রিডিং রুমলেখালেখি

পর্ন দেখার সময় আমি কোন রিস্ক নিই না (18+)

(‘মদ খাওয়ার সময় আমি কোনো রিস্ক নেই না’ অবলম্বনে)

টিউশনি শেষ করে ফ্রেন্ডদের সাথে আড্ডা দিয়ে মোটামুটি বেশ রাত হলে বাসায় ফিরলাম। ফ্রেশ হয়ে খাওয়াদাওয়া করে কাথার নিচে ঢুকলাম। হালকা শীত পড়েছে। ফেসবুক ওপেন করে দেখি মারিয়া নামের এক মেয়ে হাই দিয়েছে। আমি হ্যালো দিলাম। নিউজফিড স্ক্রল করা শুরু করলাম। একটা মেয়ের ছবি আসলো সামনে। সুন্দর করে সেজেগুজে ছবি তুলে আপলোড করেছে। নিস্পাপ চেহারা। মুগ্ধ হওয়ার মত। চোখে কাজল দেয়া। মুখে মায়াভাব প্রবল।

সারাদিনের স্ট্রেস কাটিয়ে রিলাক্স হওয়ার জন্য আইডিয়া হিসাবে বহু পুরাতন সেই দুষ্টু বুদ্ধি চাপলো মাথায়। ল্যাপটপ ওপেন করে ভিডিও ছাড়লাম। এক মেয়ে ফোনে পিজা অর্ডার দিয়ে গোসলে ঢুকেছে। জামাকাপড় ছেড়ে টাওয়েল পরলো। দুই মিনিট দেখলাম ভিডিওটা। মারিয়া মেসেজের রিপ্লাই দিয়েছে, ‘কি করেন?’ আমি পর্ন দেখতে দেখতে উত্তর দিলাম, মুভি দেখি। ফরেস্ট গাম্প। ক্লাসিক মুভির নাম বললে মেয়েরা স্মার্ট ভাবে।

আমি যে পর্ন দেখছি সেটা মারিয়া টের পায় নি। কারণ আমি কোন রিস্ক নিই না।

ভিডিও দেখা চালিয়ে গেলাম। পিজা ডেলিভারি বয় পিজা নিয়ে এসেছে। নিগ্রো বডিবিল্ডার টাইপের একজন। সে কাউকে না পেয়ে ঘরের মধ্যে ঢুকে গেল। নায়িকা এখনো গোসল করছে। নায়িকার শরীরে সাবানের ফ্যানা ছাড়া আর কিছুই নেই।

নিউজফিডে ফিরে আসলাম। মেয়েটার ছবিটা কেমন যেন লাগছে। লিপিস্টিক বেশি দেয়া। মনে হচ্ছে খেয়ে ফেলি। কমলার কোয়ার মত ঠোট। সেই রকম হট লাগতেছে মেয়েটারে। মারিয়াকে মেসেজ দিলাম, একা একা আর ভাল্লাগেনা। একটা বউ থাকলে ভালো হতো। মারিয়া ফিরতি মেসেজে হাসির ইমো দিয়ে বললো, তাইলে বিয়ে করে ফেলেন। সমস্যা কি!

এখনো আমার পর্ন দেখার বিষয়ে কেউ কিছু টের পায় নি। কারণ আমি কোন রিস্ক নিই না।

পিজা ডেলিভারি বয় লুকিয়ে লুকিয়ে নায়িকার গোসল দেখছে। নায়িকা হ্যান্ড শাওয়ার দিয়ে শরীরের বিশেষ বিশেষ জায়গায় পানি দিচ্ছে। পিজা ডেলিভারি বয় সহ্য করতে না পেরে হস্তমৈথুন শুরু করেছে।

খেয়াল হলো নিউজফিডের মেয়েটা ওড়না পরেনাই। শরীরের বাকগুলো স্পষ্ট। প্রচন্ডরকম সেক্সি লাগতেছে। মনে হচ্ছে মেয়েটাকে পাইলে! উফ। এইসব ছবি ফেসবুকে দেয়ার কারনেই তো আজকাল ধর্ষণের হার বাড়তেছে। মিষ্টি ঢেকে না রাখলে মাছি তো বসবেই। ছেলেদের কি দোষ! মারিয়াকে মেসেজ দিলাম, ‘এই তুমি কি পরে আছ?’ মারিয়া রেগে গিয়ে বললো, ‘এসব কোন ধরনের কথা? সমস্যা কি আপনার?’

এখন পর্যন্ত কেউ কোনো কিছু আঁচ করতে পারে নি। কারণ আমি কোন রিস্ক নিই না।

আবার পর্নে গেলাম, ডেলিভারি বয় লুকিয়ে গোসল দেখতে গিয়ে নায়িকার হাতে ধরা পড়ে গেছে। নায়িকা তাকে কঠিন শাস্তি দেয়ার জন্য চেয়ারে বসিয়ে হাতলের সাথে দুই হাত বেঁধে ফেলেছে। ডেলিভারি বয় এতে অবশ্য ভয় না পেয়ে মুচকি হাসছে। নায়িকার শরীরে এখনো কিছুই নেই। 

মেসেঞ্জারে গিয়ে মারিয়াকে: তোমার সাইজ কত। ব্রা পর? কি রঙের ব্রা পরেছ আজ? একটা ব্রা পরা ছবি দিবা প্লিজ?

মারিয়া: হাউ ডেয়ার ইউ। আপনার সাহস তো কম না। স্ট্যাটাস পড়ে আপনাকে আমি ভালো ভেবেছিলাম। ছি!

নিউজফিডের মেয়েটা আমার মাথা খারাপ করে দিচ্ছে। ড্রেসটা অনেক টাইট। ফেটে যাবে যেন। কি অশ্লীল ছবি দেয় ফেসবুকে। মেয়েদের ফেসবুকে ছবি দেয়াই ঠিক না। মেয়েরা ফেসবুকই বা চালাবে কেন। তারা ঘর সংসার করবে। খারাপ মেয়ে নিশ্চিত। বয়ফ্রেন্ড আর জাস্ট্রফ্রেন্ড সবাইরেই খাওয়ায়। ভদ্রঘরের প্রস্টিটিউট যাকে বলে।

পর্নে নায়িকা শাস্তি দেয়ার বদলে নিগ্রো ডেলিভারি বয়কে চুমু খাওয়া শুরু করেছে। ডেলিভারি বয়ের হাত নায়িকার শরীরের স্পর্শকাতর জায়গায়। মারিয়াকে বললাম, ‘প্লিজ সেন্ড নুডস। আমরা আমরাই তো।’ মারিয়া সিন করে রেখে দিয়েছে। নো রিপ্লাই।

কিন্তু এখন পর্যন্ত কেউ কিসসু টের পায় নি, কারণ আমি কোন রিস্ক নিই না।

পর্নে সব ধরণের ঢং আর নাটক শেষ হয়ে আসল কাজ শুরু হয়ে গেছে। মেয়েটার উচ্চ চিৎকারে আমার হেডফোন গমগম করে বাজছে।

নিউজফিডের চরিত্রহীন মেয়েটাকে একটু শিক্ষা দেয়া দরকার। আজকের ইয়াং জেনারেশন নষ্ট হওয়ার জন্য সালমান মুক্তাদিরের সাথে সাথে এইসব মেয়েরাও দায়ী। পাশ্চাত্য সংস্কৃতি ফলো করে অর্ধউলঙ্গ ছবি দিচ্ছে ফেসবুকে। নিয়মিত হোটেলেও যায় আমি শিওর।

মারিয়াকে বললাম, ‘দেখ তুমিও এডাল্ট আমিও এডাল্ট। এখন অনেক রাত। দুজনেরই শারীরিক চাহিদা আছে। চলো একটু মজা করি। ফোন সেক্স করবা?’ মারিয়া রাগের ইমো দিয়ে রিপ্লাই দিল, ‘তুই একটা সাইকো। তুই একটা পার্ভার্ট। তোর ঘরে মা বোন নেই নাকি? ফেসবুকে মেয়ে দেখলেই নষ্টামো করতে ইচ্ছা করে রে কুত্তার বাচ্চা? 

কিন্তু এখনো কেউ কিছু টের পায় নি। কারণ আমি কোন রিস্ক নিই না।

পর্নে এখন যেটা চলতেছে এটারে কাউবয় পজিশন বলে। মেয়েটার সবকিছু ধবধবে সাদা আর ছেলেটার সব কুচকুচে কালো। সাদা আর কালো মিলে ঝড় বয়ে যাচ্ছে।

নিউজফিডের মেয়েটার ছবিতে কমেন্ট করে আসলাম, ‘খানকি মাগি হিজাব কই? তুই তো জাহান্নামে যাবি শিওর। ***** ** ***** ***।

মারিয়াকে মেসেজ দিতে গিয়ে দেখি ব্লক করে দিয়েছে। এটা আরেক মাগী। দেখা যাবে দিনের বেলায় লিটনের ফ্লাটে যায় বয়ফ্রেন্ডের সাথে। আর অনলাইনে সুশীলগীরী মারায়। 

আমি পর্নে ফিরে আসলাম। ফেসবুকে সবাই জানে আমি ধোয়া তুলসী পাতা। মেয়েদেরকে সারাদিন ধর্মের পথে আসতে বলি। কিন্তু আমি যে পর্নও দেখি সেটা কেউ কোনোদিনও টের পাবে না।

কারণ পর্ন দেখার সময় আমি কোনো রিস্ক নিই না।

*

আরও পড়ুন-

Comments

Tags

Related Articles