কিউবার ফিদেল ক্যাস্ত্রো, আমাদের শেখ মুজিব…

আলজিয়ার্সে ১৯৭৩ সালে জোট নিরপেক্ষ সম্মেলনকালে ফিদেল ক্যাস্ত্রো আর বঙ্গবন্ধুর আলাপচারিতার চুম্বক অংশ- ক্যাস্ত্রো: এক্সেলেন্সি, তাহলে শুনুন। চিলির প্রেসিডেন্ট আলেন্দের মত আমরা বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী মুজিবকেও ‘খরচের খাতায়’ রেখে দিয়েছি। ইউ আর ফিনিশ এক্সেলেন্সি। মুজিব: কমরেড হঠাৎ করে এ ধরণের কথাবার্তা বলছেন কেন? একটু গুছিয়ে বলবেন কি? ক্যাস্ত্রো: বিকজ, ইউ হ্যাভ লিগ্যালাইজড দ্য ডিফিটেড এডমিনিস্ট্রেশন ইন বাংলাদেশ। ইউ আর ফিনিশ এক্সেলেন্সি। (কেননা আপনি বাংলাদেশে একটি পরাজিত প্রশাসনকে আইন সঙ্গত করেছেন এক্সেলেন্সি। আপনি কিন্তু শেষ হতে যাচ্ছেন।)…

"কিউবার ফিদেল ক্যাস্ত্রো, আমাদের শেখ মুজিব…"

এ গ্রেট এস্কেপ: মুজিব পর্ব-৩

(দ্বিতীয় পর্বের পর থেকে) হঠাৎ আজ কুয়াশা খুব বেশী। এই সময়টায় কুয়াশা এত পড়ার কথা না! বাইরে খুব একটা দেখা যাচ্ছে না কিছুই। কুকুরগুলোও খুব ত্যাদড়, আর উল্টোপাল্টা রাতভর ডাকতে থাকে এই সময়ে। দরজায় শাবল চালানোর শব্দ শোনা যায়,পুলিশ তিন তলার রুমের দরজা ভাঙতে ব্যস্ত, এদিকে খুব একটা খেয়াল নেই। মুজিব ওদের দুজনকে নিয়ে বেরিয়ে পড়ে, বাইরে তীব্র কুয়াশা, ওদের উদ্দেশ্য অজানা! মুজিব জানেনা ওরা কোথায় যাচ্ছে! পেছনের গলি দিয়ে খোঁড়াতে খোঁড়াতে এগোয়, হঠাৎ মুজিবের…

"এ গ্রেট এস্কেপ: মুজিব পর্ব-৩"

এ গ্রেট এস্কেপ: মুজিব পর্ব-২

(প্রথম পর্বের পর থেকে…) ফরিদপুরের দত্তপাড়ার জমিদারেরা খুব নাম করা, আর ওই এলাকায়ও যথেষ্ট প্রভাবশালী। ওই বাড়ীর ছেলে সাইফুদ্দিন চৌধুরী ওরফে সূর্য মিয়া, মুজিবের আত্নীয়। সূর্য মিয়া রাত দুইটা পর্যন্ত জেগে জেগে মুজিবের সেবা করছে, মুজিবের পায়ে ব্যান্ডেজ, খানিক আগেও ব্যথায় কাতরাচ্ছিল। সূর্য মিয়া ভাবে মুজিবের শরীরে কত রক্ত! সূর্য মিয়া খুব যতন করে মুজিবের মাথায় হাত বুলায় আর ভাবে, পোলাডার ঘাড়ের রগ বেজায় ত্যাড়া……! সেদিন সভা শেষে মিছিল নিয়ে বেরিয়েছে ওরা তিনজন, পেছনে কয়েক…

"এ গ্রেট এস্কেপ: মুজিব পর্ব-২"

এ গ্রেট এস্কেপ: মুজিব পর্ব-১

২৩ শে জুন ১৯৪৯ আওয়ামী মুসলিম লীগের প্রথম সম্মেলন শেষ হয়। সভাপতি হলেন আব্দুল হামিদ খান ভাসানী, সাধারন সম্পাদক শামসুল হক আর শেখ মুজিব হল একমাত্র যুগ্ম সম্পাদক! খেলা কিন্তু শুরু! এদিকে পুরান ঢাকার প্রভাবশালী মানুষ ইয়ার মোহাম্মদ খান, যার এক ডাকে মুহুর্তের ভেতর কয়েক’শ মানুষ জড়ো হয়ে যায়, সেই তিনিও আওয়ামি লীগে যোগ দিলেন। নবাবজাদা লিয়াকত আলী খান সাহেব ১১ই অক্টোবর পূর্ব বাংলায় আসবেন! শেখ মুজিব ভাবেন, ওইদিন কিছু একটা করতে হইবোই! শেখ মুজিব…

"এ গ্রেট এস্কেপ: মুজিব পর্ব-১"

“আমার মনে হচ্ছে মুজিব ভাই আমাকে ডাকছেন…”

স্বাধীনতার যুদ্ধ চলছে। এদেশের প্রাণের নেতা, স্বাধীনতার স্বপ্নদ্রষ্টা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান কারাগারে বন্দী। ওইরকম পরিস্থিতিতে যে মানুষটা বাংলার স্বাধীনতা অর্জনে রেখেছেন অগ্রণী ভুমিকা, যার সুদক্ষ নেতৃত্ব ছাড়া আমাদের স্বাধীনতার কথা চিন্তাও করা যেত না, সেই বঙ্গতাজ তাজউদ্দীন আহমদের জন্মবার্ষিকীতে ‘এগিয়ে চলো’জানায় স্যালুট ও একরাশ শ্রদ্ধা। যতদিন পৃথিবীর মানচিত্রে বাংলাদেশের নাম লেখা থাকবে, ততদিন তাজউদ্দিন আহমদের নাম ইতিহাসের পাতায় লেখা থাকবে স্বর্ণাক্ষরে… _ _ _ _ _ _ লিখেছেন- আরিফ রহমান  এক. তাজউদ্দীন আহমদ- এই নামটার…

"“আমার মনে হচ্ছে মুজিব ভাই আমাকে ডাকছেন…”"