fi yuo cna raed tihs, yuo hvae a sgtrane mnid too!!!

I cdnuolt blveiee taht I cluod aulaclty uesdnatnrd waht I was rdanieg. The phaonmneal pweor of the hmuan mind! Aoccdrnig to a rscheearch at Cmabrigde Uinervtisy, it dseno’t mtaetr in waht oerdr the ltteres in a wrod are, the olny iproamtnt tihng is taht the frsit and lsat ltteer be in the rghit pclae.

The rset can be a taotl mses and you can sitll raed it whotuit a pboerlm.
Tihs is bcuseae the huamn mnid deos not raed ervey lteter by istlef, but the wrod as a wlohe. Azanmig huh? Yaeh, and I awlyas tghuhot slpeling was ipmorantt!

উপরে প্রদত্ত অনুচ্ছেদটিতে অসংখ্য ভুল বানান থাকা সত্ত্বেও কত সহজেই পড়ে ফেললেন! তাই তো?

ভাষাতাত্ত্বিকদের ভাষায় শব্দে এই ধরনের বর্ণের বিন্যাসকে বলা হয় Typoglycemia। এইসব ক্ষেত্রে কতগুলো নিয়ম অনুসরণ করে বর্ণমালা এমনভাবে সাজানো হয় যে পাঠকের কাছে শব্দটি পরিচিত হয়ে থাকলে এলোমেলো শব্দটি পড়েও অতি সহজে মূলশব্দটি পাঠক বুঝে ফেলবেন। তবে এক্ষেত্রে পাঠকের ইংরেজির ভাষা দক্ষতা, নিয়মিত পাঠ অভ্যাস এবং তার শব্দভাণ্ডার কতটা সমৃদ্ধ তা বোধগম্যতায় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখে। বলা হয়ে থাকে যে পৃথিবীর মোট ইংরেজি ভাষা জানা মানুষদের শতকরা প্রায় 55 ভাগ মানুষই উপরের অনুচ্ছেদটি দেখে তার ঠিক ঠিক অর্থ বুঝতে পারে। তবে বুঝতে পারলেও শব্দে বর্ণের এই বিন্যাসের জন্য পাঠকের পড়ার যে স্বাভাবিক গতি তা ব্যাহত হয়। পাঠক এক্ষেত্রে ভুল পড়েও কিন্তু সঠিক অর্থবহতা পায়। কিন্তু কেন এমনটি হয়? এর ব্যাখ্যায় বলা হয়ে থাকে যে কোন শব্দ যখন আমরা পড়ি তখন আমরা প্রতিটি বর্ণ ধরে ধরে পড়ি না, বরং সামগ্রিকভাবে পুরো শব্দটাকেই আমাদের চোখ এবং মস্তিষ্ক বিবেচনায় নিয়ে নেয়। ফলে শব্দে বর্ণের এই বিন্যাস আমাদের বোধগম্যতায় বিশেষ কোন প্রভাব ফেলতে পারে না।

আগেই বলেছি যে ইংরেজি Typoglycemia শব্দ তৈরির ক্ষেত্রে কতগুলো সুনির্দিষ্ট বিষয় মাথায় রাখা হয়। এলোমেলোভাবে শুধুমাত্র বসিয়ে দিলেই তা Typoglycemia হিসেবে বিবেচিত হয় না। এবং পাঠকরাও তা পড়ে অর্থ বুঝতে পারবে না।

এই নিয়মগুলো বুঝার সুবিধার্থে শুরুর অনুচ্ছেদটির দিকে আবারও লক্ষ্য করি –

১। কতগুলো ফাংশনাল ওয়ার্ড (a,an,the,be,and) শব্দগুলোর কখনই কোনরূপ পরিবর্তন করা যাবে না। অন্যথায় পাঠকের ক্ষেত্রে পাঠোদ্ধার দুরূহ হবে।

২। প্রতিটি শব্দের ক্ষেত্রেই প্রথম এবং শেষ বর্ণ অপরিবর্তনীয় রাখা বাঞ্ছনীয়। পরিবর্তন করতে হলে কেবল তা হবে মধ্যবর্তী বর্ণসমূহের মধ্যে। awlyas, ipmorantt

৩। বর্ণবিন্যাস এমনভাবে করতে হবে যেন তা মুল শব্দের উচ্চারণের অনেকটাই কাছাকাছি থাকে। যেমন অনুচ্ছেদে Uinervtisy শব্দটি রয়েছে, কিন্তু যদি Usvtrieniy লেখা হত তবে তা অধিকাংশ পাঠকের বোধগম্যতাকেই কঠিনতম চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি করত। একইভাবে porbelm এবং pelborm এর মধ্যে কোনটি সহজভাবে বোধগম্য তা বোধকরি বুঝাই যাচ্ছে (মূল শব্দ “problem”)

৪। লক্ষ্য রাখার আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে “দ্বয়ী বর্ণমালা” বা “ডাবল লেটার” কে একইসাথে স্থান দিয়ে অন্যান্য বর্ণমালার অবস্থান পরিবর্তন। যেমন মূল শব্দ According এর typoglycemia রূপ দেবার সময় “cc” একসাথে রাখা জরুরী। যেমন Aoccdring। কিন্তু যদি Ancdircng লেখা হয় তবে তা বুঝার জন্য কঠিন হয়ে দাড়ায়। অর্থাৎ cc এর বিচ্ছিন্নকরণ পাঠকের কাঠিন্যতার কারণ।

এবার আর ২টি অনুচ্ছেদ দেখে নেয়া যাক।

A dootcr has aimttded the magltheuansr of a tageene ceacnr pintaet who deid aetfr a hatospil durg blendur.

In the Vcraiiton are, a levloy eamlred geren, pirlaalty frmoueltad form asirnec, was uesd in fcaibrs and ppaluor falrol hresesdeads.

আমার ধারণা এই অনুচ্ছেদ দুইটি অনেক পাঠককেই অর্থ বুঝতে কিছুটা চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি করতে পেরেছে। এবারের অনুচ্ছেদ, লেখার শুরুর অনুচ্ছেদটির মত সহজেই ডিকোড করা যাচ্ছে না। তাই নয় কি? হ্যাঁ! যদি তাই হয় তবে কারণটি শুরুতেই একবার বলা হয়েছিল। গবেষকদের মতে এর কারণটি হচ্ছে আপনার ইংরেজি শব্দভাণ্ডারের অপর্যাপ্ততা! আপনার নিয়মিত পড়ার অভ্যাস না থাকা কিংবা দীর্ঘদিনের চর্চার অভাব!

A doctor has admitted the manslaughter of a teenage cancer patient who died after a hospital drug blunder.

In the Victorian era, a lovely emerald green, partially formulated from arsenic, was used in fabrics and popular floral headdresses.

অনলাইনে বিভিন্ন লেখায় এই Typoglycemia টিতে গবেষণায় ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম উল্লেখ থাকলেও তার নির্ভরযোগ্য কোন প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তবে খুব বেশী প্রমাণ না মিললেও বিষয়টি খুব মজার। তাই না?

রেফারেন্স:

  • Davis, Matt (2012). “Aoccdrnig to a rscheearch at Cmabrigde Uinervtisy, it deosn’t mttaer in waht oredr the ltteers in a wrod are, the olny iprmoetnt tihng is taht the frist and lsat ltteer be at the rghit pclae. […]”. MRC: Cognition and Brain Sciences Unit. Cognition and Brain Sciences Unit, Cambridge University. Retrieved 2016-07-04.
  • Rawlinson, Graham (29 May 1999). “Reibadailty”. New Scientist (2188). Retrieved 4 July 2016.
  • Rawlinson, G.E. (1976). The Significance of Letter Position in Word Recognition (Ph.D.). Psychology Department, University of Nottingham, Nottingham UK (unpublished). (Cited in Davis 2012)
  • Massaro, Dominic; Jesse, Alexandra (17 March 2005), “The Magic of Reading: Too Many Influences for Quick and Easy Explanations”, in Trabasso, Thomas R.; Sabatini, John P.; Massaro, Dominic W.; Calfee, Robert, From Orthography to Pedagogy: Essays in Honor of Richard L. Venezky, p. 42, 
Comments
Spread the love