এই বুড়োদের তারুণ্যের কাছে মার খেয়ে যাবে যে কেউ!

তথ্যসূত্র: www.brightside.me
Ad

শীর্ষেন্দুর বিখ্যাত উপন্যাস “দুরবীন”-এর হেমকান্ত চৌধুরী জীবনে প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তির হিসেব মেলাতে যখন ব্যস্ত, তার বয়স মাত্র ৪৫! ভাবখানা এমন যেন জীবনের শেষভাগে চলে এসেছেন! যদিও ততদিনে তিনি অনেক নাতি-নাতনীর দাদা।  সত্যি বলতে বাংলাদেশ তথা এই উপমহাদেশেই বয়স ৫০ পেরুলে পুরুষেরা “আর কয়দিনই বা আছি” ভেবে হা হুতাশ শুরু করে দেয়। বুড়ো হওয়ার চিন্তা করতে করতে মনের বার্ধক্য শুরু হয়ে যায় বয়স ৩০ থেকেই। ফলে একটা গণ্ডির মাঝে আটকে যাই আমরা। বয়স ৫০ শুনলেই আমাদের চোখে ভেসে উঠে বার্ধক্যের ছাপ!

কিন্তু এই ‘ইমেজ’ ভেঙ্গেচুরে খানখান করে দিয়েছেন বয়স্ক ‘যুবক’! চলুন, তাদের একঝলক দেখে নেওয়া যাক। 

১। ফিলিপ ডুমা

ফিলিপ ডুমা একজন ফরাসী নাগরিক। ৫৯ বছর বয়সে কোনো এক সকালে তার মনে হলো, চেহারা নিয়ে কিছু এক্সপেরিমেন্ট করা যাক! যেই ভাবনা সেই কাজ। পরীক্ষামূলকভাবে দাঁড়ি বড় করতে শুরু করলেন। সবাই তার নতুন লুকের প্রশংসা করলো। তারপর সিদ্ধান্ত নিলেন মডেলিং করবেন। সেই সিদ্ধান্ত যে ভুল ছিল না, তা তো বলাই বাহুল্য!

 

২। এন্থনি ভেরেসিয়া

এন্থনির বয়স এখন ৫৩, থাকেন নিউইয়র্কে। এই বয়সে তার শরীরের গঠন, তা যে কোনো বডিবিল্ডার তরুণের মনে হিংসা ধরিয়ে দিবে। এন্থনি মুলত মডেলিং করেন এবং স্বাস্থ্যসম্মত জীবনযাপন ও ব্যায়াম প্রমোট করেন।

৩। গিয়ালুনকা ভাচ্চি

৫০ বছর বয়সী গিয়ানলুকা অন্যদের মত মডেলিং করেন না, তিনি একজন সফল ব্যবসায়ী। তিনি শুধু তার শারীরিক গঠন নন, অসাধারণ নাচের দক্ষতার জন্যও বিখ্যাত। তার এনার্জি এবং জীবনের প্রতি চমৎকার ইতিবাচক মনোভাব সকলের মন জয় করে নিয়েছে।

৪। এইডেন ব্র্যাডি

বয়স ৫০, লেখক ও অভিনেতা। কয়েক বছর আগেই নাম লিখিয়েছেন মডেলিংয়ের খাতায়। ইতিমধ্যেই ফ্যাশন জগতে নিজের পোক্ত অবস্থান তৈরি করে নিয়েছেন।

৫। এরিখ রাদারফোর্ড

৪৯ বছর বয়সী এরিখ একজন জনপ্রিয় মডেল, হলিউডের একজন ইভেন্ট অর্গানাইজার এবং একটি ম্যাগাজিনের সম্পাদক। এক হাতে এত কিছু সামাল দেন কীভাবে, কে জানে!

৬। আলেহান্দ্রো ম্যানফ্রেডিনি

ম্যানফ্রেডিনির বয়স ৪৮। তিনি একবার সিদ্ধান্ত নিলেন যে ফরেস্ট রেঞ্জারদের মতো স্টাইলে চলবেন। তারপর সেই রকম পোশাক পরা এবং লম্বা সাদা দাঁড়ি রাখা শুরু করলেন। এতেই অল্লাফতে! তার মডেলিং ক্যারিয়ারের এখন রমরমা অবস্থা।

৭। দেশু ওয়াং

সকলকে ছাড়িয়ে এই চাইনিজ মডেল দেশু ওয়াং। তার বয়স ৮০। তিনি ছিলেন (এবং আছেন) চাইনিজ সিনেমার পরিচিত মুখ। সফল অভিনয় ক্যারিয়ার চলাকালীন সিদ্ধান্ত নিলেন মডেলিংয়ে আসবেন, অংশ নিলেন ‘চাইনিজ ফ্যাশন উইক’-এ। ফলাফল, সকলে বিস্মিত ও মুগ্ধ এবং পেলেন নতুন খেতাব “The hottest grandfather of China”

৮। আরভিন হ্যান্ডেল

পেশায় স্কুলশিক্ষক, ৫৪ বছর বয়সী আরভিন, তারুণ্যের সাথে বয়সের যে কোন সম্পর্ক নেই- তার আরেক উদাহরণ। প্রতি দিন ব্যায়াম করা, সবসময় পরিপাটি পোশাক পড়া আরভিন পুরুষের অনুপ্রেরণা এবং নারীদের আকর্ষণ।

৯। রন জ্যাক ফলি

৫০ বছর বয়সী কানাডিয়ান নাগরিক জ্যাক ফলির শুধু অসাধারণ দাঁড়িসমেত ফটোজেনিক চেহারাই নেই, আছে চমৎকার একটি পরিবার, যেখানে তিনি তার সম্পূর্ণ অবসর ব্যয় করেন।

১০। শ্যান মাইকেল হেফ্লে

জীবনের হাফ-সেঞ্চুরি পার করে এসে মাইকেলের মনে হলো শরীরটার দিকে আরো মনোযোগ দেয়া দরকার। তাই তিনি নিজেকে ধীরে ধীরে পরিবর্তন করা শুরু করলেন এবং এখন ৫৪-তে এসে তিনি দুর্বার তারুণ্যের প্রতীক!

পাশ্চাত্য জগতে বলা হয় পুরুষের জীবন শুরু হয় ৪০-এর পর থেকে। “মনের বয়সই আসল” কথাটা মিথ্যে নয়। আপনি নিজেকে যদি তরুন ভাবেন, কে ঠেকায় আপনার অগ্রযাত্রা! লোকে হয়তো হাসবে, কারণ তারা যে ইতিমধ্যে বুড়ো হয়ে গেছে!

(তথ্যসূত্র: www.brightside.me)

আরও পড়ুনঃ

চমকে দেবে ২০১৬ সালের রয়টার্সের সেরা ১৫টি ছবি

আপনার কাছে কেমন লেগেছে এই ফিচারটি?
  • Fascinated
  • Happy
  • Sad
  • Angry
  • Bored
  • Afraid
1 Star2 Stars3 Stars4 Stars5 Stars (4 votes, average: 3.25 out of 5)
Loading...
Ad

এই ক্যাটাগরির অন্যান্য লেখাগুলো

Ad