টেকি দুনিয়ার টুকিটাকি

আইফোন 11: চমক নাকি ‘একঘেয়ে’?

টেক জায়ান্ট অ্যাপল আইফোনের দুটি নতুন মডেল উন্মোচন করেছে। আইফোনের নতুন মডেলে কি ফিচার থাকতে পারে, তা নিয়ে সবসময়ই কৌতুহল থাকে প্রযুক্তিপ্রেমীদের। আইফোনের নতুন তিনটি মডেলের নাম হলো আইফোন ১১, আইফোন ১১ প্রো এবং আইফোন ১১ ম্যাক্স। প্রশ্ন হলো কি এমন স্পেশাল ফিচার আছে এই নতুন মডেলগুলোতে? আছে কি নতুন কোনো চমক?

আইফোন ১১ এর কথা বলা যাক। এই মডেলটি ৬৪৮ জিবি, ১২৮ জিবি, ২৫৬ জিবি মডেলে পাওয়া যাবে। মডেলটি অনেকগুলো কালারে বাজারে ছাড়বে অ্যাপল। পাওয়া যাবে বেগুনি, সবুজ, হলুদ, কালো, সাদা, লাল রঙয়ে। দাম তুলনামূলক কমই বলতে হয়, আইফোন ১১’র মূল্য ধরা হচ্ছে ৬৯৯ ডলার। তবে অন্য দুটি মডেল ১১ প্রো’র দাম ৯৯৯ ডলার এবং ১১ প্রো ম্যাক্সের দাম হবে ১ হাজার ৯৯ ডলার।

image source – reuters

কিন্তু, আইফোন যতটা নতুনত্ব নিয়ে হাজির হবে বলে ভেবেছিলেন প্রযুক্তিপ্রেমীরা ততটুকু আলোড়ন জাগাতে পারেনি এবারকার মডেল। সবচেয়ে মেজর যে পরিবর্তন দেখা গেছে তা হলো, তিনটি ক্যামেরার প্রচলন। তবে তিনটি ক্যামেরা পাওয়া যাবে আইফোন ১১ প্রো এবং আইফোন ১১ ম্যাক্স মডেলেই।

আইফোন ১১ প্রো ও আইফোন ১১ প্রো ম্যাক্সে পেছনের তিনটি ক্যামেরার প্রতিটিই ১২ মেগাপিক্সেলের। এর একটি ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স, আরেকটি আল্ট্রাওয়াইড অ্যাঙ্গেল, অন্যটি টেলিফোটো ক্যামেরা। এই দুটি মডেল হবে নতুন এ১৩ বায়োনিক চিপসেট দ্বারা চালিত।

ক্যামেরা নিয়ে এমনিতেও ইদানিং প্রযুক্তি দুনিয়ায় একটু প্রতিযোগিতাই শুরু হয়েছে। চীনা স্মার্টফোন নির্মাতারা তো স্মার্টফোনে চার ক্যামেরা সেটআপও রাখতে শুরু করছেন। স্যামসাং, অপো, হুয়াওয়ে, ভিভো, শাওমি এসব ব্র‍্যান্ডের স্মার্টফোনে আজকাল ৪৮ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরাও পাওয়া যাচ্ছে।

নতুন আইফোন ১১তে অডিওতে ডলবি অ্যাটমস সাপোর্ট রয়েছে। আইফোন ১১তে ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স ও আল্ট্রা ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স সংবলিত ডুয়েল রিয়ার ক্যামেরার সংযুক্তি রয়েছে। পেছনের এই দুটি ক্যামেরাই ১২ মেগাপিক্সেলের। বলা হচ্ছে, অল্প আলোয় ছবি তোলার ক্ষেত্রে বিশেষ সুবিধা পাওয়া যাবে আইফোন ১১তে। কারণ রাতের বেলা কিংবা কম আলোতে ছবি তোলার সময় এর নাইট মোড স্বয়ংক্রিয়ভাবে চালু হবে। কুইকটেক নামে একটি ফিচার যুক্ত করা হয়েছে যার মাধ্যমে ছবি তোলার মাঝখানে কোনো বিরতি ছাড়াই ভিডিও শুরু করা সম্ভব হবে। এসবকেই মূলত নতুনত্ব বলা হচ্ছে।

নতুন মডেলের ক্ষেত্রে তিন ক্যামেরা প্রচলন কিছুটা আলোচনা জাগিয়েছে। তবে, শুধু তিন ক্যামেরার প্রচলনও আইফোনের ১১ সিরিজকে কতটুকু অভিনব করেছে তা প্রশ্নসাপেক্ষ। কারণ, আইফোন ১১ মডেলটার প্রায় সবগুলো ফিচারেই মিল খুঁজে পাওয়া গেছে আগের মডেল আইফোন ১০ এক্সআরের সাথে। তবে আগের মডেলগুলোর চাইতে ব্যাটারি লাইফ বেশি থাকবে নতুন মডেলগুলোতে।

সব মিলিয়ে নতুন আইফোনকে কোনো প্রযুক্তি বিশ্লেষক বলছেন, ‘একঘেয়ে’। তবে এরপরেও আইফোনের স্বাতন্ত্র্য এখনো এতোখানি বেশি যে, হয়ত এবারো আইফোন গ্রাহকদের কাছে তার আবেদন ধরে রাখতে সক্ষম হবে। তবে, প্রযুক্তি বাজারে নিজেদের অবস্থান ঠিক রাখতে আইফোনকে আরো সৃজনশীলতা দেখাতে হবে, তা বলাই বাহুল্য। সময়টা যে ভীষণ প্রতিযোগিতাপূর্ণ হয়ে গেছে…

Facebook Comments

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button