সঞ্জয় দত্তের জীবনকাহিনীর উপর ভিত্তি করে রাজকুমার হিরানী পরিচালিত ও রনবীর কাপুর অভিনীত ছবি ‘সাঞ্জু’ মুক্তির এক মাস পূর্ণ হয়ে গেছে। কিন্তু এখনও বক্স অফিসে দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলেছে ছবিটি। 

গত সোমবার পর্যন্ত পাওয়া হিসাব অনুযায়ী, ‘সাঞ্জু’ আয় করেছে ৩৩৯.৭৫ কোটি রুপি। এর মাধ্যমে সালমান খানের ‘টাইগার জিন্দা হ্যায়’-কে পিছনে ফেলে এটি এখন বলিউড ইতিহাসের সর্বকালের চতুর্থ সর্বোচ্চ আয় করা ছবি। এবং খুব শীঘ্রই ছবিটি ছাপিয়ে যাবে আমির খান অভিনীত ‘পিকে’কেও (৩৪০.৮০ কোটি রুপি)। তাই এ কথা বলাই বাহুল্য যে গোটা ভারত জুড়ে বক্স অফিসে প্রলয়ংকারী ঝড় তুলেছে ছবিটি।

তবে মজার ব্যাপার হলো, সঞ্জয় দত্তের বায়োপিকের জয়রথ এখনই থামার নয়। জুলাইয়ের শুরুর দিকেই প্রখ্যাত পরিচালক রাম গোপাল ভার্মা মুম্বাই মিররকে বলেছিলেন যে, তিনি এই মুহূর্তে কাজ করছেন সঞ্জয় দত্তের আরেকটি বায়োপিকের উপর, যেখানে ৫৯ বছর বয়সী অভিনেতার জীবনের ‘আসল’ দিকগুলোকে তুলে ধরা হবে, যেগুলোকে ‘সাঞ্জু’-তে চেপে গেছেন রাজকুমার হিরানী।

এবং একদম টাটকা খবর হলো, সিনেমা হলের রূপালী পর্দার পর সঞ্জয় দত্তের বায়োপিক সম্ভবত আসতে চলেছে ইন্টারনেট দুনিয়ায়ও। একটি আন্তর্জাতিক কনটেন্ট স্ট্রিমিং সার্ভিস প্রোভাইডার পরিকল্পনা করছে সঞ্জয় দত্তের জীবনের উপর ভিত্তি করে একটি ওয়েব সিরিজ নির্মাণের। ডিএনএ ইন্ডিয়ায় প্রকাশিত সংবাদ বলছে, প্রতিষ্ঠানটি নাকি ইতিমধ্যেই তাদের প্রস্তাব নিয়ে যোগাযোগ করেছে সঞ্জয় দত্ত প্রোডাকশন্সের সাথেও।

এই ওয়েব সিরিজটি হতে পারে তিন এপিসোডের, এবং অনেকটা রাম গোপাল ভার্মার পরিকল্পনার মতই, এখানেও সঞ্জয় দত্তের বিতর্কিত জীবনের প্রকৃত দিকগুলোকে আরও বেশি বিস্তারিত আঙ্গিকে উপস্থাপন করা হবে সাধারণ দর্শকের সামনে।

সঞ্জয় দত্ত, সুনীল দত্ত, বলিউড, বোম্বে ব্লাস্ট, বেআইনী অস্ত্র, নার্গিস

“এই ওয়েব সিরিজটিতে সূক্ষ্মাতিসূক্ষ্মভাবে আলোকপাত করা হতে পারে অভিনেতার জীবনের বিভিন্ন দিকের উপর, যা প্রকৃত অর্থেই ঘটেছে তার জীবনে, এবং যেগুলোর প্রভাবে তিনি আজকের সঞ্জয় দত্ত হয়ে উঠেছেন,” এমনটিই জানিয়েছে ওয়েব সিরিজের সাথে সংস্লিষ্ট সূত্রটি.অনেকেই মনে করেন, রাজকুমার হিরানী উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে ‘সাঞ্জু’ ছবিতে সঞ্জয় দত্তের জীবনে ঘটে যাওয়া ঘটনাগুলোকে এমনভাবে প্রদর্শন করেছেন যা দেখে দর্শকমনে সহানুভূতি জাগে এবং তাদের মনে হয় যে সঞ্জয় দত্ত আগাগোড়াই নির্দোষ, নিরপরাধ একজন ব্যক্তি, আর তার সাথে যা যা খারাপ হয়েছে সেগুলোর সবেতেই তিনি স্রেফ পরিস্থিতির শিকার।

সুনীল দত্ত, নার্গিস, সঞ্জয় দত্ত

তাই সঞ্জয় দত্তের জীবন নিয়ে যেসব ধোঁয়াশা তৈরী হয়েছে, তা দূর করতে এমন একটি ওয়েব সিরিজ সত্যিই অনেক সহায়ক ভূমিকা পালন করতে পারে। বড় পর্দায় সেন্সরের ভয়ে নির্মাতারা ইচ্ছা থাকলেও অনেক সময় স্পর্শকাতর অনেক বিষয় তুলে ধরতে পারেন না। কিন্তু ইন্টারনেটে যেহেতু সেরকম কোন বাঁধাধরা নিয়ম নেই এবং নির্মাতারা সম্পূর্ণ স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারেন, তাই সঞ্জয় দত্তের মত একজন বিতর্কিত চরিত্রকে শতভাগ সততার সাথে তুলে ধরতে অনলাইন স্ট্রিমিং মিডিয়াই হতে পারে সেরা প্ল্যাটফর্ম।

সাঞ্জু, রাজকুমার হিরানী, সঞ্জয় দত্ত, মুম্বাই ব্লাস্ট, বেআইনী অস্ত্র, মাদক

কিন্তু তারপরও একটি প্রশ্ন থেকেই যায় যে, লেবু বেশি কচলালে তেতো হয়ে যাবে না তো?

সূত্র- ডিএনএ ইন্ডিয়া, এনডিটিভি, ফার্স্ট পোস্ট

Comments
Spread the love