কীসের ভিত্তিতে আমরা অলিম্পিকে পদক আশা করি!

Ad

গুলি ছোঁড়ার সময় নার্ভটা যেন স্থির থাকে, এর জন্য কয়েক মাস জার্মানীতে ইলেকট্রিক ম্যাগনেটিং প্রযুক্তির সাহায্য নিয়েছে ভারতীয় শুটার অভিনব বিন্দ্রা। তবুও বেইজিং অলিম্পিকে স্বর্ণজয়ী এ শুটারের গলায় কোন পদক ওঠেনি রিওতে।

লিখেছেন- রাশেদুল ইসলাম

রাশেদুল ইসলাম

কত অল্পতেই অামরা শ্যামলী বা বাকীদের কাছ থেকে আশা করি!

অলিম্পিকের মতো অাসরে খেলতে পাঠানোর জন্য আমরা কি দিতে পেরেছি শ্যামলী বা বাকীকে? একটা ওয়াইল্ড কার্ড ছাড়া তো আর কিছুই না। হ্যাঁ, স্রেফ একটা ওয়াইল্ড কার্ডই শুধু!

ব্রেন ম্যাপিং, ইলেকট্রিক ম্যাগনেটিং সিস্টেমসহ নানা আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহারে অনুশীলন করানো হয় অলিম্পিয়ানদের। আমাদের অলিম্পিয়নরা কি কখনো এগুলোর নাম শুনেছে? আমি নিশ্চিত, উত্তরটা ‘না’।

গুলি ছোঁড়ার সময় নার্ভটা যেন স্থির থাকে, এর জন্য কয়েক মাস জার্মানীতে ইলেকট্রিক ম্যাগনেটিং প্রযুক্তির সাহায্য নিয়েছে ভারতীয় শুটার অভিনব বিন্দ্রা। তবুও বেইজিং অলিম্পিকের স্বর্ণজয়ী এ শুটারের গলায় কোন পদক ওঠেনি রিওতে।

একটা উদাহরণ দেই। অলিম্পিকে যেই বন্দুকটি দিয়ে শুট করেছেন বাকী, ব্রাজিলে গিয়ে সবার আগে সে বন্দুকটি অভিনব বিন্দ্রার টেকনিক্যাল কমিটির সদস্যদের দিয়েই সেট করে নিতে হয়েছে তাকে! বুঝুন তাহলে আমাদের দৌড়!

তাহলে যুদ্ধবিধ্বস্ত কসোভোর মেয়ে মালিন্দা কেলমেন্দি কিভাবে স্বর্ণ জয় করে?
বিষয়টি চমক, তবে অবিশ্বাস্য কিছু নয়। কেলমেন্দি গত লন্ডন অলিম্পিকে খেলেছিলেন আলবেনিয়ার হয়ে। সবচেয়ে বড় কথা , দুই বছর আগে থেকেই কেলমেন্দি জানেন তাকে দেশের জন্য অলিম্পিকে খেলতে হবে (পড়ুন, লড়াই করতে হবে)। আমাদের দেশের অ্যাথলেটরা অলিম্পিকে যাবার ১৫ দিন আগেও জানতে পারেন না যে তিনি অলিম্পিকে যাচ্ছেন। আমাদের দেশে একমাত্র কর্তারাই দুই বছর আগে থেকে জানেন তার/তাদের অলিম্পিক ভ্রমনে যাওয়া নিশ্চিত।

বাংলাদেশের অলিম্পিয়ানদের নিয়ে ফেসবুকে সমালোচনার ঝড় দেখছি। আচ্ছা, দর্শক হিসেবে আমরা কোথায় পাই এই দাম্বিকতা? যে দেশ থেকে খেলোয়াড়ের সঙ্গে কোচ হিসেবে অলিম্পিকে যায় ফেডারেশনের সাধারন সম্পাদকেরা, সে দেশের মানুষ হিসেবে দাম্ভিকতা আমাদের মানায় না। যে দিন আমরা বাকীকে ইলেকট্রিক ম্যাগনেটিং অনুশীলনের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিতে পারব, যে দিন আমরা ফেডারেশনের কর্তাদের লুঙ্গি ধরে নিচে টেনে নামাতে পারব; সেদিনই আমরা সমালোচকের যোগ্য হব। তার আগে নই!

1 Star2 Stars3 Stars4 Stars5 Stars (No Ratings Yet)
Loading...
Ad

এই ক্যাটাগরির অন্যান্য লেখাগুলো

আপনার গুরুত্বপূর্ণ মতামত দিন-

Ad