সিনেমায় তিনি পিটিয়ে শায়েস্তা করেন গুন্ডাদের। তার এক ঘুষিতে উড়ে আধমাইল দূরে গিয়ে পড়ে ভিলেন। এবার সেই সালমান খানকেই কিনা পেটানোর হুমকি দেয়া হলো! ভারতের কট্টরপন্থী হিন্দুত্ববাদী সংগঠন ‘হিন্দু হি আগে’- এর আগ্রা শাখার প্রধান গোবিন্দ পরাশর নামের এক ব্যক্তি ঘোষণা দিয়েছেন, সালমান খানকে কেউ জনসম্মুখে পেটাতে পারলে তাকে নাকি দুই লক্ষ রূপি পুরস্কার দেয়া হবে!

কিন্ত সালমানের ওপর কট্টরপন্থী ধর্মীয় নেতাদের এমন ক্ষোভের কারণটা কি? সমস্যাটা আসলে বেঁধেছে সালমান খানের প্রযোজিত নতুন একটা সিনেমা নিয়ে। বেঁধেছে বলার চেয়ে, সমস্যা বাঁধানো হচ্ছে বললে ভালো মানাবে। নিজের প্রযোজনা সংস্থা ‘সালমান খান ফিল্মজ’- থেকে ‘লাভরাত্রি’ নামের একটা সিনেমা প্রযোজনা করেছেন সালমান খান, যেটা এ বছরের অক্টোবরে মুক্তি পাবে। এই সিনেমায় নায়কের চরিত্রে অভিনয় করবেন সালমানের ভগ্নিপতি আয়ুশ শর্মা। এটা তার ক্যারিয়ারের প্রথম সিনেমা। সালমানই তাকে লঞ্চ করছেব বলিউডে। আয়ুশের জন্যেই নাকি সালমান এই সিনেমাটি প্রযোজনায় দায়িত্ব নিয়েছেন, জানা গেছে এমনটা।

সালমান খান, লাভরাত্রি, নবরাত্রি

হিন্দুত্ববাদী ওই নেতাদের কয়েকজন জানিয়েছেন, হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম প্রধান ধর্মীয় উৎসব নবরাত্রী’র নামকে বিকৃত করে সিনেমার নামকরণ করা হয়েছে। ভারতের দিল্লি/উত্তরপ্রদেশ/কাশ্মির/হিমাচল/পাঞ্জাব ইত্যাদি এলাকায় দূর্গাপূজার আরেক নাম হচ্ছে নবরাত্রী। বাঙালীরা যখন দূর্গাপূজা পালন করে, তখন প্রায় একইভাবে দূর্গাপূজার মতো করেই নবরাত্রী উৎসব পালন করে ভারতের উত্তরের হিন্দু ধর্মাবলম্বী মানুষজন।

এর আগে সিনেমাটির নামের ব্যাপারে আপত্তি জানিয়েছিল বিশ্ব হিন্দু পরিষদ। নাম পরিবর্তন করা না হলে এই সিনেমার মুক্তির বিরুদ্ধে তারা বিক্ষোভ করবেন বলেও জানিয়েছিলেন। এবার তো আরেক সংগঠনের নেতারা আগ বাড়িয়ে সালমানকে পেটানোর জন্যে পুরস্কারের ঘোষণাই দিয়ে বসলেন! উল্লেখ্য যে, এই গোবিন্দ পরাশর নামের মহাশয়টি এর আগে প্রকাশ্যে বন্দুক বহনের দায়ে পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়ে জেল খেটেছিলেন। তিনি এখন ধর্মরক্ষার খাতিরে সিনেমা নিষিদ্ধের দাবী জানাচ্ছেন!

সালমান খান, লাভরাত্রি, নবরাত্রি

দুই সংগঠনের পক্ষ থেকেই ভারতীয় চলচ্চিত্রের কেন্দ্রীয় সেন্সর বোর্ডে আবেদন জানানো হয়েছে, ‘লাভরাত্রি’ সিনেমাটাকে যেন সেন্সরবোর্ড থেকে মুক্তির অনুমতি দেয়া না হয়। এই সিনেমা ধর্মীয় সহাবস্থানের পরিপন্থী বলেও উল্লেখ করা হয়েছে আবেদনে। ‘হিন্দু হি আগে’ সংঠনের পক্ষ থেকে দাবী করা হয়েছে, লক্ষ লক্ষ হিন্দু ধর্মাবলম্বীর ধর্মীয় আবেগকে এই নামটা আঘাত করেছে! এই নামে যদি সিনেমাটা মুক্তি পায়, সেটাকে নিষিদ্ধ করার জন্যে যা যা করা প্রয়োজন, সবকিছুই করবেন তারা- এরকম ঘোষণাও দেয়া হয়েছে। শুধু তাই নয়, গোবিন্দ পরাশরের নেতৃত্বে সংগঠনের নেতারা এই সিনেমার পোস্টার এবং সালমানের ছবিতেও অগ্নিসংযোগ করেছেন।

সালমান খান, লাভরাত্রি, নবরাত্রি

গত বছর প্রবল ধর্মীয় বিরোধের মুখে পড়েছিল সঞ্জয় লীলা বানশালীর বিগ বাজেটের সিনেমা ‘পদ্মাবতী’। রাজস্থান, গুজরাট সহ বেশ কিছু রাজ্যে তো ভয়াবহ আকার ধারণ করেছিল সেই বিক্ষোভ। পদ্মাবতীর মুক্তি ঠেকাতে আত্নহত্যাও করেছে দুয়েকজন উর্বর মস্তিস্কের মানুষ! বাধ্য হয়ে মুক্তি পিছিয়ে দেয়া হয়েছিল সিনেমার, পরিবর্তন করা হয়েছিল সিনেমার নাম, ভেতরেও অনেক দৃশ্য পরিবর্তন করা হয়েছিল বলে জানা গেছে। এবার ‘লাভরাত্রি’কেও সেই পরিণতি বরন করতে হয় কিনা কে জানে!

কৃষ্ণসার হরিণ হত্যার মামলা নিয়ে বেশ কয়েকদিন বাজে অবস্থার মধ্যে দিয়ে কেটেছে সালমান খানের। ঈদে মুক্তি পাচ্ছে তার নতুন সিনেমা ‘রেস-থ্রি’। এই সময়ে এসব ঝামেলা নিশ্চয়ই মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলতেই চাইবেন তিনি। আর কট্টরপন্থীদের এসব হুমকি-ধামকিকে সালমান কতটা পাত্তা দেন, সেটাও দেখার বিষয়।

সালমান খান, লাভরাত্রি, নবরাত্রি

লাভরাত্রি সিনেমার গল্পটা নবরাত্রিকে ঘিরেই। এই উৎসবেই গুজরাটের তরুণ আয়ুশের সঙ্গে পরিচয় হয় নৃত্যশিল্পী ওয়ারিনা’র। নায়িকা ওয়ারিনা হুসেইনও নবাগতা, এই সিনেমা দিয়েই বলিউডে অভিষেক ঘটছে তার। দুই অভিষিক্তের এই সিনেমা নিয়ে ধর্মীয় কট্টরপন্থীদের এমন গোলমাল পাকানোটা প্রত্যাশিত কিছু নয় মোটেও।

তথ্যসূত্র- হিন্দুস্তান টাইমস।

Comments
Spread the love