লিখেছেন- Mashroof Hossain

 

উপরের ছবিটা পাকিস্তান মিলিটারি একাডেমী, কাকুলের উপর একটা ডকুমেন্টারির অংশ। টার্ম কমান্ডার ভদ্রলোক সাংবাদিক সাহেবকে বোঝাচ্ছেন এখানে কিভাবে ট্রেনিং হয়, কেমন করে কি করা হয় ইত্যাদি ইত্যাদি।

আমার চোখ কোথায় গেল বলেন তো?

লাল সবুজ পতাকাটা দেখতে পাচ্ছেন? মেজর সাহেবের ডান পাশ থেকে দ্বিতীয়!

হয়তো খুব ছেলেমানুষি এটা, তেমন কিছুই না। বিশ্বের সব দেশের একাডেমিতেই অন্য দেশের পতাকা থাকে। ইতালির কারাবিনিয়ারি ট্রেনিং স্কুল বা জাপানের ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার- সব জায়গাতেই লাল সবুজ পতাকা খুঁজে খুঁজে বের করেছি। কিন্তু এটা দেখামাত্র শরীরের সব পশম দাঁড়িয়ে গেল, বুকের ভেতর ছোটা শুরু করল পাগলা ঘোড়া।

অনুভূতিটা আসলে শব্দ দিয়ে বোঝানো যাবেনা, লেখাও অসম্ভব।

উনিশ শ একাত্তর সালে এই একাডেমি থেকে বের হওয়া পাক সেনা অফিসারেরা বাঙালির আন্দোলনকে বুটের তলায় পিষে ফেলতে চেয়েছিল, চালিয়েছিলো চরমতম নিপীড়ণ নির্যাতন।

আর আজ! আজ তাদের মিলিটারি একাডেমির অন্দরমহলে সগৌরবে দাঁড়িয়ে থাকে লাল সবুজ পতাকা।

অফিসার আর ক্যাডেটরা যতবার একাডেমিক ব্লকের সামনে দিয়ে যায়, আমার কেন জানি মনে হয় পতাকাটি তাদের দিকে তাকিয়ে নীরবে অট্টহাসি হাসে।

যেন বলে, ‘এই দ্যাখ, আমরা জিতেছি- তোরা পারিসনি আমাদের দমাতে!’

একাত্তরে মাংলার মাটিতে মুক্তিসেনার হাতে কাঁচকি মার খেয়ে লেজ গুটিয়ে পালানো পাকি জেনারেলরা যখন এই পতাকার সামনে পরে, তাদের উর্দি চড়ানো সাজগোজ করা গালের উপর সপাটে যে প্রচন্ড চড় পড়ে- সেই শব্দ কিভাবে কিভাবে যেন আমি শুনতে পাই।

জঙ্গীবাদ, দুর্নীতি, বন্যা- সমস্যার কোন কমতি নেই বাংলাদেশে।

তবুও, এক চিলতে লাল সবুজ পতাকার চিৎকার সমস্ত বাধা বিপত্তি মুছে দিতে চায়, পতাকাটির সাথে আমিও গলা মিলিয়ে বলি-

জয় বাংলা!

 

  • আরও পড়ুন

শেখ কামালকে নিয়ে যত প্রোপাগান্ডা!

# ভয় দেখালেই কি আমরা দমে যাব?

# ৮০টি ইনজেকশন, রোগীর মৃত্যু এবং ইত্তেফাকের অপসাংবাদিকতা

 

আপনার কাছে কেমন লেগেছে এই ফিচারটি?
  • Fascinated
  • Happy
  • Sad
  • Angry
  • Bored
  • Afraid

আপনার গুরুত্বপূর্ণ মতামত দিন-

এই ক্যাটাগরির অন্যান্য লেখাগুলো