে, এই আমাদের দেশ, এই আমাদের ঐতিহ্য, আমাদের শিল্প, এবং আমরা এ নিয়ে গর্বিত।”

অস্ট্রেলিয়ার মত জায়গাগুলোতে, যেখানকার  আদিবাসিদের সাথে তাদের দেশ ও মাটির সম্পর্কটা খুব সরল নয়, সেসব স্থানে এরকম আয়োজন খুব গুরুত্বপুর্ণ বলে সুচিন্তকরা মনে করেন। আজকেই ফেস্টিভ্যালটির শেষ দিন, ২২ সেপ্টেম্বর থেকে ১ অক্টোবর পর্যন্ত চলবে ফেস্টিভ্যালটি।

Facebook Comments

Tags

Related Articles

Back to top button