সিনেমা হলের গলি

এমন কী আছে মালায়ালাম মুভির মাঝে?

চোখ ধাঁধানো রুপ নাই। গ্ল্যামারের ছড়াছড়ি সেটাও বলা যাবে না। দেখতে শ্যামলা, অনেক ক্ষেত্রে ময়লায় বলা চলে। অনেক নায়িকার মুখের উপর আবার পিম্পল। চুল চকচকে, পলিশ, সিল্কি, কালার করা নাই। আর পোশাক আশাক? সুকুমার রায়ের মত বলা যায়, 

“গরীব বেজায়—
কষ্টে–সৃষ্টে দিন চলে যায়।‘’

আমার এক ফ্রেন্ডকে এই সব বর্ণনা দেওয়ার মাঝখানে সে বলে বসলো, “কি বা*ডা আছে তাহলে ওদের?’’

কিছু মনে করবেন না। আমার ফ্রেন্ডরা এমনিই। মুখ বেশ পরিষ্কার এদের। কিন্তু প্রশ্নটা ভ্যালিড। আসলেই, কি আছে তাদের? সকল তথ্য প্রমাণাদি বিচার করে বলা যায়। একটা জিনিসই আছে তাদের।

গল্প!!! ইয়েস! গল্প।

কিশোরীর হালকা নীল মলাটের ছোট্ট নোটবুকের পাতায় পাতায় যেমন নতুন গল্প থাকে। বাসের কন্ডাক্টরের ২ টাকার ছেঁড়া নোটে, রিকশাওয়ালার ২ ফিতা চপ্পলে, টং এর দোকানে ময়লা চায়ের কাপে, ছাপোষা কেরানিটার নড়বড়ে চশমার ডাটে, নতুন কলেজে উঠা ছেলেটার চুলের স্পাইকে, ভার্সিটি যাওয়া মেয়েটার টকটকে লাল লিপস্টিকে, কোচিং এ ভাল ছাত্রটার নোট খাতার পিছনে, ইনসমনিয়ায় ভোগা লোকটার লাল চোখের পিছনে, রাত জেগে লেখা গানটার প্রতি লাইনে যেমন গল্প থাকে। ঠিক সেরকম এদের গল্প।

অন্ধকারে, আলোতে, রোদের ঝিকিমিকিতে, বৃষ্টির ফোটায়, হাসিতে, কান্নায়, নীরবতায়, চিৎকারে হাজারো গল্প ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে। তুলে নিয়ে খালি বলা বাকি, খালি লেখা বাকি..

সাদাসিধে, তকতকে, মেদহীন ঝরঝরে একটা গল্প। জয় গোস্বামী বলেছিল, “এক পৃথিবী লিখবো বলে, একটি খাতাও শেষ করিনি।’

হ্যাঁ ভাইলোক, হচ্ছিল মালায়ালাম ইন্ডাস্ট্রির কথা। এরা পুরো এক পৃথিবীর গল্প নিয়ে বসে আছে।

অনেকেই যেরকম ভাবে আমিও ভাবতাম। মালায়ালাম মানেই ঘন কালো গোঁফের সাথে বিশাল লুঙ্গি। সেই লুঙি আবার কথায় কথায় হাটুর উপর তুলে গিট মেরে দেওয়া হয়। কখন পুরো লুঙি উঠে যায় তার নাই ঠিক। আবার ভাষাগুলি হচ্ছে এন্ডা মেন্ডা থেন্ডারাম, ইল্লা বিল্লা কিল্লায় টাইপ। সেই আমি একদিন Drishyam (2013) নামের এক মুভি দেখলাম। দমবন্ধ হয়ে আরেকটু হলেই গেছিলাম! সেই থেকে একে একে মালায়ালাম মুভির শুরু। ঢুকে দেখলাম এই এক আশ্চর্য অন্য জগত।

Bangalore Days (2014) এর তিন বন্ধুর অসাধারণ এক গল্প, Ustad Hotel (2012) এর এক ছেলের স্বপ্নের কাছাকাছি যাওয়ার কথা, সত্য ঘটনা অবলম্বনে ১৯৬০ সালের প্রেম কাহিনী নিয়ে Ennu Ninte Moideen (2015), Maheshinte Prathikaaram (2016) তে এক ফটোগ্রাফারের প্রতিশোধ নেওয়ার মজার গল্প, Mumbai Police (2013) এর দুর্দান্ত মিস্ট্রি থ্রিলার, 5 Sundarikal (2013) পাঁচটি ছোট ছোট অসাধারণ গল্প। এরকম সাধারণ গল্পের মোড়কে অসাধারণ বর্ণনা নিয়ে এদের কাজ কারবার।

তবে আমাকে যদি টপ ফাইভ নির্বাচন করতে বলা হয়, সেটা হবে এমন-

৫। Aanandam (2016)- ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজে পড়া এক ঝাঁক ছেলে মেয়ের ট্যুরে যাওয়ার গল্প।

৪। Ohm Shanthi Oshaana (2014) ছেলের পেছনে এক মেয়ের এক বুক ভালোবাসা নিয়ে হন্যে হয়ে লেগে থাকার গল্প। (আমার এক বন্ধু ৮ বার দেখেছে)

৩। Premam (2015)- আসলে এটা কোন সিনেমা না। এটা একটা কবিতা। আচ্ছা বলেন দেখি, মালার মানে কি? এবার বলেন প্রেম মানে কি? প্রেম কি একবারই আসে নীরবে?

সংবিধিবদ্ধ সতর্কীকরণ: এই সিনেমার “মালারে” গানটি শুনবেন না। মারা গেলে আমার দোষ নেই।

২। Charlie (2015)- মেঘদল ব্যান্ডটার “ঘুরে ফিরে গান, তোমাকে নিয়ে যত” টাইপ। 

একদিন এক ছেলের হাতে আঁকা একটা কমিক খাতা পেল এক মেয়ে। যেটা সত্যি ঘটনার উপর নির্ভর করে আঁকা। কিন্তু সেই কমিকে পুরো গল্প শেষ হল না। মেয়েটাকে আর দর্শককে টেনশনে রেখে অর্ধেকে শেষ হয় কমিক। সেই কমিকের বাকিটা জানার জন্যে, একই সাথে ছেলেটাকে খোঁজার জন্যে বের হয়ে পড়ে মেয়েটা। শুরু হয় অসাধারণ এক গল্প। জীবনের নতুন অর্থ অভিধানে যোগ করার গল্প।

১। Drishyam (2013): জীবনে শুধু একটা মালায়াম মুভিই দেখবেন? এটা দেখেন।

মালায়ালাম ইন্ডাস্ট্রির সাথে পরিচয় আমার জীবনের অনন্য অসাধারণ ঘটনার একটি। এক অদ্ভুত মুভি ইন্ডাস্ট্রি এদের। এরা এক পৃথিবী লিখবে বলে, একটি খাতাও শেষ করেনি।

সবাইকে আমন্ত্রণ!

നന്ദി [মালায়ালাম ভাষার ধন্যবাদ] 

Comments
Tags
Show More

Related Articles

Close