ইনসাইড বাংলাদেশযা ঘটছে

যাদুঘরে রাখার মতো মন্ত্রী-মেয়র আমাদের!

এরা মানুষ নাকি অন্য কিছু? রাজধানীর সরকারি-বেসরকারি সব হাসপাতালগুলোর যেখানে হিমশিম অবস্থা, যেখানে রোগীদের জায়গা না দিতে পেরে তারা দুঃখ প্রকাশ করছে, ৩২ জন মানুষ যেখানে মারা গেছে, হাজার হাজার মানুষ যেখানে আক্রান্ত হচ্ছে, শিশুদের বাবা-মা সহ পুরো নগরবাসী যেখানে আতঙ্কে-সেখানে কী করে এমন দায়িত্বজ্ঞানহীন কথা বলেন মেয়র? এদের কী লজ্জাও লাগে না?

আমি দায়িত্ব নিয়ে বলতে পারি যতো লোক মারা যাচ্ছে বলে বলা হচ্ছে, যতো লোক হাসপাতালে আসছে আক্রান্তের সংখ্যা তার চেয়েও বেশি। তাহলে কী করে মেয়র ডেঙ্গু নিয়ে সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনকে ‘ছেলেধরার মতো গুজব’ বলে মন্তব্য করেন? কী করে বলেন কাল্পনিক? কোনো সভ্য দেশ হলে এই মন্তব্যের জন্যই তাকে পদত্যাগ করতে হতো।

মাননীয় মেয়র, বুকে হাত দিয়ে বলেন তো মশার ঔষুধ নিয়ে কোটি টাকার দুর্নীতি হয় না? সেই দুর্নীতির কিছুই আপনি জানেন না, তাই না? লজ্জা, বিবেকবোধ কিছুই কি নেই আপনাদের? নিজেদের ব্যর্থতা ঢাকতে আর কতকাল অস্বীকারের খেলা খেলবেন?

ওদিকে আমাদের স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেছেন, বাংলাদেশে ডেঙ্গুতে মৃত্যুর সংখ্যা আশপাশের দেশের তুলনায় কম। মশার ওষুধেও নাকি কোনো সমস্যা নেই। তা মাননীয় মন্ত্রী দয়া করে বলবেন কী- স্বাস্থ্য অধিদপ্তর যেখানে বলছে, এই ঔষুধ কার্যকর নয়, উত্তর সিটি করপোরেশন যেখানে নিষিদ্ধ করেছে, সেখানে আপনারা কী করে এমন কথা বলেন?

ওদিকে আমাদের স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালিক বলছেন, মশার প্রজনন ক্ষমতা রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর মতোই। কীসের সাথে কীসের তুলনা! আচ্ছা মাননীয় মন্ত্রী মহোদয়রা, মাননীয় মেয়ররা, আপনাদের কী লজ্জা, বিবেকবোধ কিছুই নেই? আয়নার সামনে আপনারা দাঁড়ান না? আপনাদের আত্মীয় স্বজনরা আপনাদের কিছুই বলে না? আপনাদের সবাইকে যদি জাদুঘরে রেখে দেয়া যেত! আমি জানি না এই দেশটা কোনোদিন সভ্য হবে কি না। হলে আপনাদের মতো মানুষগুলো আর তাদের কথা জাদুঘরে রাখা যেত। যাই হোক, দোয়া করি সৃষ্টিকর্তা আপনাদের সুস্থ করুন। আর লজ্জা-শরম-বিবেকবোধটাও ফিরিয়ে দিক।

Facebook Comments

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button