মতামত

সন্ত্রাসের ধর্ম নাই? তাহলে নিহত মানুষের রক্তে ধর্ম হিসেব করে খুশি হয় কারা!

শ্রীলঙ্কার ঘটনা শুনে মনটা বেদনায় ভরে আছে। দেখছিলাম কীভাবে মৃতের সংখ্যা বাড়ছে। এর মধ্যেই একটা অদ্ভুত বিষয় মনে হল। আমার মনে হল, সেই দূরের দেশ নিউজিল্যাণ্ডের মসজিদে হলো, ৪৯ জন মানুষ মারা গেল, পুরো বাংলাদেশে কী তীব্র প্রতিক্রিয়া হলো। পুরো ফেসবুক সরগরম। আমরা শোকাহত। অথচ আজ ঘরের কাছের দেশ শ্রীলঙ্কায় এর ছয়গুন মানে প্রায় তিনশ মানুষের মৃত্যু কী সমানভাবে আমাদের ব্যথিত করলো?

দেখেন আওয়ামী লীগ নেতা শেখ ফজলুল করিম সেলিমের নাতি মারা গেছে শুনে যেভাবে একদল লোক নোংরা প্রতিক্রিয়া দেখাচ্ছেন সেটাও দৃষ্টিকটু। এই যে আরেক জনকে ঘৃণা, সবার জন্য কষ্ট না পাওয়া, এটাই আজকের পৃথিবীর, আজকের মানবজাতির সবচেয়ে বড় সংকট। আমরা ধর্ম বর্ণ জাতিতে বিভক্ত। আমরাই তাই আমাদের হত্যা করছি মসজিদ বা গীর্জায়।

আমরা এই দুনিয়ার মানুষই হয়তো কেউ হিসেব করছি, শ্রীলঙ্কায় তো মুসলমান না খ্রিষ্টান মরেছে। কেউ কেউ হয়তো মসজিদে হামলার প্রতিশোধও দেখছেন ঘটনাকে। আচ্ছা ইরাক বা সিরিয়ায় হাজার হাজার মানুষ যখর মরেছে ইউরোপ আমেরিকা তখন কী করেছে? রোহিঙ্গারা যখন মরেছে? যারা তখন কষ্ট পেয়েছেন তারাই হয়তো আবার কোথাও কোন আমেরিকান মারা গেলে খুশি হয়েছেন। ‌আবার মুসলমানরা মরে গেলেও কারও কারও হয়তো প্রতিক্রিয়া হয়নি।

শুধু তো ধর্ম নয়। আমেরিকান মারা গেলে এক প্রতিক্রিয়া, ইউরোপিয় মারা গেলে আরেক, আফ্রিকান বা এশিয়ান মরলে আরেক। অথচ প্রতিটা মানুষের লাল রক্তেই ভিজে যায় ধরণী।
না কোন দুর্যোগ বা কেয়ামত লাগবে না, আমরা যদি এক ঘটনার প্রতিশোধে আরেক ঘটনা ঘটাই আর এভাবে ধর্ম দেশ দেখে প্রতিক্রিয়া জানাই, তবে মানব সভ্যতা ধ্বংস হতে বাধ্য। সারা বিশ্বের সব নেতৃত্ব ও মানুষদের বলছি, এইসব খুনোখুনির সমাধান একটাই। সহমর্মী হওয়া। পুরো মানবজাতিকে অনুভব করা। সবাইকে নিয়ে বাঁচা।

আমাদের এমন একটা পৃথিবী দরকার যেখানে কাশ্মীর থেকে ফিলিস্তিন, প্যারিস থেকে অরল্যাণ্ডো, ক্রাইষ্টচার্চ থেকে বৈরুত , মুম্বাই থেকে কলম্বো, পেশোয়ার থেকে কাবুল, লণ্ডন থেকে বার্সেলোনা, টুইনটাওয়ার থেকে ইরাক, বেসলান থেকে ইস্তাম্বুল যেখানেই একজন মানুষ মারা যাক না কেন সবাইকে অনুভব করতে হবে যে আরও একজন মানুষ মারা গেল। মানবসভ্যতা আরেকবার পরাজিত হলো। সম্মিলিতভাবে এইসব মৃত্যু বন্ধ করতে হবে।

দুনিয়ার সব সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে যদি আমরা ধর্ম বর্ণ দেশ জাতি এসব পরিচয়ের বদলে শুধু মানুষ ভাবতে পারি। সারা পৃথিবীতে যেভাবে উগ্র জাতীয়তাবাদ, কট্টরপন্থার জয়জয়কার তাতে আমি জানি না আমরা কবে আর ঐক্যবদ্ধ সেই ভাবনা ভাবতে পারবো! ততোদিনে রেষারেষি আর হামলা পাল্টা হামলায় পুরো মানবজাতি ধ্বংস না হয়ে যায়!

Facebook Comments

Tags

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button