রাত আটটা-

আজ দশটার ভিতর ঘুমায় যাবো। অনেক অনিয়ম হইছে। জীবনটা গুছাইতে হবে। এভাবে রাত জেগে জেগে আর হচ্ছে না। সকালে কাজ মিস হয়, সারাদিন ঘুমানোটাও অস্বাস্থ্যকর। নয়টায় খেয়েদেয়ে ঘুম। বেশী ভারী খাবার না। ভারী খাবার খেলে ফ্যাট জমবে। সালাদ খাবো। রুটিন লাইফ। ভালো ছেলে।

রাত নয়টা –

এখন তো খাবো, এর ফাকে একটু চা খাই। ডিনার টা দশটায় করবো। চা খেতে খেতে একটু ফেসবুকে ঢুকি। একটা স্ট্যাটাস দেয়া যেতে পারে। আরে এটা ও কি স্ট্যাটাস দিছে। এটারে প্যাচাই। কমেন্ট, রিপলাই, কমেন্ট, রিপলাই, ফাজ ইউ, কমেন্ট, ইনবক্স, ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট……

রাত এগারোটা-

শিট, এগারোটা বেঁজে গেছে। আমার দশটায় ঘুমানোর কথা। নয়টায় ডিনার। খিদা লাগসে। ভাতই খাই, একদিন খেলে কিছু হবে না। কাল থেকে সালাদ, গরম দুধ। শিট, গরুর মাংস। আরেকটু ভাত নেই, ডাল দিয়ে। শিট, মাছ! আরেকটু নেই…. মাছে ক্যালরি কেমন? নেটে দেখতে হবে। ভরপেট খাইলাম, এবার বারোটার ভেতর ঘুমায় যাবো। ভরাপেটে ঘুম ভালো আসে।

ঘুম, ফেসবুক, রাত জাগা, বার্গার

রাত বারোটা-

ঘুম আসতেছে না। ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিছিলাম, লাইক টাইক কেমন পড়লো? একটু দেখি। একটা সেলফি দেয়া যায়। ক্যাপশন- ঘুম আসে না, হ্যাশট্যাগ…. ইনবক্স কেন এতো। শিট, ঐ মেয়েটা রিপলাই দিছে! একটু চ্যাট করি। কমেন্ট করছিলাম রাতে, সেখানে একজন আমাকে গালি দিছে। কে এই ছেলে, একটু দেখি প্রফাইলটা। ইউটিউবে কয়েকটা স্লো সং শুনি। ঘুম আসবে। রবীন্দ্রসঙ্গীত শুনা যায়। নতুন কি কি মুভি রিলিজ পাইছে, ট্রেইলার দেখা যায়। ঘুমানোর আগে মুভি দেখলে শুনছি মাথা কাজ করে ক্লান্ত হয়। একটা মুভি দেখে ফেলি। নাকি একটা ডকুমেন্টারি দেখবো?

রাত দুইটা-

শিট। দুইটা বাজে। নাহ, ল্যাপটপ বন্ধ। ল্যাপটপের স্ক্রিনের বিভিন্ন রে মস্তিষ্ককে উত্তপ্ত করে রাখে। রুমের লাইট নিভায় দেই। বালিশটা উচু করে দেই। কোলবালিশ কই? ফ্যান ফুলস্পিডে ছেড়ে একটা শীত শীত ভাব আনি। কাথা মুড়ি দিয়ে একটা জটিল ঘুম দেয়া যাবে। চোখ বন্ধ….আমার চোখের পাতায় ঘুম…মমম… আচ্ছা হোয়াট ইজ লাইফ ? আমাদের জীবনের গোল কি ? মনে হয় না আমি সব এচিভ করতে পারছি। কিন্তু আমার সব বন্ধুরা জীবনে এচিভ করছে। আমি কেন লুজার ? আমি হেরে গেছি জীবনে…. ধুর… এই জীবনের কোন মানে নাই,…..

ঘুম, ফেসবুক, রাত জাগা, বার্গার

রাত তিনটা-

বুঝছি, ঘুম আসবে না। ল্যাপটপ আর অন করবো না, মোবাইল দিয়ে একটু ঢুকি ফেসবুকে। কেউ নাই…. শিট খিদা লাগছে। রাত তিনটায় খিদা লাগবেই। রাতে এত খেয়ে এখন আবার খিদা কেন লাগবে। বিরানি খাইতে ইচ্ছা করতেছে। ফেসবুকে কে জানি বার্গারের ছবি আপ দিছে। কাচ্চি খাওয়া যায়, ফ্রিজে আছে। গরম করতে হবে। কিন্তু অনেক ফ্যাট। ধ্যাত, কাল থেকে সব ঠিক করা যাবে। কোক আছে, কাচ্চি আর কোক। রাতের গরুর মাংসটা গরম করবো নাকি? এক কাজ করা যায়, খেতে খেতে পুরানো মুভিটা টেনে টেনে দেখে ফেলি। ল্যাপটপটা অন করি। চিকেন আছে ফ্রিজে, বাট এত খাওয়া যাবে না। মুভি দেখে খেয়েই ঘুম….

রাত চারটা-

ফেসবুকে হোমপেজ রিলোড দেই। এ ছাড়া কিছু করার নাই। মুভি খাওয়া ঘুমানোর চেষ্টা সব করা শেষ। রিলোড… রিলোড…. রিলোড…. ওয়েট.. একজন একটা ছবি দিছে। সে নতুন চাকরি পাইছে… সাথে নতুন বউ। শিট, আই এম সো ডিপ্রেসড! ফাজ দিস লাইফ। ফেসবুক থেকে বের হই। কিছু দু:খের গান শুনি। আর বেশি কাঁদালে…. উড়াল দেবো…. দীর্ঘশ্বাস….. সব কিছু ডিপ্রেসিং….

ঘুম, ফেসবুক, রাত জাগা, বার্গার

সকাল ছয়টা-

আমাকে সকালে বের হতে হবে। কিন্তু আমার দুনিয়া ভেঙে ঘুম আসতেছে। অসুস্থ বলে মেসেজ দিবো নাকি? চা খাবো নাকি কফি। আমাকে সকালে যেতেই হবে। নাকি ফোন বন্ধ করে ঘুম দেবো। ঘুমের উপর কিছু নেই। বেটার ঘুমাই। কিন্তু না গেলে আমি আজ শেষ…. তাহলে কি করবো… কি করবো… কি করবো…

সকাল দশটা-

শিট! ঘুমায় গেছিলাম। ৩৪টা মিসকল। শিট, শিট শিট। তবে এখন গিয়ে আর লাভ নাই। বেটার ঘুমাই। নাকি একবার ঢু মেরে আসবো। না থাক, বরং কালই…… পোস্ট সিএল নিয়ে নেবো।

দিন ঘনিয়ে আবার……… রাত আটটা-

আজ দশটার ভিতর ঘুমায় যাবো…………

Do you like this post?
  • Fascinated
  • Happy
  • Sad
  • Angry
  • Bored
  • Afraid

আপনার গুরুত্বপূর্ণ মতামত দিন-