মাসখানেক আগেই সেরা অভিনেতা হিসেবে ফিল্মফেয়ার পুরস্কার জিতেছিলেন ইরফান খান। কিছুদিন আগে রিলিজ পেয়েছে নতুন সিনেমা ব্ল্যাকমেইলে’র ট্রেলার, সেটাও দারুণ প্রশংসা কুড়িয়েছিল। সময়টায় একাদশে বৃহস্পতি তুঙ্গে থাকার কথা ছিল এই ‘হিন্দি মিডিয়াম’ অভিনেতার। কিন্ত তা আর হলো কই? অসুস্থতা ভর করেছে শরীরে, হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন বলেও খবর প্রকাশ করেছে বিভিন্ন গণমাধ্যম। টুইটারে নিজের অসুস্থতার কথা জানিয়েছেন ইরফান নিজেই, যদিও রোগটা কি, সেটা এখনও জানেন না বলেই দাবী করেছেন তিনি। তার অসুস্থতা নিয়ে কোন রকমের গুজব না ছড়াতেও অনুরোধ জানিয়েছেন এই অভিনেতা।

গত ৫ই মার্চ এক টুইট বার্তায় ইরফান লিখেছিলেন- “মাঝেমধ্যে জীবনে কিছু অপ্রত্যাশিত ধাক্কা যে-কাউকে সজাগ করে দেয়। গত ১৫ দিন আমি এক রহস্যের মধ্য দিয়ে যাচ্ছি। বিরল গল্পের খোঁজ করতে করতে আমি নিজেই বিরল রোগে আক্রান্ত হয়ে যাব, তা কখনো ভাবনাতেও ছিল না। তবে আমি হাল ছাড়িনি। লড়াই করে যাব। আশা করছি, এ সময় পরিবার আর বন্ধুরা আমার পাশেই থাকবেন।”

স্পষ্টভাবেই টুইটারে তার অসুস্থতা সম্পর্কে গুজব ছড়াতে নিষেধ করেছেন ইরফান, লিখেছেন- “আমার এই সমস্যা নিয়ে অহেতুক জল্পনা করবেন না। প্রয়োজনীয় সব পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর নির্দিষ্টভাবে এই রোগটির কথা সবাইকে জানাতে পারব।”

তবে ইরফান অনুরোধ করলেও, গুজব কিন্ত থেমে থাকছে না একটুও। মুম্বাইয়ের কোকিলাবেন হাসপাতালে ভর্তি হওয়া নিয়ে যে খবরটা এসেছিল, সেটা ইতিমধ্যেই ভিত্তিহীন বলে জানা গেছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে সেটা নিশ্চিত করেছে টাইমস অফ ইন্ডিয়া এবং ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস। হাসপাতালের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ইরফান তাদের ওখানে ভর্তি হননি।

ব্রেইন ক্যান্সার থেকে শুরু করে আলঝেইমার, অসংখ্য রোগে ইরফানের আক্রান্ত হবার তথ্যে মোটামুটি ভরপুর অনলাইন মিডিয়া। সেগুলো সোশ্যাল প্ল্যাটফর্মে শেয়ারও হচ্ছে দেদারসে। সস্তা প্রচারণার এই সুযোগটা ছাড়তে চাইছেন না কেউই। অথচ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলেছেন, ইরফানের ক্যান্সার হয়েছে কিনা, সেটা তো পরীক্ষার পরই জানা যাবে। পরীক্ষা-নীরিক্ষার সেই সময়টুকু অপেক্ষা করার ঝামেলাটা বোধহয় সইতে চাচ্ছে না অনেক সংবাদমাধ্যমই, আর সেকারণেই মনগড়া সব রোগের নাম তারা জুড়ে দিচ্ছে এই অভিনেতার নামের পাশে!

একটা নিউজ ওয়েবপোর্টাল খবর প্রকাশ করেছে, ইরফান নাকি ব্রেইন ক্যান্সারে আক্রান্ত। ডাক্তারি পরিভাষায় তার এই রোগটাকে নাকি গ্লিওব্লাস্টোমা মাল্টিফর্ম(জিবিএম) বলা হয়, ইরফান এই মূহুর্তে গ্রেড ফোরে অবস্থান করছেন বলা জানিয়েছে নিউজএক্স ডটকম নামের সেই ওয়েবসাইট। কিন্ত এটার সত্যতা সম্পর্কে কোন সূত্রের উল্লেখ করতে পারেনি তারা। বলিউড বিশ্লেষক কোমল নেহতা অবশ্য এই খবরটাকে পুরোপুরি ভিত্তিহীন বলেই উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেছেন,  ‘ইরফান অসুস্থ এটা ছাড়া বাকী সবকিছুই মিথ্যে। আর সে এখন মুম্বাইতেও নেই, দিল্লিতে অবস্থান করছে সে।”

আগামী মাসেই দীপিকা পাড়ুকোনের সঙ্গে বিশাল ভরদ্বাজ পরিচালিত ‘স্বপ্নাদিদি’ সিনেমার কাজ শুরু করার কথা ছিল ইরফানের। ভারতের প্রথম মহিলা গ্যাংস্টার স্বপ্না দিদিকে নিয়েই এই সিনেমার গল্প। পিকু’র পরে আবার দীপিকার সঙ্গে জুটি বাঁধছেন ইরফান। তবে ইরফানের অসুস্থতার কারণে সিনেমার কাজ পিছিয়ে দিচ্ছেন বিশাল। কয়েকমাস পিছিয়ে এবছরের মাঝামাঝি বা তারও পরে শুরু হবে স্বপ্নাদিদি’র শুটিং। ২০১৮ সালে ইরফান অভিনীত ব্ল্যাকমেইল আর কারওয়ান সিনেমা দুটি মুক্তি পাবার কথা রয়েছে।

রাজস্থানের একদম মফস্বল একটা জায়গা থেকে অভিনয় শেখার নেশায় দিল্লির ন্যাশনাল স্কুল অব ড্রামায় ছুটে গিয়েছিলেন ইরফান, সেখান থেকে মুম্বাই। তিন দশকের ক্যারিয়ারে অজস্র সিনেমায় কাজ করেছেন, ভারতের অন্যতম সেরা ভার্সেটাইল অভিনেতা হিসেবে প্রমাণ করেছেন নিজেকে। বলিউড ছাড়িয়ে হলিউডেও উড়িয়েছেন ভারতের পতাকা, কাজ করেছেন স্ল্যামডগ মিলিওনিয়ার, দ্য অ্যামাজিং স্পাইডারম্যান, জুরাসিক ওয়ার্ল্ড, লাইফ অফ পাই-এর মতো সিনেমাতে। বলিউডে তার হাসিল, মকবুল, পান সিং টোমার, দ্য লাঞ্চবক্স, পিকু, হিন্দি মিডিয়াম সিনেমাগুলো যেমন দর্শকনন্দিত হয়েছে, তেমনই সমালোচকদের মনও জয় করে নিয়েছে দারুণভাবে। বাংলাদেশের মোস্তফা সরওয়ার ফারুকীর ‘ডুব’ সিনেমাতেও প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন তিনি।

দুর্দান্ত এই অভিনেতা শীগ্রই রোগমুক্তি লাভ করবেন, কাজ করবেন দারুন সব সিনেমায়, এটাই আমাদের কামনা।

তথ্যসূত্র- ইন্ডিয়া টিভি, ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস, টাইম অফ ইন্ডিয়া

Comments
Spread the love