সিনেমা হলের গলি

বলিউডের ইতিহাসের সেরা বিয়ের অনুষ্ঠান কি এটাই?

দুজনের প্রেমের গল্পটা জানতো ইনস্ট্যাগ্রাম, জানতেন কাছের মানুষেরাও। তবে মিডিয়ার সামনে সম্পর্ক নিয়ে দুজনেই ছিলেন ‘স্পিকটি নট’ অবস্থায়। জিজ্ঞেস করা হলে বরাবরই হেসে উড়িয়ে দিয়েছেন, এড়িয়ে গেছেন। বলিউডের চিরাচরিত বাণী ‘উই আর জাস্ট গুড ফ্রেন্ডস’ লাইনটাও শোনা যায়নি কারো মুখে। তবে বিয়ের এই ভরা মৌসুমে সাতপাকে বাঁধা পড়তে খুব বেশী দেরীও করেননি বলিউড ডিভা সোনম কাপুর আর দিল্লির ব্যবসায়ী আনন্দ আহুজা। সেই মতেই দুজনের চারহাত এক হয়ে গেল গতকাল।

বিয়ের মতো একটা বিয়েই দেখে ফেললো বলিউড, দেখে ফেললাম আমরাও। তিনদিন ধরে মুম্বাইয়ের ফিল্মি দুনিয়া বুঁদ হয়ে ছিল অনিল কাপুর তনয়ার বিয়ের অনুষ্ঠানে। রথী-মহারথী থেকে চুনোপুটি নিমন্ত্রণের তালিকা থেকে বাদ যাননি কেউই। শাহেনশাহ অমিতাভ বচ্চন থেকে শুরু করে তিন খান, কিংবা হালের ক্রেজ রনবীর কাপুর-বরুণ ধাওয়ান-রনবীর সিং, উপস্থিত ছিল প্রায় গোটা সিনেমাপাড়াই। সবাই মিলে একসঙ্গে নেচেছেন, গেয়েছেন, মাতিয়ে রেখেছেন বিয়ের অনুষ্ঠান। আশীর্বাদ করেছেন নবদম্পতিকে।

আনন্দ আহুজা পারিবারিকভাবেই ব্যবসায়ী। ইংল্যান্ডে পড়াশোনা শেষ করার পরে বিখ্যাত ই-কমার্স সাইট অ্যামাজনে ইন্টার্ন করেছিলেন। তারপরে পারিবারিক ব্যবসায় ঢুকে গিয়েছিলেন। এর মধ্যেও নিজের আলাদা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলেছেন, বেশ বিখ্যাত হয়ে উঠেছে সেটাও। ২০১৪ সালে সোনম কাপুরের সঙ্গে পরিচয় তার, সেই পরিচয় একটা সময়ে প্রণয়ে গড়িয়েছে, আর গত তিনদিন ধরে শুভ পরিণয়ে বাঁধা পড়লেন দুজনে।

সোনম কাপুর, অনিল কাপুর, সোনমের বিয়ে, আনন্দ আহুজা

মেহেদী অনুষ্ঠান থেকেই তারকাদের আনাগোনা শুরু হয়ে গিয়েছিল কাপুরদের বাংলোতে। রানী মুখার্জী থেকে শুরু করে মাধুরী দীক্ষিত- মিছিলটা শুরু হয়েছিল সেখানেই। আমির খানকে এমনিতে বিয়েশাদীর অনুষ্ঠানে খুব একটা দেখা যায় না। কিন্ত অনিল কাপুরের আমন্ত্রণ তো আর দশটা আমন্ত্রণের মতো নয়। আমির খান তাই হাজির হয়ে গেলেন সস্ত্রীক।

অমিতাভ বচ্চন এসেছিলেন মেয়ে শ্বেতা আর ছেলে অভিষেক বচ্চনকে সঙ্গে নিয়ে। অভিষেক পরে স্ত্রী ঐশ্বরিয়াকে নিয়েও এসেছেন। অ্যাশের সঙ্গে সোনমের দীর্ঘদিনের টানাপোড়েন এই বিয়ের অনুষ্ঠান দিয়েই মিটেছে- এমনটা দাবী করেছে মিডিয়া। যদিও রিসিপশনের অনুষ্ঠানে হাস্যোজ্জ্বল ঐশ্বরিয়া রাই’কে দেখে মনেই হয়নি যে দুজনের মধ্যে আদৌ কোন দূরত্ব ছিল।

সোনম কাপুর, অনিল কাপুর, সোনমের বিয়ে, আনন্দ আহুজা

আলিয়া ভাটের সঙ্গে অনুষ্ঠানে এসেছেন রনবীর কাপুর। দুজনের সম্পর্কের গুজবটা আরেকটু ডালপালা মেলেছে এই ঘটনায়। কারিনা-সাইফ-কারিশমা কাপুরেরা এসেছিলেন একসঙ্গে, তবে এই তিনজনের চেয়ে বেশী নজর কেড়ে নিয়েছেন ছোট্ট তৈমুর। স্ত্রীকে নিয়ে এসেছিলেন শহীদ কাপুরও, তবে দুজনের দেখা হয়নি। শিল্পা শেঠিও এসেছিলেন স্বামীকে নিয়ে, ইনস্ট্যাগ্রামে ভিডিও আপলোড করে নিজের উপস্থিতির জানান দিয়েছেন তিনি। বোন ইসাবেল কাইফকে নিয়ে এসেছিলেন ক্যাটরিনা। জ্যাকি শ্রফ-মাধুরী-জুহি চাওলারা জীবন সঙ্গীকে সঙ্গে নিয়েই জড়ো হয়েছেন বিয়ের অনুষ্ঠানে। অজয় দেবগন দেশের বাইরে থাকায় একাই হাজিরা দিতে হয়েছে কাজলকে, বরুণের বাহুলগ্না হয়ে ছিলেন তার প্রেমিকা নাতাশা দালাল; করণ জোহর, সিদ্ধার্থ মালহোত্রা, জ্যাকলিন ফার্নান্দেজ রেখা আর কঙ্গনা এসেছিলেন একা।

একটা বিয়ের অনুষ্ঠান পারিবারিক দূরত্ব ঘুচিয়ে দেয়ার কাজটাও করতে পারে দারুণভাবে। সোনম-আনন্দের এই বিয়েটা সেটাও দেখিয়ে দিল ক্যামেরার সামনে। সৎ-মা শ্রীদেবীর সঙ্গে সম্পর্কটা বরাবরই শীতল ছিল অর্জুন কাপুরের। শ্রীদেবী মারা যাবার পরেই অর্জুন বদলে গেলেন যেন, ছোট বোনদের আগলে রাখতে সগুরু করলেন নিজের ছায়াতলে, বাবার হাতের লাঠি হয়ে ওঠার চেষ্টাটা তার মধ্যে দেখা যাচ্ছে ভীষণভাবে। চাচাতো বোনের বিয়ের অনুষ্ঠানেও যেমন পারিবারিক ছবিতে বাবা আর বোনদের সঙ্গে ফ্রেমবন্দী হলেন অর্জুন, এই বিয়ের সেরা ছবিগুলোর একটা এটা অবশ্যই।

সোনম কাপুর, অনিল কাপুর, সোনমের বিয়ে, আনন্দ আহুজা

শাহরুখ খান এসেছিলেন স্ত্রী গৌরিকে নিয়ে, সালমান এসেছিলেন আলাদা। তবে অনুষ্ঠানস্থলের ভেতরে দুজনে এক হয়ে মাতিয়েছেন সবাইকে। গান গেয়েছেন, নেচেছেন, হুল্লোড়ে জমিয়ে দিয়েছেন উৎসব। মাইক্রোফোন হাতে নিয়ে বেসুরো গলায় সালমান যখন সোনমের মায়ের সামনে গান গাইলেন, কি চমৎকারই না লাগলো সেটা শুনতে! শাহরুখ-সালমান দুজনেই নেচেছেন মিকা সিঙের গানের সঙ্গে।

তবে সবচেয়ে বেশী কোমর দুলিয়েছেন যে মানুষটা, তার নাম অনিল ‘ঝাক্কাস’ কাপুর। কে বলবে, যুবক চেহারার এই মানুষটা আজ মেয়ের বিয়ে দিচ্ছেন, সেই মেয়ের আবার তেত্রিশ বছর বয়স! এই বয়সেও এমন দারুণ এনার্জেটিক তিনি, ভাবতেই অবাক লাগে। নিজের চাইতে বয়সে অনেক ছোট রনবীর সিং-বরুন ধাওয়ানদের সঙ্গে নাচে পাল্লা দিয়েছেন, পুরোটা অনুষ্ঠানজুড়েই মনের খুশীতে নেচেছেন এই ভদ্রলোক। খুশী রাখার জায়গা পাচ্ছিলেন না যেন! গায়ে শার্ট, সেটার আবার দুটো বোতাম খোলা, গলায় লম্বা একটা চেইন, এরমধ্যে হাত পা ছুঁড়ে নেচে যাচ্ছেন অনিল কাপুর- এইই দৃশ্যটার মধ্যেই কেমন যেন একটা ভালোলাগা মিশে আছে!

সোনম কাপুর, অনিল কাপুর, সোনমের বিয়ে, আনন্দ আহুজা

অনিল নাহয় মেয়ের বিয়ে দিচ্ছেন, তিনি খুশীতে নাচতেই পারেন। কিন্ত রনবীর সিং-এর নাচের রহস্যটা বোঝা গেল না। রনবীর অবশ্য নাচতে পছন্দ করেন। ঢোলের বাড়ি শুনলেই কোমর দোলানো শুরু হয়ে যায় তার। কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে যোগ দিতে দীপিকা এখন ফ্রান্সে, তাই একাই অনুষ্ঠানে এসেছিলেন রনবীর। দীপিকার অনুপস্থিতিও তার খুশীতে লাগাম দিতে পারেনি, অনুষ্ঠানে করা ভিডিওতে সেটাই বোঝা যাচ্ছে।

কিছুদিন আগেই বিয়ের পিড়িতে বসেছিলেন বিরাট-আনুশকা জুটি। অনুষ্ঠানটা ভারতের বাইরে হওয়ায় সেটা প্রত্যাশা অনুযায়ী হাইপ পায়নি। মিডিয়ার প্রবেশাধিকার না থাকায় বাইরেত দুনিয়ার কাছে খানিকটা ম্রীয়মাণ ছিল সেই বিয়ের আয়োজনটা। সোনম কাপুরের বিয়ের অনুষ্ঠানে সেসবের ঘাটতি ছিল না। বলিউডের সর্বকালের সবচেয়ে আলোচিত বিয়ে এটাই? হ্যাঁ, এই রায় দেয়াই যায়। আর কোন বিয়ের অনুষ্ঠান কি এটাকে পেছনে ফেলতে পারবে? এই প্রশ্নের জবাবও তৈরি- পারবে, যদি কোনদিন সালমান খান বিয়ে করেন!

Comments
Tags
Show More

Related Articles

Close