রকমারিরিডিং রুম

জীবনকে নতুনভাবে ভাবতে শেখাবে যে ৪টি বই!

টেলিভিশন, পত্রিকা, সোশ্যাল মিডিয়ায় কারণে মনটা ম্যানিপুলেটেড হয়ে গেছে প্রায়। আমাদের জেনারেশনের অনুভূতির পারদ এত দ্রুত উঠানামা করে যে, আমরা একটা বিশাল ফাঁদের মধ্যে আছি এটা নিজেরাও জানি না। কোথাও কোনো ভাল খবর নেই। পত্রিকায় পাতায় সব অপরাধের বিত্তান্ত, টেলিভিশনে সব ‘বুদ্ধিজীবি’ সবজান্তা সাজা লোকের বিরক্তিকর খবর। সোশ্যাল মিডিয়ায় আসলেই ভাইরাল টপিক। অমুকের বিয়ে, তমুকের চাকরি৷ হাজারো খবরে হরেক রকমের অস্থিরতা বাসা বাঁধে মনের মধ্যে। কিন্তু, জীবন কি এরকমই? যা দেখছি, যেভাবে প্রভাবিত হচ্ছি, এই হতাশা, এই ব্যর্থতা, এই নিঃসঙ্গতা- এগুলোই কি আমাদের ভবিতব্য?

এসব থেকে একটু বের হয়ে জীবনটাকে দেখা দরকার। নতুন কিছু সুন্দর ভাবনা দিয়ে নিজের চারপাশটাকে বোঝা দরকার। জীবনকে নতুনভাবে দেখতে, ভাবতে শেখাবে এমন কি আছে? উত্তর- বই। চারটা বইয়ের নাম আমি বিশেষভাবে উল্লেখ করতে পারি। আপনার যদি একটু সময় থাকে, নিজেকে যদি একটু উন্নততর করতে ইচ্ছে হয়, জীবনকে একটু নতুন করে দেখতে, ভাবতে ইচ্ছে হয়, এই বইগুলো পড়ে দেখার আমন্ত্রণ থাকবে।

চেঞ্জ ইয়োর থিংকিং চেঞ্জ ইয়োর লাইফ – ব্রায়ান টেসি

কখনো এমন হয়েছে আপনার সাথে- আপনি কোনো কিছু বিশ্বাস করলেন যে এই অর্জনটা আপনার হবে, আপনি এটা করবেনই, এবং সত্যি সত্যি সেটা আপনার অর্জন হয়েছে? আবার ধরুন আপনি লুকিয়ে সিগারেট খান এবং ভয় পান যে কেউ যদি দেখে ফেলে, ধরা পড়ে যান এবং সত্যিই সেদিন আপনার পরিচিত কেউ আপনাকে দেখে ফেলল? দুইরকমের উদাহরণ দেয়ার কারণ হলো, আমরা যা চিন্তা করি, আমরা তারই প্রতিফলন দেখতে পাই। অবচেতন মন এই কাজটা করে এবং চিন্তাকে বাস্তবের সাথে যোগসূত্র ঘটায়। আপনি যখন আপনার প্রিয় মানুষটার সাথে দেখা করতে যান, নিজেকে সবচেয়ে সুন্দর ফিটফাট রুপে তৈরি করে নেন এবং প্রশংসা শুনে খুশি হন। কিন্তু, শুধু পোষাকেই কি সৌন্দর্য? আপনি জানেনও আপনি কি করেছেন, আপনি আসলে নিজের চিন্তাটা বদলেছেন। ভেবেছেন, এভাবে থাকলে আমাকে সুন্দর মনে হবে৷ এই পোষাকে আমাকে সুন্দর লাগছে। যখন চিন্তা বদলে যায়, সেটাই বাস্তবে ছড়িয়ে যায়। কিভাবে ঘটে? এই বইটাতে সেই কৌশলগুলো জানা যাবে। সতর্কতা- হয়ত এই বইটা পড়ার পর আপনি আর আগের মতো থাকবেন না। আপনার জীবনকে দেখার রীতি বদলে যেতে পারে! ঘরে বসেই বইটি সংগ্রহ করুন এই লিংকে ক্লিক করে- http://bit.ly/2RueNSb

হু মুভড মাই চিজ? – স্পেনসার জনসন

এই বইটির লেখক ইন্টারন্যাশনাল বেস্টসেলার বইয়ের লেখক। তার বই হাজার হাজার কপি বিক্রি হয়। কারণ, লেখক খুব সুন্দরভাবে ব্যক্তিগত জীবন, পেশাগত জীবনে চাপমুক্ত থেকে কাজ করে যাওয়ার সুত্র বাতলে দিয়েছেন এই বইটিতে। আমাদের জীবনে প্রতিনিয়ত পরিবর্তন আসে। সব দিন আমাদের সমান যায় না। খেয়াল করে দেখবেন, আমাদের দুশ্চিন্তার বেশিরভাগজুড়ে থাকে, “এখন আমি কি করব?” এই প্রশ্নটি। পরিবর্তন নিয়ে আমরা আশঙ্কায় থাকি অনেক বেশি। কিন্তু সব কিছু হারানোর পরও সব কিছু নতুন ভাবে ফিরে পাওয়ার উপায় থাকে। এই বইটায় গল্পছলে সেই সূত্রগুলো লেখক লিখে গেছেন। অদ্ভুত সুখপাঠ্য বই, তারচেয়ে সুখের ব্যাপার বইটা পড়ার পর একটু যেন নিজেকে ভারমুক্ত মনে হয়। মনে সাহস আসে। জীবনকে নতুন এঙ্গেলে দেখার সুযোগ ঘটে। এই বইটি কিনুন এই লিংকে ক্লিক করে- http://bit.ly/2RubhXW

থিংক এন্ড গ্রো রিচ – নেপোলিয়ন হিল

বইটির শিরোনামকে বাংলা অর্থ করলে অনেকটা এরকম শোনাবে যে, চিন্তা করুন, ধনী হন। এই ধনী হওয়া শুধু অর্থনৈতিক প্রাচুর্যতা না৷ আপনি যখন চিন্তা করতে শিখবেন, নিজের চিন্তাকে নিয়ন্ত্রণ করতে শিখবেন তখনই জীবনের সবচেয়ে বড় ম্যাজিকটা আপনি শিখে ফেলবেন। এই বইটিতে সেই ম্যাজিক শেখার গল্প আছে৷ যখন কেউ খুব গভীরভাবে কোনো কিছু আকাঙখা করে, সব কিছুর বিনিময়ে হলেও জীবনটাকে বদলানোর একটা সুযোগ চায় সেই আকাঙখাকে বাস্তব করবার জন্যে, সে সেটা অবশ্যই পায়। এই পাওয়ার সাথে চাওয়ার সম্পর্ক আছে৷ আর চাইতে গেলে কি চাইবেন, কেন চাইবেন তার জন্যে চিন্তা করতে হবে। থিংক এন্ড গ্রো রিচ বইটা জীবনে সেইসব চিন্তাকে খুঁজতে সাহায্য করে। এ কারণেই এই বইটি এত জনপ্রিয়, এত হেল্পফুল! বইটি সংগ্রহ করতে পারেন এই লিংকে ক্লিক করে- http://bit.ly/2RtKmeY

সাকসেস থ্রো এ পজেটিভ মেন্টাল এটিটিউট – নেপোলিয়ন হিল, ডব্লিউ. ক্লিমেন্ট স্টোন

আমার একটা লক্ষ্য আছে৷ কিন্তু, একই সাথে অনেক বাধা আছে। কিছু মানসিক বাধা, কিছু অলসতা, কিছু অবিশ্বাস – পারব তো আমি কিছু করতে, পারব কি আমি নিজের লক্ষ্য পূরণ করতে? একটা লক্ষ্যের প্রতি নিজেকে কিভাবে অবিচল রাখা যায়, নিজেকে কিভাবে অনুপ্রাণিত রাখা যায় সেই আইডিয়াগুলো নিয়েই এই বইটা। বইটা যারা পড়েননি এবং যারা পড়েছেন তাদের মধ্যে একটা পার্থক্য হলো, ইতিবাচক মনোভাব তৈরি হওয়ার ফারাক৷ যেকজন বইটা পড়েছেন, তাদের সবার এক বাক্যের রিভিউ হলো, তাদের মধ্যে আত্মবিশ্বাসটা এসেছে। জীবনের যে ভাবনাটার অভাব অবিশ্বাস তৈরি করে, নিজের মধ্যে আত্মবিশ্বাসের হানি ঘটায় সেটাই দূর করে এই বইটি। পৃথিবীতে যারা নিজের লক্ষ্য পূরণ করেছেন, যারা সফল হয়েছেন তারা কি ভিন্ন কিছু করেন? তারা তো মঙ্গলগ্রহ থেকে টোটকা নিয়ে আসেন না। তাহলে তারা পারলে আমরা পারি না কেন? বইটিতে সেইসব মানুষদের উদাহরণ দিয়ে অনেক আইডিয়া বুঝানো হয়েছে। জীবনকে গতানুগতিক একঘেয়েমি হতাশা থেকে বাঁচাতে বইটা পড়া খুবই দারুণ সিদ্ধান্ত হতে পারে৷ অসাধারণ এই বইটি পেতে পারেন এই লিংকে ক্লিক করে- http://bit.ly/2RueUgz

সবচেয়ে আনন্দের বিষয় হলো, এই সবগুলো বইয়ের বাংলা অনুবাদ আছে। জীবনকে নতুনভাবে ভাবতে শেখানোর এই বিশ্বসেরা বইগুলো মাতৃভাষায় পড়ার আনন্দ থেকে নিজেকে বঞ্চিত কেন রাখব তাহলে! আর সবগুলো বই পাওয়া যাচ্ছে রকমারিতে, বিশেষ প্যাকেজে, ২৫% ছাড়ে। অফারটি দেখতে ক্লিক করুন এই লিংকে- http://bit.ly/2RqR2KR। জীবনকে বদলাতে এই বইগুলো নিজেকে উপহার দিতে পারেন। 

Facebook Comments

Tags

ডি সাইফ

একদিন ছুটি হবে, অনেক দূরে যাব....

Related Articles

Back to top button