এই মৌসুমে ফর্মের তুঙ্গে আছেন লিভারপুলের মিশরীয় ফরোয়ার্ড মোহাম্মেদ সালাহ। চ্যাম্পিয়ন্স লীগের সেমিফাইনালে রোমার বিপক্ষে দুর্দান্ত খেলেছেন, দলকে ফাইনালে তুলতে রেখেছেন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। রোমা থেকে অ্যানফিল্ডের ক্লাবটাতে নাম লেখানোর পর থেকেই পায়ে যেন ঐশ্বরিক কোন শক্তি ভর করেছে তার, গোলের পর গোল করে চলেছেন নির্লিপ্ত ভঙ্গিমায়। ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন এবছর, নিজের মিশরকে বিশ্বকাপের টিকেট এনে দিয়েছেন শেষ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করে।

ইংল্যান্ডে এখন দারুণ জনপ্রিয় তিনি। আর মিশরে তো তার জনপ্রিয়তা আকাশচুম্বী। সেটাও এমনই যে, মিশরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রায় দশ লক্ষ ভোটার ব্যালট পেপার থেকে প্রার্থীদের নাম কেটে সেখানে বসিয়ে দিয়েছেন মোহাম্মেদ সালাহ’র নাম! এই তুমুল জনপ্রিয় মানুষটাকেই যদি দেখা যায় মিশরের রাস্তায় হেঁটে বেড়াচ্ছেন, লোকজনের সঙ্গে সেলফি তুলছেন, সাধারণ রেস্টুরেন্টে বসে কফি খাচ্ছেন- তাহলে ভিরমি খাওয়াটাই স্বাভাবিক। এমন দূর গ্রহের নক্ষত্রকে আশেপাশে নেমে আসতে দেখলে যে কেউই চমকে যাবেন।

মোহাম্মেদ সালাহ, আহমেদ বাহা, মিশর, লিভারপুল

চমকে গেছেন মোহাম্মেদ সালাহ নিজেই। হুবহু নিজের চেহারার, নিজের উচ্চতার, নিজের গড়নের কাউকে দেখলে চমকে যাবারই তো কথা, তাই না? মোহাম্মেদ সালাহ বরুন ধাওয়ানের জড়ুয়া-২ সিনেমাটা দেখেননি সম্ভবত, তবে দেখলে সেই সিনেমার অবাস্তব আর গাজাখুরি গল্পে বিশ্বাস চলে আসতো তার। আহমেদ বাহা নামের মিশরীয় এক যুবকের সঙ্গে যে তার চেহারায় হুবহু মিল! যেন মেলায় হারিয়ে যাওয়া দুই ভাই! চোখ-কান-নাক সবই যেন এক। উচ্চতায় শুধু সালাহ’র চাইতে ইঞ্চিখানেক লম্বা বাহা, তবে সেটাও চট করে ধরা পড়ে না। লোকে তাকে মোহাম্মেদ সালাহ ভেবে অহরহ ভুল করে।

তবে এখন সালাহ’র এই কপিক্যাট ‘ভাই’টিও মিশরে দারুণ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন। স্বয়ং সালাহ তার সঙ্গে দেখা করেছেন, প্রথম দেখায় নাকি বিস্মিত হয়েছিলেন সালাহ নিজেও। ব্যাপারটা বিশ্বাস করতে খানিকটা সময় লেগেছিল তার। সালাহ’র সঙ্গে একটা সেলফি তোলার জন্যে লোকে লাইন দিয়ে দাঁড়ায়, আর সেই সালাহ কিনা নিজেই উৎসাহী হয়ে বাহার সঙ্গে সেলফি তুলেছেন!

মোহাম্মেদ সালাহ, আহমেদ বাহা, মিশর, লিভারপুল

ত্রিশ বছর বয়সী আহমেদ বাহা ব্যবসায় স্নাতক করেছেন। ফুটবলের বিশাল ভক্ত তিনি। তবে বাহা এখন যতোটা না ফুটবল ভক্ত, তারচেয়ে বড় সালাহ ভক্ত। চেহারায় মিল থাকায় পরিচিত সবাই আগে থেকেই সালাহ’র মতো বলে ডাকতো তাকে। দাঁড়ি আরেকটু বড় ছিল তার, সেটা কেটে সালাহ’র মতো ছোট করেছেন। চুল আঁচড়ানো বন্ধ করে দিয়েছেন একদম। আর তাতেই সালাহ’র দ্বিতীয় সংস্করণ বনে গিয়েছেন আহমেদ বাহা!

বাহা’র খোঁজ পেয়ে সালাহ’র সঙ্গে তার দেখা করানোর ব্যবস্থা করেছিল একটা আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম। সেখানে কি হয়েছিল, সেটা শুনে নেয়া যাক বাহা’র মুখেই- “পেছন থেকে আমাকে দেখে একদম চমকে গিয়েছিল সালাহ। ও আমাকে বলেছে, আমাকে দেখে নাকি ওর মনে হয়েছে ও আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে আছে। এটা আমার জন্যে ভীষণ সম্মানের। ও এমন একজন মানুষ, যার কারণে মিশরের নাম উজ্জ্বল হয়েছে, যাকে নিয়ে পুরো মিশরের মানুষ গর্ব করতে পারে।”

মোহাম্মেদ সালাহ, আহমেদ বাহা, মিশর, লিভারপুল

সালাহ’র সঙ্গে সাক্ষাতের পরেই মিশরজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে আহমেদ বাহা’র কথা। অনেকেই এখন বাহা’র নাম জানে, নিজের পরিচয়েই পরিচিত হচ্ছেন তিনি এখন। লোকজন তাকে দেখলে এখন সালাহ মনে করে ভুল করছেন না তেমন একটা, আহমেদ বাহা মনে করেই এগিয়ে আসছেন তার সঙ্গে সেলফি তুলতে। এই জনপ্রিয়তায় মুগ্ধ বাহা নিজেও। এরমধ্যেও সালাহ’র খেলা দেখা কিন্ত মিস হচ্ছে না। রোমার বিপক্ষে চ্যাম্পিয়ন্স লীগ সেমিফাইনালের দুই লেগই কায়রোর একটা রেস্টুরেন্ট বসে দেখেছেন বাহা, চিৎকার করে গলা ফাটিয়েছেন পছন্দের ফুটবলারের সমর্থনে। সেখানে খেলা দেখতে আসা লোকজন বাড়তি আনন্দ পেয়েছে সালাহ’র কার্বন কপি বাহাকে পাশে পেয়ে। একদফা সেলফি উৎসব হয়ে গেছে সেখানেও।

সালাহ কিন্ত চাইলে আহমেদ বাহাকে তার প্রতিনিধি হিসেবে বিভিন্ন জায়গায় পাঠাতে পারেন। সৌদি সরকার সালাহ’কে মক্কায় জমি দেয়ার কথা বলছে, নিশ্চয়ই সেখানে একটা অনুষ্ঠান করবে তারা, বিরক্তিকর বক্তৃতা দেবে লোকজন। সালাহ চাইলে সেখানে নিজে না গিয়ে বাহাকে পাঠাতে পারেন, কারো বোঝার সাধ্যি নেই! আবার কোনদিন ট্রেনিং সেশন করতে মন না চাইলে বাহাকে মাঠে পাঠিয়ে দিতে পারেন সালাহ। ফুটবল নিয়ে কারিকুরি দেখানোর আগ পর্যন্ত কেউ বুঝতেই পারবে না যে এই বান্দা সালাহ নয়!

তথ্যসূত্র কৃতজ্ঞতা- বিবিসি স্পোর্টস, দ্য টেলিগ্রাফ, দ্য গার্ডিয়ান।

Comments
Spread the love