ঘটনাবহুল একটি বছরের একদম শেষ প্রান্তে দাঁড়িয়ে আছি আমরা। এ বছর রাজনীতি, অর্থনীতি, খেলাধুলা প্রভৃতি অঙ্গনে যেমন ঘটেছে অসংখ্য চমকপ্রদ ঘটনা, তেমনি বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগও নাড়া দিয়েছে আমাদের মনকে। এবং সেসব ঘটনার পুঙ্খানুপুঙ্খ বিবরণ ধরে রাখা সম্ভব না হলেও, আংশিকভাবে হলেও সেগুলোকে চিরস্থায়ীভাবে ফ্রেমবন্দি করে রাখার চেষ্টা করেছেন ফটোগ্রাফাররা। তাদের ক্যামেরার ক্লিকে আমাদের চোখ এড়িয়ে যাওয়া অনেক ঘটনাই যেমন আলোর মুখ দেখেছে, তেমনি অনেক আলোচিত ঘটনাও আগের চেয়ে অনেক বেশি জীবন্ত হয়ে ধরা দিয়েছে আমাদের মানসচক্ষে। টাইমস ম্যাগাজিনের সম্পাদকেরা একত্র করেছেন সেরকমই সেরা দশটি ছবি, যেগুলো শুধু দেখার জন্যই নয় বরং হৃদয় দিয়ে অনুভব করারও।

১/ দুইজন মানুষ একটি এপার্টমেন্টের ড্রয়িং রুমে বসে আছেন। মনে হতে পারে খুবই স্বাভাবিক ঘটনা। কিন্তু খেয়াল করে দেখুন, ওই রুমের দেয়াল নেই! ২৫ সেপ্টেম্বর সান হুয়ান থেকে তোলা হয়েছিল এ ছবিটি। সপ্তাখানেক আগেই হারিকেন মারিয়ার আঘাতে ঠিক কতটা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল পুয়ের্তো রিকো, তারই সাক্ষ্য বহন করছে এই ছবিটি।

২/ আরও একটি হৃদয়বিদারক দৃশ্যের অবতারণা ঘটেছে এই ছবিতে। কয়েকটা বাচ্চা ঘিরে ধরেছে তাদের ১৭ মাস বয়সী চাচাতো ভাইয়ের নিথর মৃতদেহ। প্রচন্ড অপুষ্টিহীনতায় ভুগে মৃত্যু ঘটে শিশুটির।

৩/ এটি কোন দৌড় প্রতিযোগিতার ছবি নয়। একটু খেয়াল করলেই দেখতে পাবেন ছবির মানুষগুলোর চোখেমুখে একই সাথে ফুটে উঠেছে প্রচন্ড মৃত্যুভয় এবং বেঁচে থাকার প্রবল আকুতি। অক্টোবরের ১ তারিখ লাস ভেগাসে গানফায়ারের পর এভাবেই প্রাণ বাঁচাতে ছুটতে থাকে রুট ৯১ হারভেস্ট কান্ট্রি মিউজিক ফেস্টে অংশ নেয়া মানুষজন।

৪/ এই ছবিটি হয়ত অনেকের চোখের প্রশান্তির কারণ হতে পারে। কিন্তু পেছনের কাহিনীটা তার থেকেও অনেক বেশি করুণ রসের। ডিসেম্বরের ৫ তারিখ তোলা এ ছবিটা। এখানে দেখা যাচ্ছে, একটি পরিবার রাস্তায় দাঁড়িয়ে দেখছে আর কিছুক্ষণ পরই থমাস ফায়ারে পুড়ে ভস্মীভূত হয়ে যাবে তাদের বাড়ি।

৫/ সেপ্টেম্বরের ২০ তারিখে তোলা হয় এই ছবিটি। কক্সবাজারের বালুখালি রিফিউজি ক্যাম্প থেকে তোলা হয়েছিল এই ছবিটি। ত্রাণের ট্রাক এসে হাজির হলে এভাবেই শত শত মানুষ ঝাঁপিয়ে পড়ে সেই ট্রাকে উঠে সবার আগে ত্রাণ সংগ্রহ করতে।

৬/ ২ জুলাই আইল্যান্ড বিচ স্টেট পার্ক থেকে তোলা হয়েছিল এ ছবিটি। ছবিতে দেখা যাচ্ছে, নিউ জার্সির গভর্নর ক্রিস ক্রিস্টি তার পরিবার ও বন্ধুদের নিয়ে আনন্দ করছেন। এই বিচটি তিনি ব্যবহার করেছিলেন তার সামার হাউজ হিসেবে!

৭/ শ্রীনগরের দক্ষিণ সীমান্ত থেকে ১ আগস্ট তোলা হয়েছিল এই ছবিটি। এখানে দেখা যাচ্ছে, বিক্ষোভে এক কাশ্মিরী মারা গেলে তার বোনের করুণ আহাজারি। আর চারদিক থেকে স্বজনেরা আপ্রাণ চেষ্টা করছে সদ্য ভাইহারা বোনটিকে সান্ত্বনা জোগানোর।

৮/ ১২ আগস্ট তোলা এ ছবিটিতে দেখা যাচ্ছে, হোয়াইট ন্যাশনালিস্টদের বিরুদ্ধে বিক্ষোভরত জনগণের উপর তুলে দেয়া হচ্ছে চলন্ত গাড়ি।

৯/ এই ছবিটি তোলা হয়েছিল জুলাইয়ে। এখানে দেখা যাচ্ছে জীবনের শেষ লগ্নে পৌঁছে যাওয়া একটি মেরু ভাল্লুককে, যে প্রচন্ড চেষ্টা করছে সমারসেট আইল্যান্ডের তুন্দ্রা অঞ্চল ধরে হেঁটে যাওয়ার।

১০/ এই ছবিটি তোলা হয়েছিল ১৯ মার্চ। এখানে দেখা যাচ্ছে এক কিশোর সাইকেল চালিয়ে যাচ্ছে সদ্যই ইরাকের নিরাপত্তাবাহিনী কর্তৃক স্বাধীন হওয়া মসুল শহরের একাংশের ধ্বংসস্তূপের পাশ দিয়ে।

তথ্যসূত্র ও ছবি- টাইম ডটকম

Do you like this post?
  • Fascinated
  • Happy
  • Sad
  • Angry
  • Bored
  • Afraid

আপনার গুরুত্বপূর্ণ মতামত দিন-