বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কিছু দুষ্প্রাপ্য ছবি

শেখ মুজিবুর রহমান। বাঙালির ইতিহাসের শ্রেষ্ঠ মহানায়ক ও হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা জন্মেছিলেন আজ। তাঁর কিছু দুষ্প্রাপ্য ছবি প্রকাশিত হলো আজকের এই বিশেষ দিনে।  ছবি কৃতজ্ঞতা- জন্মযুদ্ধ ৭১

"বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কিছু দুষ্প্রাপ্য ছবি"

বিয়ের ৭০ বছর পর ওয়েডিং ফটোগ্রাফি!

পাশ্চাত্যের সমাজ সম্পর্কে আমাদের মনে যে ছবি গাঁথা, তাতে সে সমাজের নারী-পুরুষের সম্পর্কের ভঙ্গুর দিকটাই বেশি ফুটে উঠে। কিন্তু মাঝে মাঝে এমন কিছু যুগলের প্রেমকাহিনীর খোঁজ পাওয়া যায় যা আমাদের ধারণার বাইরে। এই যেমন মাস তিনেক আগে ৯০ বছর বয়সী ফেরিস রোমেয়ার এবং ৮৯ বছর বয়সী মার্গারেট ঘটা করে পালন করলেন তাদের ৭০তম বিবাহ বার্ষিকী! তারা প্রেমে পড়েন সেই স্কুলে থাকতে, যুবক বয়সে বিয়ে করেন, একসাথে বুড়ো হন। এই পর্যন্ত খুব একটা অসাধারণ কোন গল্প…

"বিয়ের ৭০ বছর পর ওয়েডিং ফটোগ্রাফি!"

একুশে ফেব্রুয়ারির ২১টি অসাধারণ বিজ্ঞাপন!

সাম্প্রতিক সময়ে বিজ্ঞাপন সেক্টরে অসাধারণ সব কাজ হচ্ছে। বিজ্ঞাপন এখন শুধু পণ্যপ্রচারের মাধ্যমই নয়, বিজ্ঞাপন তুলে ধরছে দেশের গৌরবময় সংগ্রামের ইতিহাসকেও। একুশে ফেব্রুয়ারিকে সামনে রেখে বিগত বছরগুলোতে দারুণ সব কাজ হয়েছে, দেখে নিন তারই এক ঝলক- মেরিল বাবা রাফি বাংলালিংক বেলিসিমো বিকাশ ক্যাটস আই কোকা কোলা গুড লাক স্টেশনারি গ্রামীণফোন হুয়াওয়ে মবিল নোয়াখালীর আঞ্চলিক বিজ্ঞাপন অগিলভি এন্ড ম্যাথার (বিজ্ঞাপনী সংস্থা) আরএফএল স্টোভ আরএফএল বালতি সীমা স্টিল সুপার ষ্টার টেলিটক ভিশন চিন্তা করুন তো, আজ যদি…

"একুশে ফেব্রুয়ারির ২১টি অসাধারণ বিজ্ঞাপন!"

চমকে দেবে ২০১৬ সালের রয়টার্সের সেরা ১৫টি ছবি

‘রয়টার্স’ কী, তা নতুন করে আর বলার কিছু নেই। বিশাল এক আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা এবং তাদের ফটোসাংবাদিকেরা গোটা বিশ্ব চষে বেড়ান। ইতিহাসের সবচেয়ে বড় কিছু মুহূর্তের স্থিরচিত্র জনসম্মুখে এসেছে তাঁদেরই কল্যাণে। দরজায় কড়া নাড়ছে ২০১৭, তাই ২০১৬-এর বিদায়ক্ষণ উদযাপন করার জন্য রয়টার্স এ বছরের হৃদয়ছোঁয়া পনেরোটি ছবি প্রকাশ করেছে। রিও অলিম্পিক থেকে শুরু করে মার্কিন যুক্তরাস্ট্রের প্রেসিডেনশিয়াল টাউনহল বিতর্ক- অসাধারণ সব ছবি ফ্রেমবন্দী করেছেন তাঁরা। স্ক্রল করে ছবিগুলো দেখুন, কিছু মুহূর্তের জন্য হলেও অনুধাবন করতে…

"চমকে দেবে ২০১৬ সালের রয়টার্সের সেরা ১৫টি ছবি"

৩০ বছর পরেও আমি তোমাকে খুঁজে ফিরছি…

ফটোগ্রাফির অন্যতম একটি মাধ্যম- স্ট্রিট ফটোগ্রাফি। স্ট্রিট ফটোগ্রাফাররা রাস্তায়,পাবলিক প্লেসগুলোতে ঘুরে ঘুরে মানুষের নানান কর্মকান্ডের ছবি তুলেন। ক্রিস পর্শও এমন একজন স্ট্রিট ফটোগ্রাফার। ৭০ এবং ৮০ এর দশকে ইংল্যান্ডের পিটারবোরো শহরে এমন অনেক ছবি তুলেছেন। তবে ক্রিস যা করেছেন, তা ভীষণ চমকপ্রদই! এসব ছবি নেয়ার বহু বছর পর তার হঠাৎ খেয়াল হলো- ত্রিশ বছর বা তারও বেশি আগে তিনি যাদের ছবি তুলেছিলেন, সেই মানুষদের ছবিগুলো আবার একই জায়গায় তুলবেন! পুরনো দৃশ্যগুলো আবার নতুন করে ফ্রেমবন্দী…

"৩০ বছর পরেও আমি তোমাকে খুঁজে ফিরছি…"

‘এই দ্যাখ, আমরা জিতেছি- তোরা পারিসনি আমাদের দমাতে’

লিখেছেন- Mashroof Hossain   উপরের ছবিটা পাকিস্তান মিলিটারি একাডেমী, কাকুলের উপর একটা ডকুমেন্টারির অংশ। টার্ম কমান্ডার ভদ্রলোক সাংবাদিক সাহেবকে বোঝাচ্ছেন এখানে কিভাবে ট্রেনিং হয়, কেমন করে কি করা হয় ইত্যাদি ইত্যাদি। আমার চোখ কোথায় গেল বলেন তো? লাল সবুজ পতাকাটা দেখতে পাচ্ছেন? মেজর সাহেবের ডান পাশ থেকে দ্বিতীয়! হয়তো খুব ছেলেমানুষি এটা, তেমন কিছুই না। বিশ্বের সব দেশের একাডেমিতেই অন্য দেশের পতাকা থাকে। ইতালির কারাবিনিয়ারি ট্রেনিং স্কুল বা জাপানের ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার- সব জায়গাতেই লাল সবুজ পতাকা…

"‘এই দ্যাখ, আমরা জিতেছি- তোরা পারিসনি আমাদের দমাতে’"