ক’দিন আগেই অনিল কাপুর কন্যা এবং বলিউড ডিভা সোনম কাপুরের বিয়ে হয়ে গেল মহা ধুমধাম করে। পাত্রের নাম আনন্দ আহুজা, তিন বছরেরও বেশী সময় ধরে প্রেম করার পরে চার হাত এক করেছেন দুজনে। আনন্দ আহুজা পারিবারিকভাবেই ব্যবসায়ী। ইংল্যান্ডে পড়াশোনা শেষ করার পরে বিখ্যাত ই-কমার্স সাইট অ্যামাজনে ইন্টার্ন করেছিলেন। তারপরে পারিবারিক ব্যবসায় ঢুকে গিয়েছিলেন। এর মধ্যেও নিজের আলাদা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলেছেন, বেশ বিখ্যাত হয়ে উঠেছে সেটাও।

গুগল জানাচ্ছে, আনন্দ আহুজার মোট সম্পত্তির মূল্য প্রায় তিনশো কোটি রূপি। শুনে বেশ কৌতুহল হলো, একটু খোঁজ নিয়ে দেখা যাক, অন্য বলিউডি নায়িকাদের ‘ভাগ্য’ কেমন? কেঁচো খুঁড়তে গিয়ে যেন সাপ বেরিয়ে এলো! বলিউডের অন্য অনেক নায়িকার স্বামীদের তুলনায় আনন্দ আহুজাকে তো হতদরিদ্র‍্যই বলা চলে! চলুন, জেনে আসা যাক, হিন্দি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির নায়িকাদের কোটিপতি স্বামীদের খবর!

গায়েত্রী যোশী- নামটা অপরিচিত ঠেকতে পারে। শাহরুখ খানের স্বদেশ সিনেমাটার কথা মনে আছে? সেই সিনেমায় নায়িকার ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন তিনি। ১৯৯৯ সালে ফেমিনা মিস ইন্ডিয়া কন্টেস্টের সেরা পাঁচ প্রতিযোগীর একজন ছিলেন তিনি। সেখান থেকেই সিনেমায় আসা। এর মাঝে মডেলিং করেছেন। একটা সিনেমা দিয়েই দর্শকের মন জয় করে নিয়েছিলেন। গীতা চরিত্রে তার চাইতে আকর্ষণীয় আর কেউ হতেই পারতো না। অভিনয় দেখেও মনে হয়নি, এটা তার অভিষেক সিনেমা! পাশের বাড়ির মেয়েটা হয়ে শাহরুখ খানের মতো সুপারস্টারের পাশে থেকে পর্দায় আলো ছড়িয়ে গেলে সারাক্ষণ। ফিল্মফেয়ারে সেরা নবাগত অভিনেত্রীর পুরস্কার সেবছর বগলদাবা করেছিলেন তিনি।

বলিউড, অভিনেত্রী, কোটিপতি, রানী মূখার্জী, বিদ্যা বালান, শিল্পা শেঠি

সেটাই শেষ। এরপরে তাকে আর সিলভার স্ক্রীনে দেখা যায়নি কখনও। কেন, সেটা একটা বিশাল রহস্য। স্বদেশ মুক্তি পেয়েছিল ২০০৪ সালে। পরের বছরই সাতপাকে বাঁধা পড়েছিলেন মহারাষ্ট্রের মেয়ে গায়েত্রী। পাত্র ওবেরয় কনস্ট্রাকশনের প্রধান ব্যক্তি বিকাশ ওবেরয়। ভারতে ওবেরয় পরিবারের বিশাল নামডাক, তাদের সম্পত্তির পরিমাণও অঢেল। তাদের গ্র‍্যান্ড হায়াত হোটেল আর ওবেরয় হোটেলের সুনাম তো জগদ্বিখ্যাত। এমন পরিবারের বউ সিনেমায় কাজ করলে ব্যাপারটা হয়তো ভদ্রস্থ দেখায় না, এরকমটা ভেবেই গায়েত্রী নিজেকে সিনেমা থেকে সরিয়ে নিয়েছিলেন। গায়েত্রীর স্বামী বিকাশ ওবেরয়ের মোট সম্পত্তির মূল্যমান প্রায় ২.২ বিলিয়ন ডলার, ভারতীয় মুদ্রায় যেটা প্রায় পনেরো হাজার কোটি রূপির সমান!

##বিদ্যা বালান- একটা সময়ে তিনি ছিলেন বলিউডের এক নম্বর নায়িকা। সেই দিনগুলো অতীত হয়েছে বেশীদিন হয়নি। সেরা অভিনেত্রী হিসেবে নিজের ঝুলিতে আছে চারটা ফিল্মফেয়ার পুরস্কার। তার অভিনীত ডার্টি পিকচার সিনেমাটা তো হিন্দি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে একটা আলোড়নই সৃষ্টি করেছিল। বলিউডের সর্বকালের সবচেয়ে প্রতিভাধর অভিনেত্রীদের একজন ধরা হয় তাকে। সেই বিদ্যা বালান জীবনসঙ্গী হিসেবে বেছে নিয়েছেন প্রযোজক সিদ্ধার্থ রায় কাপুরকে। সিদ্ধার্থ আগে ওয়াল্ড ডিজনি পিকচার্স ইন্ডিয়ার ম্যানেজিং ডিরেক্টর ছিলেন, এখন নিজেরই প্রোডাকশন হাউজ আছে।

বলিউড, অভিনেত্রী, কোটিপতি, রানী মূখার্জী, বিদ্যা বালান, শিল্পা শেঠি

বিদ্যা-সিদ্ধার্থের প্রেমকাহিনীর সঙ্গে ‘অনেক সাধনার পরে আমি পেলাম তোমার মন’ গানের লাইনটা খুব ভালোভাবে মিলে যায়। বলিউড সুন্দরীর মন পেতে কম যুদ্ধ করতে হয়নি সিদ্ধার্থকে। অনেক চেষ্টার পরেই মন গলেছে বিদ্যার, বন্ধুত্ব গড়িয়েছে প্রণয়ে, আর সেই প্রণয় পরিণতি পেয়েছে ২০১২ সালে। সূত্রমতে, সিদ্ধার্থ রায় কাপুরের মোট সম্পত্তির মূল্য নাকি ৩১০০ কোটি রূপিরও বেশী। তিনি আবার প্রযোজকদের সংগঠন ‘ফিল্ম এন্ড টেলিভিশন প্রডিউসার্স গিল্ড অফ ইন্ডিয়া’র সভাপতিও।

##রানী মূখার্জী- দুই দশক আগে বাঙালী এই অভিনেত্রী বলিউডে পা রেখেছিলেন ‘রাজা কি আয়েগী বারাত’ নামের একটা সিনেমা দিয়ে। সিনেমাটা বক্স অফিসে ভালো করতে পারেনি, তবে রানীর অভিনয় মন জয় করে নিয়েছিল সমালোচকদের। সাফল্য পেতে তাই দেরী হয়নি বেশী। ‘হাম তুম’ আর ‘ব্ল্যাক’ সিনেমায় অভিনয়ের জন্যে দু’বার জিতেছিলেন ফিল্মফেয়ারে সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার। এছাড়াও সমালোচকদের রায়ে দুই বার এই পুরস্কার ঘরে তুলেছেন তিনি, সেরা পার্শ্ব অভিনেত্রী হিসেবে জিতেছেন তিনবার।

বলিউড, অভিনেত্রী, কোটিপতি, রানী মূখার্জী, বিদ্যা বালান, শিল্পা শেঠি

ব্যক্তিগত জীবনে গাঁটছাড়া বেঁধেছেন যশরাজ ফিল্মজের বর্তমান কর্ণধার আদিত্য চোপড়ার সঙ্গে। বিখ্যাত প্রযোজক-পরিচালক যশ চোপড়ার বড় ছেলে আদিত্য চোপড়া নিজেও সিনেমা পরিচালনা করেন, যুক্ত আছেন পরিচালনার সঙ্গেও। এছাড়া মুম্বাইয়ের মিডিয়া টাইকুনদের মধ্যে অন্যতম তিনি। তার মোট সম্পত্তির মূল্য প্রায় এক বিলিয়ন ডলার বা সাড়ে ছয় হাজার কোটি রূপিরও বেশী।

##শিল্পা শেঠি- নায়িকা হিসেবে ক্যারিয়ার যখন পড়তির দিকে, তখনই পাঞ্জাবী ব্যাবসায়ী রাজ কুন্দ্রাকে বিয়ে করে সংসার পেতেছিলেন শিল্পা শেঠি। তবে মিডিয়ার সঙ্গে সম্পর্কচ্ছেদ হয়নি তাতে। নিয়মিত টিভি পর্দায় রিয়েলিটি শো’য়ের বিচারক হিসেবে দেখা যায় তাকে, সিনেমার আইটেম গানেও তার দেখা মিলেছে কয়েকবার। আর অ্যাওয়ার্ড ফাংশানগুলোতে স্বামীর বাহুলগ্না হয়ে তার উপস্থিতি তো বাধ্যতামূলক!

বলিউড, অভিনেত্রী, কোটিপতি, রানী মূখার্জী, বিদ্যা বালান, শিল্পা শেঠি

রাজ কুন্দ্রার রিয়েল এস্টেট আর স্টিলের ব্যবসা ভারতের আটটা রাজ্যে ছড়ানো। শেয়ার বাজারে বড় ধরনের ইনভেস্টমেন্ট করেছেন তিনি, আর আইপিএলের দল রাজস্থান রয়্যালস তো আছেই। সব মিলিয়ে তার সম্পত্তির পরিমাণ প্রায় চারশো মিলিয়ন ডলার, ভারতীয় মুদ্রায় যেটা প্রায় ৩০০০ কোটি রূপি! প্রতিবছর এসব ব্যাবসা থেকে তার আয় হয় কমপক্ষে আশি মিলিয়ন ডলার বা পাঁচশো কোটি রূপি! ও হ্যাঁ, রাজ কুন্দ্রা কিন্ত কলেজ ড্রপআউট ছিলেন। কলেজ বা ভার্সিটির ড্রপআউটরা শুধু ফেসবুক-মাইক্রোসফটই প্রতিষ্ঠা করে না, তারা শিল্পা শেঠির মতো সুন্দরী বউও পায়!

##জুহি চাওলা- ‘কেয়ামত সে কেয়ামত তক’ সিনেমা দিয়েই দর্শকের মনে জায়গা তৈরি করে নিয়েছিলেন জুহি চাওলা। আশির দশকের শেষ সময়টা থেকে নব্বইয়ের দশকের অনেকটা সময় শ্রীদেবী আর মাধুরীর সঙ্গে পর্দা কাঁপিয়েছেন এই অভিনেত্রী। ১৯৯৫ সালে ক্যারিয়ারের উড়ন্ত সময়ে হুট করেই বিয়ে করলেন ব্যবসায়ী জয় মেহতাকে। পরে যিনি প্রতিষ্ঠা করেছেন মেহতা গ্রুপ। ভারতের অন্যতম বিজনেস টাইকুন তিনি। মেহতা গ্রুপের হরেক রকমের কারখানা আর অফিসে পঁচিশ হাজারের বেশী কর্মী কাজ করে। জয় মেহতার সম্পত্তির মূল্যমান প্রায় ২৫০০ কোটি রূপি।

##অসিন- তার ক্যারিয়ার শুরু হয়েছিল দক্ষিণী সিনেমায় অভিনয় করে। আমির খানের সঙ্গে ‘গজিনি’ দিয়ে বলিউডে অভিষেক। তারপর রেডি, বোল বচ্চন, হাউজফুল-২ এর মতো সুপারহিট সব সিনেমায় অভিনয় করেছেন অসিন। ২০১৬ সালের জানুয়ারীতে বিয়ে করেছেন মাইক্রোম্যাক্স ইন্ডিয়ার প্রতিষ্ঠাতা এবং কর্ণধার রাহুল শর্মাকে। অভিনেতা অক্ষয় কুমার ঘটক ছিলেন এই বিয়ের, বর-কণে দুজনের পরিচয় যে হয়েছিল তার মাধ্যমেই!

বলিউড, অভিনেত্রী, কোটিপতি, রানী মূখার্জী, বিদ্যা বালান, শিল্পা শেঠি

মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এর ছাত্র রাহুল হার্ভার্ড থেকে ম্যানেজমেন্টে ডিগ্রি নিয়ে দেশে ফিরেছিলেন। চাকুরী নয়, স্বাধীন কিছু করবেন, এরকমটাই ঠিক করে রেখেছিলেন তিনি। সেই স্বপ্ন থেকেই প্রতিষ্ঠা করেছিলেন মাইক্রোম্যাক্স। স্বপ্ন দেখাটা বৃথা যায়নি। প্রযুক্তি খাতে ভারতের সেরা প্রতিষ্ঠানগুলোর একটি এখন মাইক্রোম্যাক্স। সীমিত আয়ের মানুষজনের হাতে মোবাইল পৌঁছে দিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে এই প্রতিষ্ঠান। ২০১৬ সালে সেরা উদ্যোক্তার পুরস্কার পেয়েছেন রাহুল। তার মোট সম্পত্তির পরিমাণ প্রায় ৭০০ কোটি রূপি।

##আয়েশা টাকিয়া- ‘টারজান: দ্য ওয়ান্ডার কার’ নামের একটা সিনেমা দিয়ে তিনি পা রেখেছিলেন বলিউডে, জিতেছিলেন ফিল্মফেয়ারে সেরা নবাগত অভিনেত্রীর পুরস্কার। পরের বছর ইমতিয়াজ আলীর পরিচালনায় ‘সোচা না থা’ সিনেমায় অভিনয় করে কুড়িয়েছিলেন প্রশংসাও। সালমান খানের সঙ্গে ‘ওয়ান্টেড’ সিনেমায় অভিনয় করেছিলেন আয়েশা টাকিয়া, যে সিনেমাটা দিয়ে বক্স অফিসে নিজের সুসময় ফিরে পেয়েছেন বলিউডের ভাইজান। তাকে তাই সালমানের লাকী চার্ম বলাই যায়। তারপরে ধীরে ধীরে হারিয়ে গেলেন চিত্রপট থেকে। এর মধ্যে হোটেল ব্যবসায়ী ফারহান আজমীকে ভালোবেসে বিয়ে করেছেন, মা’ও হয়েছেন। ফারহান আজমীর মোট সম্পত্তির মূল্য প্রায় সত্তর কোটি রূপিরও বেশী।

বলিউড, অভিনেত্রী, কোটিপতি, রানী মূখার্জী, বিদ্যা বালান, শিল্পা শেঠি

তবে আয়েশা টাকিয়া দারুণ প্রশংসা পাবার মতো একটা কাজ করেছেন কয়েক বছর আগে। আয়েশার শ্বশুর আবু আজমী মহারাষ্ট্রের সমাজবাদী পার্টির নেতা। ২০১৪ সালে একটা ধর্ষণের ঘটনায় কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেছিলেন- “ধর্ষকদের পাশাপাশি ধর্ষন ঘটার জন্যে ধর্ষিতাদেও শাস্তির আওতায় আনা উচিত।” তার এই বক্তব্য নিয়ে তুমুল সমালোচনা হয়েছিল। সেই সমালোচনায় যোগ দিয়েছিলেন তার পুত্রবধু আয়েশা টাকিয়া স্বয়ং। সাংবাদিকদের সামনে আয়েশা বলেছিলেন, এমন মানুষ নিজের শ্বশুর, এটা ভাবতেও তার খারাপ লাগে।

##আনুশকা শর্মা- কিছুদিন আগে ইতালীতে জাকজমকপূর্ণ একটা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিরাট কোহলির সঙ্গে মালাবদল করেছেন আনুশকা শর্মা। দুজনের সম্পর্কের কথা জানতো পুরো ভারত। বিরাট সবসময়ই নিজের জীবনে আনুশকার প্রভাব আর গুরুত্বের কথা বলে এসেছেন বিভিন্ন সময়ে। ভারতের বিদেশ সফরে কিংবা আইপিএলে ব্যাঙ্গালোরের ম্যাচের সময় গ্যালারিতে দেখা মিলেছে আনুশকার। আবার বিদেশে আনুশকার শুটিং চলার সময়টায় কাজ না থাকলে ছুটে গেছেন বিরাটও।

বলিউড, অভিনেত্রী, কোটিপতি, রানী মূখার্জী, বিদ্যা বালান, শিল্পা শেঠি

বোর্ডের বেতন, আইপিএলের আয় আর স্পন্সর কোম্পানীগুলো থেকে প্রাপ্ত টাকা মিলিয়ে বিরাট কোহলির আয়টা মোটেও মন্দ কিছু নয়। ভারতীয় ক্রিকেটারদের মধ্যে এই মূহুর্তে সবচেয়ে বেশী পণ্যের ব্র‍্যান্ড অ্যাম্বাসডার তিনি। পুরো ভারতেই এরচেয়ে বেশী পণ্য বা কোম্পানীর প্রচারদূরত হিসেবে আছেন একমাত্র বলিউড বাদশা শাহরুখ খান। সব মিলিয়ে বিরাটের মোট সম্পত্তির পরিমাণ চারশো কোটির আশেপাশে।

এরা ছাড়াও বলিউডের অনেক নায়িকার স্বামীই বিলিওনিয়ার। অমৃতা অরোরা, সেলিনা জেটলি বা এষা দেওলের নামগুলো আছে সেই তালিকায়। কোটিপতিরা স্ত্রী হিসেবে বলিউডি নায়িকাদের পছন্দ করেন, নাকি নায়িকারাই স্বামী হিসেবে কোটিপতি পুরুষদের পছন্দের তালিকায় রাখেন, এটা নিয়ে একটা চমৎকার গবেষণা হতে পারে কিন্ত!

তথ্যসূত্র- মিড ডে ডটকম, বলিউড লাইফ

Comments
Spread the love