‘পাকিস্তানী ভাই’ এবং একজন মোস্তফা কামালের গল্প

পাকিস্তানী সেনাবাহিনীর অফিশিয়াল পেইজ “পাকিস্তান ডিফেন্স”-এ ভারত ও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর ছবিসংবলিত একটা পোষ্ট দিয়ে স্মরণ করিয়ে দেওয়া হয়েছে, ভারত এবং বাংলাদেশের সাথে পাকিস্তানের বহু পুরোনো শত্রুতা, তারা সবসময়ই পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে এসেছে, এবং তারা কিভাবে গাদ্দারী করে পাকিস্তান ভেঙ্গে টুকরো টুকরো করেছিল সেটা যেন পাকিস্তানের তরুণ প্রজন্ম ভুলে না যায়। ছবির ব্যাকগ্রাউন্ডে ১৬ই ডিসেম্বর পাকিস্তানের আত্মসমর্পণের দৃশ্য। পোস্টের নিচে সর্বোচ্চ লাইক পাওয়া কমেন্টটা বাংলাদেশের একজনের, তাতে সে ইংরেজিতে লিখেছে যে, ‘পাকিস্তানিরা আমাদের ভুল বুঝছে,…

"‘পাকিস্তানী ভাই’ এবং একজন মোস্তফা কামালের গল্প"

পাকিপ্রেমীদের লাথি দিয়ে বাংলাদেশ থেকে বের করে দেওয়া হোক!

স্বাধীনতার পর ধর্ষিতা বাঙালী মহিলাদের চিকিৎসায় নিয়োজিত অষ্ট্রেলিয় ডাক্তার জেফ্রি ডেভিস গনধর্ষনের ভয়াবহ মাত্রা দেখে হতবাক হয়ে কুমিল্লা ক্যান্টনমেন্টে আটক এক পাক অফিসারকে জেরা করেছিলেন এই বলে- যে তারা কিভাবে এমন ঘৃণ্য কাজ করেছিলো। তাদের সরল জবাব ছিলো; “আমাদের কাছে টিক্কা খানের নির্দেশনা ছিলো, যে একজন ভালো মুসলমান কখনোই তার বাবার সাথে যুদ্ধ করবে না। তাই আমাদের যত বেশী সম্ভব বাঙালী মেয়েদের গর্ভবতী করে যেতে হবে।আমাদের এসব উশৃঙ্খল মেয়েদের পরিবর্তন করতে হবে, যাতে এদের পরবর্তী…

"পাকিপ্রেমীদের লাথি দিয়ে বাংলাদেশ থেকে বের করে দেওয়া হোক!"

পাকিস্তানের সাথে বিসিবির এত মাখামাখি কেন?

কিছু জিনিস চাইলে বর্জন করা যায়, কিছু জিনিস যায় না। যেগুলো অপশনাল না – সেগুলো নিয়ে কেউ কিছু বলবেও না। একটার সাথে আরেকটা মেশানো সমীচীন না। অনেকে তর্ক করতে গিয়ে বলেন যে চলেন তাইলে পাকিস্তানের সাথে খেলা বাদ দেই! এটা যেহেতু আইসিসির শিডিউল, তাই চাইলেই এটা বাদ দেয়া সম্ভব না। এর মধ্যেও ভারত কিন্তু মুম্বাই হামলার পর থেকে কোনো পাকিস্তানিকে আইপিএল খেলতে নেয় না। সীমান্তে সংকট বাড়ায় ২০১২ এর পর থেকে দ্বিপাক্ষিক সিরিজও খেলে না,…

"পাকিস্তানের সাথে বিসিবির এত মাখামাখি কেন?"

পাকিস্তান- এমন ‘স্টুপিড’ দেশটি কোথাও খুঁজে পাবে নাকো তুমি…

১৯৩৯ সালে শুরু হওয়া দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শেষ হয় ১৯৪৫ সালে। প্রথম বিশ্বযুদ্ধের মতো দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের ৬ বছরের পুরা ঝড়টা গিয়েছে ইউরোপের উপর দিয়ে এবং দুইটা বিশ্বযুদ্ধেই সবচেয়ে বড় পার্ট ছিলো জার্মানির। তারা প্রথম বিশ্বযুদ্ধে জড়িয়েছে ইচ্ছা করে আর মোটামুটি জোর করেই দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ বাঁধিয়েছে (অনেকেই মজা করে বলে যে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধটা হচ্ছে না কারণ জার্মানি ঠাণ্ডা আছে!)  দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের শুরু থেকে জোসেফ স্টালিনের সাথে ‘একে অপরকে আক্রমণ করবো না’-এর মতো অলিখিত চুক্তি করে যৌথবাহিনী দিয়ে…

"পাকিস্তান- এমন ‘স্টুপিড’ দেশটি কোথাও খুঁজে পাবে নাকো তুমি…"

মাথামোটা পাকিস্তানের সবখানে মার খাওয়ার গল্প!

সেই জন্মের পর থেকেই এখন পর্যন্ত যতবার যুদ্ধে গেছে পাকিস্তান, প্রতিবারই গো হারা হেরে আসতে হয়েছে তাদেরকে। প্রতিটা ক্ষেত্রে উচ্চাভিলাষী স্বল্পমেয়াদি প্ল্যান পয়দা করেছে পাকিস্তানি জেনারেলরা, আর প্রতিবারই আগ বাড়িয়ে যুদ্ধ করতে গিয়ে কানমলা খেয়ে ফেরত গেছে তাদের সৈন্যরা, হোক সেটা ভারতের সাথে যুদ্ধ কিংবা বাংলাদেশের সাথে। ১৯৪৭-এ যথারীতি আগ বাড়িয়ে কাশ্মিরে ঢুকে পরে পাকিস্তানের সেনারা, যদিও কাশ্মিরের মহারাজার সাথে একটি স্ট্যান্ডস্টিল এগ্রিমেন্ট স্বাক্ষর করেছিলেন মহারাজা হরি সিং। যদিও হরি সিং-এর ইচ্ছে ছিলো না ভারত…

"মাথামোটা পাকিস্তানের সবখানে মার খাওয়ার গল্প!"