অদ্ভুত,বিস্ময়,অবিশ্বাস্যএরাউন্ড দ্যা ওয়ার্ল্ড

কীভাবে চিনবেন একজন সাইকোপ্যাথকে?

আপনার আমার আশেপাশেই ভদ্র চেহারার আড়ালে লুকিয়ে থাকে সাইকোপ্যাথরা। কোন একটা অপরাধ করে ধরা পড়ার আগ পর্যন্ত সাদা চোখে এদের চেনা অনেক কঠিন। মনোবিজ্ঞানীরা সাইকোপ্যাথদের কিছু বিশেষ বৈশিষ্ট্য চিহ্নিত করেছেন যা দিয়ে এদের কিছুটা শনাক্ত করা যায়। সাইকোপ্যাথরা সাধারণত তাদের কিছু গুণাবলী ব্যবহার করে, নানাভাবে মানুষকে ম্যানিপুলেট করে নিজের স্বার্থ আদায় করে নেয়।

(১)

সাইকোপ্যাথরা অনেক সময়ই আকর্ষণীয় পার্সোনালিটির অধিকারী, মিশুক ও সামাজিক হয়। বলা যায় এই গুণগুলো দেখিয়ে সে তার সম্ভাব্য শিকারকে তার প্রতি আকৃষ্ট করতে পারে। তারা বিশ্বাস অর্জনের জন্য অনেক ভালো ভালো কাজ করে।

(২)

তারা নিজেদেরকে অনেক শক্তিশালী ও বাকিদের চেয়ে স্মার্ট মনে করে থাকে।

(৩)

ধৈর্য বা শান্তশিষ্ট আচরণ করা সাইকোপ্যাথদের ধাতে সয় না। সব সময় তাদের বিনোদন আর কিছু না কিছুতে ব্যস্ত থাকা চাই।

(৪)

সাইকোপ্যাথরা খুব ভাল মিথ্যা কথা বলতে পারে। ছোট মিথ্যা, বড় মিথ্যা, নিজের সম্পর্কে বিশাল মিথ্যা গল্প বলায় তারা দক্ষ!

(৫)

সাইকোপ্যাথরা মানুষকে খুব ভাল ম্যানিপুলেট করতে পারে। তারা মানুষকে ভয় দেখিয়ে, ভালোবাসা দেখিয়ে বা ইমোশনাল ব্ল্যাকমেইল করে যেভাবেই হোক কাজ হাসিল করবেই।

(৬)

সাইকোপ্যাথরা তাদের অপরাধের ব্যাপারে কোন অপরাধবোধ অনুভব করে না। ওই অনুভূতিই তাদের মধ্যে থাকে না। তবে দরকার পড়লে তারা অপরাধবোধ বা কষ্ট পাওয়ার অভিনয় করতে পারে অন্যপক্ষকে বিভ্রান্ত করার জন্য।

(৭)

সাইকোপ্যাথদের গভীর কোন আবেগ থাকে না। তাদের আবেগ খুব ভাসা ভাসা। কাছের মানুষের মৃত্যু, এক্সিডেন্ট বা অন্য কোনো ক্ষতির ঘটনায় তাদের বিশেষ কিছু আসে যায় না।

(৮)

সাইকোপ্যাথদের অন্যের প্রতি সহানুভুতি থাকে না। অন্য কোন সাধারণ মানুষের সাথে স্বাভাবিক মানসিক সম্পর্ক গড়ে তুলতে পারে না। তারা শুধু দরকারমত অভিনয় করতে পারে।

(৯)

সাইকোপ্যাথরা অনেক সময়ই পরজীবি হয়। তারা অন্যের উপর নির্ভর করে নিজের আখের গুছিয়ে নেয়। তারা সহজেই অন্যদের জীবনে ঢুকে পরতে পারে। ক্ষমতা ও সম্পদের জন্য অন্যকে ব্যবহার করে।

(১০)

সাইকোপ্যাথদের জীবনে হয় কোন নির্দিষ্ট লক্ষ্য থাকে না। কিংবা থাকলেও সেটা অনেকটাই ফ্যান্টাসির হয়।

*

উপরিউক্ত প্রতিটি পয়েন্টই কারো না কারো সাথে মিলে যাওয়ার সমূহ সম্ভাবনা আছে। তাই বলে প্রত্যেকেই সাইকোপ্যাথ নন। বরঞ্চ উল্লেখিত দশটি পয়েন্টের মাঝে যদি প্রত্যেকটি কিংবা প্রায় প্রত্যেকটি যদি কারো সাথে মিলে যায়, সেক্ষেত্রে তার মানসিক সুস্থতা ভীষণ প্রয়োজন। সাইকোপ্যাথ মানেই অপরাধী নয়। তবে এদের মধ্যে অপরাধ প্রবণতা বেশি থাকে। আবার সব মানসিক সমস্যাধারী ব্যক্তিই সাইকোপ্যাথ নয়। আমাদের চারপাশে এই ধরণের মানসিক অসুস্থতা নিয়ে অনেকেই ঘুরে বেড়াচ্ছেন৷ তাদের মধ্যে আপনি বা আপনার প্রিয় মানুষটি নেই তো?

তথ্যসূত্র- www.wikihow.com/Identify-a-Psychopath

Comments
Tags
Show More

Related Articles

Close