পছন্দের তারকাদের খুঁটিনাটি জানার ব্যাপারে ভক্তদের আগ্রহের কোন শেষ নেই। ব্যাক্তিগত পছন্দটাই নয় শুধু, নিজেকে অন্য ভক্তদের চেয়ে এগিয়ে রাখার একটা সূক্ষ্ম প্রতিযোগীতাও কাজ করে এখানে। তারকারা দূর আকাশের নক্ষত্র। আম-জনতার পক্ষে তো আর রোজ রোজ তাদের নাগাল পাওয়া সম্ভব নয়। তাহলে প্রিয় নায়ক-নায়িকা বা খেলোয়াড়ের খুঁটিনাটি সব জানার উপায়টা কি?

যুগটা তথ্য প্রযুক্তির, আরেকটু বিশদভাবে বললে, সময়টা এখন পুরোপুরিই ইন্টারনেট নির্ভর। দুয়েকজন বাদে প্রায় সব সুপারস্টারেরাই এখন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দারুণ সক্রিয়। কোথায় যাচ্ছেন, কি করছেন, কার সঙ্গে ঘুরছেন, পরবর্তী কোন সিনেমায় নাম লেখাচ্ছেন- এসব এখন ফেসবুক/ইনস্ট্যাগ্রাম বা টুইটারের বদৌলতেই জেনে যাচ্ছেন ভক্তরা। এর বাইরেও অনেক কিছু জানার থাকে। ব্র‍্যাড পিটের উচ্চতা কত? লিওনেল মেসি বার্সেলোনার জার্সি গায়ে প্রথম মাঠে নেমেছিলেন কবে? ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো কবে মাদ্রিদে যোগ দিয়েছিলেন? অমিতাভ বচ্চনের পছন্দের খাবার কি? এসব জানার জন্যে ইন্টারনেটে অহরহ ঢুঁ মারেন অনেকেই।

কিছুদিন আগে রাজীব মাসান্দের সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারের সময় এমনই কিছু প্রশ্ন হাজির করা হয়েছিল বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খানের সামনে। সার্চ ইঞ্জিন গুগলে শাহরুখকে নিয়ে ভক্তরা যে প্রশ্নগুলোর উত্তর সবচেয়ে বেশী খুঁজেছেন, সেগুলোর ব্যাপারেই জানতে চাওয়া হলো তার কাছে। শাহরুখও স্বভাবসুলভ হাস-ঠাট্টায় বেশ মজা করে খুশীমনেই উত্তর দিয়েছেন সেসব প্রশ্নের, উঠে এসেছে তার ব্যক্তিগত জীবনের কথাও। এগিয়ে চলো’র পাঠকদের জন্যে শাহরুখের সেই প্রশ্নোত্তর পর্বটুকু তুলে ধরা হলো আজ।

#শাহরুখ খানের গায়ে কি ট্যাটু আছে?

– না। ‘ডন-২’ আর ‘হ্যারি মেট সেজেলে’র শুটিঙের সময় একটা ট্যাটু ব্যবহার করা হয়েছিল আমার শরীরে, তবে সেটা ক্ষণস্থায়ী ছিল। আমি শরীরে ট্যাটু করাই নি কখনও। এই জিনিসটা আমার কাছে বেশ বিব্রতকর মনে হয়।

শাহরুখ খান, গৌরি খান, মান্নাত

#শাহরুখের কি প্রাইভেট জেট(ব্যক্তিগত বিমান) আছে?

– না রে ভাই, এখনও তো কিনতে পারলাম না। তবে আমার ইচ্ছে আছে, একদিন একটা প্রাইভেট জেট হবে আমার। যেদিন আমার সিনেমা এক হাজার কোটি টাকা ব্যবসা করবে, সেদিনই আমি দৌড় দেবো বিমান কিনতে। ট্যাটু নেই, প্রাইভেট জেট নেই; আমি একটা লুজার(হেসে)!

# শাহরুখ খান এখন কি করছেন?

– এই যে, ক্যামেরার সামনে বসে বোর্ড থেকে সাদা টেপগুলো খুলে প্রশ্ন বের করছি, সেগুলোর উত্তর দিচ্ছি!

# শাহরুখ খানের ফোন নম্বর কত?

– ৫৫৫৯৯৬০৩২১। কল করবেন প্লিজ, অবশ্যই মাঝরাতের আগে। আর দেরী হয়ে গেলে একটা মেসেজ দেবেন, আমি অবশ্যই রিপ্লাই করবো, সাথে একটা স্মাইলি ইমোজি দিয়ে।

#শাহরুখ খানের আসল নাম কি?

– আমার দাদী আমার নাম রেখেছিলেন আবদুর রহমান। কিন্ত আমার বাবার সেটা পছন্দ হয়নি, তাই তিনি নামটা পরিবর্তন করে শাহরুখ খান রাখেন। আমি জানি, ইন্টারনেটে বা অন্য অনেক জায়গায় লোকে আমাকে আরও অনেক নামে ডাকে, কিন্ত সেগুলো আমাকে খুব একটা আকর্ষণ করে না।

#শাহরুখ খান কি বিশ্বের সবচেয়ে ধনী অভিনেতা?

– দ্বিতীয় সর্বোচ্চ, এমনটাই বোধহয় শুনেছিলাম। একটা প্রাইভেট জেট নেই, ট্যাটু নেই, কিভাবে সবচেয়ে ধনী হই বলুন? সবচেয়ে ধনী হবার ব্যাপারটাতে খুব একটা আগ্রহ নেই আমার, তবে আশা করি একদিন হয়ে যাবো এক নম্বর। দোয়া করতে থাকুন(হাসি)!

#শাহরুখ খান এত বিখ্যাত কেন?

– কারণ আমি দেখতে ভালো, সেক্সি, হ্যান্ডসাম, লম্বা, আকর্ষণীয়, খুব সুন্দর করে কথা বলতে পারি; আমি তো সর্বগুণে গুণান্বিত! আমি বিখ্যাত না হলেই বরং ব্যাপারটা অদ্ভুত হতো, তাই না?

শাহরুখ খান, গৌরি খান, মান্নাত

#শাহরুখ খানের সঙ্গে গৌরীর কোথায় দেখা হয়েছিল?

– আমি একটা স্কুল পার্টিতে ওকে প্রথম দেখেছিলাম। দিল্লিতে স্কুল পার্টিগুলো যেমন হতো, ছেলেরা একপাশে বসতো, মেয়েরা অন্যপাশে। ছেলেরা গিয়ে মেয়েদের আমন্ত্রণ জানাতো নাচের সঙ্গী হবার জন্যে। আমি ভীষণ লাজুক প্রকৃতির ছিলাম, একটা মেয়েকে গিয়ে যে আমার সঙ্গে নাচতে অনুরোধ করবো, সেই সাহসটা ছিল না। গৌরি তখন আমার এক বন্ধুর সঙ্গে নাচছিল, সেখানেই আমি ওকে প্রথম দেখলাম। আমার বন্ধু ওকে আমার সঙ্গে নাচতে বললো, ও রাজী হয়ে গেল। সেটাই প্রথম সাক্ষাৎ।

#শাহরুখ খান কিভাবে ‘মান্নাত’ কিনেছেন?

– অনেক অনেক কষ্টের বিনিময়ে। অনেক অনেক টাকা খরচা করে। অনেক সিনেমা, টিভি শো, বিজ্ঞাপন, বিয়ের অনুষ্ঠান- সবকিছুর বিনিময়ে। তবে এটা খুবই তৃপ্তিদায়ক একটা অনুভূতি। মাথার ওপরে একটা ছাদ আছে, এই নিরাপত্তার সাথে আর কোনকিছুর তুলনা হয় না। আমার বাচ্চাদের আর্থিক ভবিষ্যত নিয়ে আমাকে খুব একটা দুশ্চিন্তা করতে হচ্ছে না- এটা দারুণ।

শাহরুখ খান, গৌরি খান, মান্নাত

দিল্লিতে আমরা সবাই বাংলোতে থেকে অভ্যস্ত ছিলাম। মুম্বাইতে আসার পরে দেখলাম এখানে বাংলো কালচারটা কম, সবাই এপার্টমেন্টে থাকে। আমি দিল্লির ছেলে, সেই কারণেই বাংলো কেনার পেছনে ছুটলাম। কিন্ত এটা করতে গিয়েই যে খবর হয়ে যাবে, সেটা জানতাম না(হাসি)। প্রায় পাঁচ ছয় বছর লেগে থাকতে হয়েছে আমাকে। তুলনামূলক কম পারিশ্রমিকেও কাজ করেছি এই সময়ে, যাতে আমি বেশী কাজ করতে পারি। মান্নাতের প্রতিটা ইটে সেই পরিশ্রমগুলোর কথা লেখা আছে।

#শাহরুখ খান কি গান গাইতে পারেন?

– অবশ্যই! কিন্ত এটা আমি আমার বৃদ্ধ বয়সের জন্যে জমিয়ে রাখছি। যখন আর অভিনয় করতে পারবো না, অনুষ্টানে উপস্থাপনা করতে পারবো না, বিয়ে বাড়িতে গিয়ে নাচতে পারবো না, আমার সব প্রতিভা লোকে দেখে ফেলবে, তখন গানের ভাণ্ডার নিয়ে বসবো। আমি আমার সিনেমার দুয়েকটা গান মাঝেমধ্যে বাড়িতে গাওয়ার চেষ্টা করি, কিন্ত আমার ছেলে-মেয়েরা চিৎকার শুরু করে দেয়। বাচ্চা তো, একারণে প্রতিভার কদর বোঝে না ওরা!

Comments
Spread the love