প্রেমে পড়লে মানুষ কত পাগলামিই না করে! পাগলামি মাত্রা ছাড়ালে অনেকে বুঝি হিতাহিত জ্ঞানটুকুও হারিয়ে ফেলে। তেমনই এক প্রেমের কথা জানা গেল ‘টাইমস অব ইন্ডিয়া’র এক প্রতিবেদনে।

সে প্রতিবেদন অনুযায়ী, ভারতের মুম্বাইয়ের দুই তরুণী ২০ বছর বয়সী টুইঙ্কেল সনি এবং ১৯ বছর বয়সী তিলাল পারমার দুজনই এক তরুণের প্রেমে দিওয়ানা। তরুণের নাম ঋষি সিং। প্রেমিককে খুশি করতে তারা গত দুই মাস ধরে ৩৮ টি মোবাইল ফোন চুরি করেছে। মোবাইল চুরি করে বিক্রি করে সে টাকা তারা তাদের যৌথ প্রেমিক, ঋষি সিং এর পেছনে খরচ করেছে।

গত দুই মাস ধরে, মুম্বাইয়ের বোরিভলি স্টেশনে অনেক মোবাইল ফোন চুরির অভিযোগ আসছিল। সেই মোবাইল ফোন চোরকে ধরতে ওয়েস্টার্ন রেলওয়ের ডিসিপি, পুরুষোত্তম কারাত, একটি তদন্ত দল গঠন করেন। তদন্ত করতে গিয়ে তারা দেখেন যে, ফোনগুলো চুরি হচ্ছে সেখানকার বোভিরলি এবং সান্তাক্রুজ স্টেশনের মাঝামাঝি কোন জায়গায়।

এই তদন্তের অংশ হিসেবে ৩০ মে, কয়েকজন মহিলা পুলিশ সাধারণ পোষাকে সেখানকার কান্দিভলি স্টেশনে একটা ট্রেনে চেপে বসেন। সে ট্রেনেই তারা দুপুর একটার দিকে টুইঙ্কেল সানিকে হাতেনাতে গ্রেফতার করেন। টুইঙ্কেল সনি সে সময় একটা মহিলার ব্যাগ থেকে মোবাইল চুরির চেষ্টা করছিল।

টুইঙ্কেল সনি গ্রেফতার হলে তার দেয়া তথ্যের উপর ভিত্তি করে পুলিশ অপর ছাত্রী তিনাল পারমার এবং রাহুল পুরোহিতকে ধরতে সক্ষম হয়। প্রেমিকের সহায়তায় এই দু’জন ছাত্রী রাহুল পুরোহিতের কাছেই  চুরি করা মোবাইল ফোনগুলো বিক্রি করত। রাহুল পুরোহিত ছাত্রী দু’জনের  চুরি করা মোবাইলগুলো ৩ লাখ রুপিরও বেশি দাম দিয়ে কিনে নিয়েছিল।

টুইঙ্কেল সানিকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের পরে রেলওয়ে পুলিশ জানতে পেরেছে, সানি সেখানকার একটি কলেজে স্থাপত্যবিদ্যার ছাত্রী এবং তিনাল পারমার ডিগ্রি কলেজে প্রথম বর্ষের ছাত্রী। তারা ট্রেনে করে কলেজে যাবার পথে মোবাইলগুলো চুরি করত। বিকেলে প্রেমিক ঋষি সিং এর সাথে দেখা করতে যেত। এবং প্রেমিকের সহায়তায় মোবাইল ফোনগুলো নিয়ে রাহুল পুরোহিতের কাছে বিক্রি করে দিত।

মোবাইল চুরির অভিযোগে কমপক্ষে সাতটি মামলার প্রেক্ষিতে তাদের খোঁজা হচ্ছিল। 

টুইঙ্কেল সানির ব্যাগ থেকে কমপক্ষে নয়টি ফোন উদ্ধার করা হয়েছে। গ্রেফতার কৃত দুই ছাত্রী এবং রাহুল পুরোহিতের কাছ থেকে  মোট ৩৮টি ফোন এবং ৩০টি মেমোরি কার্ড উদ্ধার করা হয়েছে। ৮ জুন পর্যন্ত তাদের পুলিশ কাস্টডিতে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে জানা গেছে। এই দুই ছাত্রীর প্রেমিক ঋষি সিংকে এখনো খুঁজে পায়নি পুলিশ।

হায় রে প্রেম! দুই ছাত্রী পড়েছে একজনের প্রেমে। তাও এমন একজনের যে তাদের চোর বানিয়েছে এবং পুলিশের হাতে ধরা পরার পরে, ফেলে রেখে পালিয়েও গেছে। এমন অসাধারণ প্রেমিকের পেছনে দুই’জন পরেছে! এদের উদ্মাদ ছাড়া আর কি বলার আছে!

*

এগিয়ে চলোর এই ১০০% কটন, ১৬০ জিএসএমের প্রোডাক্ট পেতে কল করুন এই নাম্বারে- 01670493495 অথবা অর্ডার করতে এখানে ক্লিক করে ফেসেবুকে ম্যাসেজ করুন।

Comments
Spread the love