চার বছর আগে এই ডিসেম্বরের বিকেলেই যখন ব্যাট হাতে নাগপুরের পিচে গার্ড নিয়ে দাড়ালেন… কে-ই বা ভাবতে পেরেছিল লাজুক হাসির স্বর্ণকেশী এই ছেলেটা একবিংশ শতাব্দীর পরবর্তী দশকের ব্যাটিং যুবরাজদের একজন??

একবিংশ শতকের ইংলিশ সমর্থকদের আজন্ম লালিত স্বপ্নটা ছিল একজন বিশ্বমানের ব্যাটসম্যানের! একজন ভবিষ্যৎ সর্বকাল সেরাদের ছোট্ট লিস্টে ঢুকতে পারার যোগ্য ব্যাটসম্যান! নিদেন পক্ষে একজন জেনুইন ম্যাচ উইনার, গেইম চেঞ্জার ব্যাটসম্যানের!  হবস, হাটন, হ্যামন্ড রা দাদার আমলে যা করে গিয়েছিলেন, গাওয়ার, গুচ, আথারটন রা বাবার আমলে যা ধরে রাখতে চেষ্টা করেছিলেন। একবিংশ শতাব্দীতে এসে সেই মানের কিংবদন্তীতুল্য কাউকে আর খুজেই পাওয়া যাচ্ছিল না!! আশার আলো জ্বালানো হয়েছিল মাইকেল ভন, মারকাস ট্রেসকোথিক, কেভিন পিটারসেন দের নিয়ে… স্বপ্ন দেখা হয়েছিল জনাথন ট্রট, ইয়ান বেল, এলিস্টার কুকদের নিয়েও… পুরন করতে পারেননি তারা কেউই! ভন, কুক, ট্রট দের দিয়ে টেস্ট হয়েছে, ওয়ানডে হয়নি! পিটারসেন, ট্রেসকোথিক, বেল রা অকালে ঝড়ে গেছেন… চিরকালীন প্রথাগত ক্রিকেট খেলা কুলীন ইংল্যান্ড সাফল্যের জন্য “বাক্সের বাইরে চিন্তা করতে পারে” এমন একজন ব্যাটসম্যানের জন্য হা হুতাশ করেছে এই শতাব্দীর প্রথম ১০ বছর!

কিন্তু ধারাটা বদলে দিতে এলেন জোসেফ এডওয়ারড “জো” রুট! ইংল্যান্ডের কুলীন ক্রিকেটের পালে যিনি লাগালেন অদম্য তারুন্যের সুশীতল বাতাস! আর এমনই হাওয়া লাগালেন, ইংলিশদের প্রথাগত, একঘেয়ে ধুসরবরন ক্রিকেট খেলার ধারাই অনেকাংশ পাল্টে গেলো! সাকুল্যে চার বছরের ক্যারিয়ারেই ইয়র্কশায়ারি এই তরুণ যেভাবে ইংল্যান্ডের ক্রিকেট খেলার ধারা পাল্টে দিয়েছেন, তাঁকে ইংল্যান্ডের নবযুগ সুচনার বরপুত্র বলাই যায়!

তবে শুধু ইংল্যান্ড ই নন, জো রুট ইংল্যান্ডের গন্ডি ছাড়িয়েছেন বহু আগেই!! তর্কযোগ্যভাবে তিনি বর্তমান ক্রিকেটের সেরা তরুণ ব্যাটসম্যান, তর্কযোগ্যভাবে তিনি বর্তমান ক্রিকেটেরই সেরা ব্যাটসম্যান!!!বিগত দুই দশকে এক কেভিন পিটারসেন ছাড়া তিন ফরম্যাটেই এতোটা প্রভাব বিস্তারকারী ব্যাটসম্যান ইংল্যান্ড দলে দেখা যায়নি! টেকনিক্যালি সলিড, চমৎকার ফুটওয়ার্ক এবং টেম্পারমেন্ট, ধারাবাহিকভাবে রান করে যাওয়া ম্যাচের মোড় পাল্টে দেওয়া সব ইনিংস এবং একজন ইংলিশ ব্যাটসম্যানের জন্য সবচেয়ে যেটা গুরুত্বপূর্ণ, সমান ভাবে ভালো খেলেন উপমহাদেশের মাটিতেও!
 
কেভিন ঝড়ে গেছেন অকালে, কিন্তু এখন নতুন প্রজন্মের ইংল্যান্ড সমর্থকেরা একজন ব্যাটসম্যান কে নিয়ে সত্যিকারের গর্ব করতে পারেন, বাজি ধরতে পারেন! ভবিষ্যৎ ইংল্যান্ড অধিনায়ক তো তাঁকে ভাবা শুরু হয়ে গেছে এর মাঝেই, সর্বকাল অবিসংবাদিত সেরাদের তালিকাতেও তাঁকে কল্পনা করা শুরু করেছেন অনেক বিশেষজ্ঞই! এমনকি বর্তমান যুগের ব্যাটিং গ্রেটদের কথা আসলেও যে চার যুবরাজ বা বিগ ফোরের কথা সবার আগে মুখে আসে… সেই কোহলী, স্মিথ, উইলিয়ামসনদের সাথে সমস্বরে জো রুটের নামও উচ্চারিত হয়! বরং টেকনিক টেম্পারমেন্ট ও সব ফরম্যাট এবং সব কন্ডিশনে ভালো খেলার সামর্থ্যের কারনে অনেকে তো তাঁকে এই চারজনের মাঝেও মারজিনালি সবচেয়ে এগিয়ে রাখেন!  

প্রথা কৌলীন্যের পুজারী নাকউঁচু ইংলিশরা এতদিন পরে এই যে ভয়ডরহীন আগ্রাসী ক্রিকেট খেলছে, যে নতুন যুগের স্বপ্ন দেখছে… তার অগ্রভাগের নেতৃত্বর ঝান্ডা বহন করছেন জো রুট!!

শুভ জন্মদিন রুট!

এক নজরে রুটের ক্যারিয়ারগ্রাফঃ

টেস্টঃ
ম্যাচ          ইনিংস         রান         গড়        সর্বোচ্চ        স্ট্রাইকরেট         ১০০     ৫০
৫৩            ৯৮            ৪৫৯৪       ৫২.৮০     ২৫৪           ৫৫.০০             ১১      ২৭

ওয়ানডেঃ
ম্যাচ          ইনিংস         রান         গড়        সর্বোচ্চ        স্ট্রাইকরেট         ১০০     ৫০
৭৮            ৭৩           ৩০১৭      ৪৫.৭১        ১২৫           ৮৫.১১             ৮       ১৭

টী২০:
ম্যাচ          ইনিংস         রান         গড়        সর্বোচ্চ        স্ট্রাইকরেট         ১০০     ৫০
২১              ১৯           ৬০০          ৩৭.৫০      ৯০*           ১৩৭.২৯          ০         ৪

Do you like this post?
  • Fascinated
  • Happy
  • Sad
  • Angry
  • Bored
  • Afraid

আপনার গুরুত্বপূর্ণ মতামত দিন-