কবে বুঝবে মাথামোটারা?

Ad

১.

ফিনল্যান্ড আমাকে প্রথম মুগ্ধ করেছিল নোকিয়া ১১০০ দিয়ে, দ্বিতীয়বার তাদের এডুকেশন সিস্টেম দিয়ে।

ফিনল্যান্ডের শিক্ষাব্যবস্থাকে ইউরোপের অন্যতম সেরা ধরা হয়। অথচ অন্য দেশগুলোর তুলনায় তাদের পরীক্ষা কিংবা হোমওয়ার্ক দেওয়া হয় না বললেই চলে।

পড়াশোনার প্রথম ছয় বছরে শিশুদের বলা হয়, ‘তোমরা যা মন চায় পড়। তোমাদের কোনো যাচাই বাছাই করা হবে না।’ তাদের ক্লাসে রোল নাম্বার দিয়ে শ্রেণীবিভাগ নেই, দুর্বল-সবল সবাইকে একই ক্লাসে পড়ে। ১৬ বছর পর একটা মাত্র সেন্ট্রাল এক্সাম। সায়েন্স ক্লাসে ১৫ জনের বেশি স্টুডেন্ট নেয়া হয় না,যাতে প্রায় সবাই ক্লাসে এক্সপেরিমেন্ট করার সুযোগ পায়। এতো ফ্রিডমের পরেও তাদের গ্র্যাজুয়েট সংখ্যা আমেরিকার চেয়ে সতেরো পারসেন্ট বেশি।

নেক্সট তারা যেটা চালু করতে যাচ্ছে, ‘ফেনোমেনোন’ ভিত্তিক স্টাডি। একটা বিপ্লব বলা যায়। ট্রেডিশনাল,গৎবাধা স্টাইল বাদ। প্র্যাকটিকাল,বাস্তব ঘটনাগুলোর আলোকে পড়ানো হবে। একটা বিশাল ফর্মুলা দিয়ে বলা হবে না মুখস্ত কর। ছাত্ররা যেন বলতে না পারে, ‘এই ফর্মুলা আমার জীবনে আদৌ কি কাজে লাগবে?’

তবে সবচেয়ে মাইন্ডব্লোয়িং ব্যাপার হলো, ছাত্র-ছাত্রীরা পারসোনালি নিজেদের কারিকুলাম বেছে নিতে পারবে। নিজেদের ইন্টারেস্ট,নিজেদের অ্যামবিশন,নিজেদের ফিউচার। কোনো সাবজেক্ট যেন বোঝা না হয়। যেন জোর করে,ভীতি নিয়ে পড়তে না হয়।

২.

আমার দেশের কথা মাথায় আসে। ছোটোবেলার কথা মনে পরে। ছয়-সাত বছরের বাচ্চাদের স্যারের বাসায় দৌড়-ঝাপ,কোচিংয়ে ছোটাছুটি,ভর্তি হওয়ার যুদ্ধ,টিকে থাকার লড়াই।

প্রতি বছর কয়টা মৃত্যুর খবর আসে? ‘অমুক জায়গায় চান্স না পেয়ে আত্মহত্যা’। কে যেন এক মাস আগে মারা গেল, ইদানীং নামটাও মনে থাকে না। 

ফ্রাস্ট্রেশন যেন আমাদের রেগুলার পড়াশোনার সাথে জড়িয়ে আছে। পড়তে পড়তে সব হতাশ। স্কুল পড়ুয়া,কলেজ পড়ুয়া,ভার্সিটি পড়ুয়া। সঅঅব। একগুচ্ছ হতাশ প্রজন্ম দিয়ে কি করব আমরা?

একদিন হয়তো বুঝবে মাথামোটারা। জোর করে হয় না এসব। সেদিন হয়তো প্রতিযোগিতা থামবে,থামবে দৌড়-ঝাপ,যুদ্ধ। সেদিনও হয়তো প্রশ্ন ফাঁস হবে, কিন্তু ওই প্রশ্নের দিকে মুচকি হেসে চলে যাবে সবাই।

আপনার কাছে কেমন লেগেছে এই ফিচারটি?
  • Fascinated
  • Happy
  • Sad
  • Angry
  • Bored
  • Afraid
1 Star2 Stars3 Stars4 Stars5 Stars (2 votes, average: 3.00 out of 5)
Loading...
Ad

এই ক্যাটাগরির অন্যান্য লেখাগুলো

Ad