বাঙালি মাত্রই ফুটবলের অন্ধভক্ত। ফুটবল নিয়ে আমাদের আবেগটা যেন একেবারে আকাশছোঁয়া। সেই আবেগের প্রমাণ মহানায়ক উত্তম কুমার অভিনীত “ধন্যি মেয়ে” ছবিটি। সময় করে একবার দেখেই ফেলুন দারুণ মজার এই বাংলা ছবি। গুনগুন করে হয়তো বেখেয়ালেই গেয়ে উঠবেন- ‘সব খেলার সেরা বাঙ্গালীর তুমি ফুটবল…’

*

বিশ্বের সবচাইতে জনপ্রিয় খেলা ফুটবল। আনুমানিক ৪৭৬ খ্রিষ্টপূর্বে চীনে এর প্রচলন হয়। ফিফার সদস্য সংখ্যা জাতিসংঘের চাইতেও বেশি! টেলিভিশনে ১০০ কোটিরও বেশি দর্শক ফুটবল বিশ্বকাপ উপভোগ করে। টেলিভিশনে সর্বপ্রথম সম্প্রচারিত হয় ইংলিশ জায়ান্ট আর্সেনালের খেলা। ১৯৩৭ সালের সেই ম্যাচটি ছিল আর্সেনাল ‘এ’ ও ‘বি’ দলের মধ্যকার একটি প্রীতি ম্যাচ। 

*

ফুটবলের দ্রুততম গোলের রেকর্ড রিকার্ডো অলিভেরার। মাত্র ২.৮ সেকেন্ডেই গোল করে তিনি এই রেকর্ড করেন। এরচেয়েও কম সময়ে গোল আর আছে কিনা জানা নেই, তবে লাল কার্ড পাওয়ার রেকর্ড আছে লি টডের! বাজে মন্তব্যের কারনে খেলা শুরুর দুই সেকেন্ডেই রেফারি লাল কার্ড দেখান তাকে।

*

শুধু ফুটবল নয়, ক্রিকেটও কিন্তু লাল কার্ড দেখেছে! প্রথম টি-টুয়েন্টি ম্যাচে গ্লেন ম্যাকগ্রা নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ট্রেভর চ্যাপেলের বিখ্যাত (!) আন্ডার আর্ম বোলিংয়ের পুনরাবৃত্তি করতে চাইলে আম্পায়ার তাকে লাল কার্ড দেখান! ও আচ্ছা, কে সেই দুঃসাহসিক আম্পায়ার? বিলি বাউডেন ছাড়া আর কে হতে পারে বলুন!

*

সর্বকালের সেরা ওয়ানডে ব্যাটসম্যান স্যার ভিভ রিচার্ডস একমাত্র ক্রীড়াবিদ যিনি ক্রিকেট ও ফুটবল দুই বিশ্বকাপেই খেলেছেন। ১৯৭৪ সালের ফুটবল বিশ্বকাপ কোয়ালিফাইংয়ে তিনি এন্টিগার পক্ষে খেলেন। আরেক বিখ্যাত ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান স্টিভ বাকনার ক্রিকেটের আম্পায়ারিং শুরুর আগে ফুটবলের রেফারি ছিলেন!

*

একজন ফুটবলার প্রতি ম্যাচে গড়ে ৯.৬৫ কিলোমিটার দৌড়ান!

*

সম্পূর্ণ বিপরীতমুখী দুই রেকর্ডের মালিক এলান শিয়েরার। প্রিমিয়ার লিগে সর্বোচ্চ ১১টি পেনাল্টি মিস করেছেন তিনি। উল্টো দিকে সর্বোচ্চ ৫৬ টি গোলের রেকর্ডও কিন্তু তারই দখলে!

 

*

রেফারির সিদ্ধান্ত পছন্দ না হলে ফুটবলাররা কত কিছুই না করে, তাই বলে আত্মঘাতী গোল! মাদাগাস্কারের এক ফুটবল দল আগের ম্যাচে রেফারির সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে নিজেদের জালে গোল উৎসবে মেতে উঠে। নির্ধারিত সময় শেষে স্কোরলাইন ১৪৯-০!

*

ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার রোনালদিনহো মাত্র ১৩ বছর বয়সেই সবার নজর কাড়েন যখন তার দল ২৩-০ গোলে প্রতিপক্ষকে বিধ্বস্ত করে। সেই ম্যাচে রোনালদিনহো কত গোল করেছিলেন, জানেন? মাত্র ২৩ গোল!

*

গোলের খেলা ফুটবলে গোল উদযাপন ও কম আকর্ষণীয় নয়! তবে বিপদটা হচ্ছে উদযাপনের বাড়াবাড়ি। একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে, প্রতি ২০টি ফুটবল ইনজুরির একটি হয় গোল উদযাপন করতে যেয়ে।

 

আরও পড়ুনঃ

ব্রাজিল বনাম আর্জেন্টিনা মহারণের ইতিকথা…

ম্যারাডোনা ও সাকিবের গল্প!

এই মাশরাফি ‘ক্যাপ্টেন কোটায়’ খেলে না…

আপনার কাছে কেমন লেগেছে এই ফিচারটি?
  • Fascinated
  • Happy
  • Sad
  • Angry
  • Bored
  • Afraid

আপনার গুরুত্বপূর্ণ মতামত দিন-

এই ক্যাটাগরির অন্যান্য লেখাগুলো