সমস্যাটা মনে হয় আমাদের মেয়েদেরই…

যখন আপনারা মুখ রেখে আমার বুকের দিকে তাকান, খুব খারাপ লাগে জানেন? খুব অস্বস্তি লাগে যখন আপনারা আমার হিপের দিকে কুৎসিত দৃষ্টিতে তাকিয়ে কুকুরের মতো জিহবা লকলক করতে থাকেন। জানেন, আপনাদের জন্য সব সময় পছন্দের জামাটা কেনা হয় না আমাদের। আচ্ছা আপনারা তো পছন্দের জামাটা যেকোনো জায়গায় যেকোনো পরিবেশে যেকোনো অবস্থাতে পরতে পারেন, তাই না? খুব উপভোগ করেন নিশ্চয়ই? আমাদের কি অপরাধ বলবেন? আমরা কেন স্লিভলেস পরলে আপনারা আমাদের হাতের দিকে তান্দুরি চিকেনের মতন তাকান?…

"সমস্যাটা মনে হয় আমাদের মেয়েদেরই…"

বনানীর দুই শিক্ষার্থী ধর্ষণ- মামলার ভবিষ্যৎ

আমি এখন একটি অংক কষবো। বরাবরই আমি অংকে কাঁচা, তাই আমার কোনো ভুল হলে ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন বলে আশা রাখছি। বনানীর দুই শিক্ষার্থীর ধর্ষণের মামলা দিনে দিনে ঘনীভূত হচ্ছে। প্রথমেই আমি এখানে কিছু ব্যাপার উল্লেখ করতে চাই যা কিনা আমি কখনো করবো বলে ভাবিনি। বনানী থানার পুলিশের কর্মকাণ্ড প্রশ্নবিদ্ধ- এ বিষয়ে আমার একটি স্ট্যাটাসে পুলিশ ‘বায়াসড’ হতে পারে না বলে স্টেটমেন্ট দিয়েছিলাম। কিন্তু আজ বলতে হচ্ছে, সমগ্র পুলিশ নয়, বনানী থানার কিছু পুলিশ অবশ্যই বায়াসড…

"বনানীর দুই শিক্ষার্থী ধর্ষণ- মামলার ভবিষ্যৎ"

কেন ধর্ষণ আজ সমাজের নিত্যনৈমিত্তিক ঘটনা?

খুব বেশি দিন আগের কথা না। কয়েক বছর পেছনে ফিরে গেলেই আমরা দেখতে পাব, টেলিভিশনে ধর্ষণের খবর প্রচার শুরু হলেই আমাদের মা-বাবারা খুবই বিব্রত বোধ করতেন, কেউ কেউ দেখেও না দেখার ভান করতেন তো কেউ আবার খুব সূক্ষ্মভাবে পাল্টে দিতেন টেলিভিশন চ্যানেল। দেশে তখন ধর্ষণের পরিমাণ কেমন ছিল তা পরিসংখ্যান ভালো বলতে পারবে। তবে এই মুহূর্তে যে পরিমাণ ধর্ষণের ঘটনা ঘটছে, তারচাইতে কম ছিল, তা বলার জন্যে পরিসংখ্যান ঘাটার প্রয়োজন একদমই নেই। একটা সময় পর্যন্ত…

"কেন ধর্ষণ আজ সমাজের নিত্যনৈমিত্তিক ঘটনা?"

আমি একজন ধর্ষিতা বলছি…

শুনুন…শুনতে পাচ্ছেন? হ্যাঁ, আপনাকেই বলছি। পড়ছেন যিনি খুব মনোযোগ দিয়ে আমার এই কথাগুলো। আপনি কখনো নিঃসীম অন্ধকার দেখেছেন? এই অন্ধকার বাতি নিভে যাবার পর হওয়া মৃদু অন্ধকার নয়, এই অন্ধকার তল খুঁজে না পাওয়া গুমোট অন্ধকার। মৃত্যুর সময় নাকি এমন অন্ধকার নেমে আসে চোখে। জেনে অবাক হবেন, সে অন্ধকারে আমার বাস এখন। অথচ আমি আলোর প্রহেলিকা ছিলাম। উজ্জ্বলতা ছিল আমার ভূষণ। আমার বাবা, ঐ যে বৃদ্ধ লোকটাকে বসে থাকতে দেখছেন ওখানে, একটু পরপর ফুঁপিয়ে কেঁদে…

"আমি একজন ধর্ষিতা বলছি…"

বনানীতে ওই জারজ ধর্ষকদের নির্মম পাশবিক অত্যাচারের বৃত্তান্ত

বনানীর ধর্ষক শাফাত পিস্তল তাক করে ছিলো প্রথম ভিকটিমের দিকে। হিস হিস করে বলে, ‘কিরে চিনস এইটা?’ সেই সাথে চলছিল ভয়ংকর রকমের গালি। বেশ্যা, মাগী আর অকথ্য সব শব্দ। নাঈম আশরাফ নামের ধর্ষকটি লাফিয়ে লাফিয়ে কিল ঘুষি চড় দিচ্ছিলো ভিকটিমদের। তাদের একটাই কথা, ওদের সাথে ‘সেক্স’ করতে হবে। তিনজন মেয়ে ছিল, আর একটি ছেলে। তারা এসেছিল শাফাতের জন্মদিনের পার্টিতে। ওদের চারজনকে বলা হয়েছিল প্রায় ১০০ জনের মতো এক জন্মদিনের পার্টি। কিন্তু এসে দেখে কেউ নেই,…

"বনানীতে ওই জারজ ধর্ষকদের নির্মম পাশবিক অত্যাচারের বৃত্তান্ত"

এই বরাহের দেশে ধর্ষকের পক্ষে থাকা মানুষগুলো!

তার লেখাটি শুরু হয়েছিল এই লাইনটি দিয়ে- যে যাহাই বলুন না কেন, আজ আমি ধর্ষকের পক্ষে। তারপর বাকি লেখায় তিনি ব্যাখ্যা করেছেন, কীভাবে আমরা ধর্ষণের জন্য দায়ী মেয়ে দুটোর পক্ষ নিয়ে নিরীহ মাসুম ধর্ষকদের অযথা হেনস্থা করছি। তার যুক্তি হচ্ছে, মেয়েগুলো তো আর কচি খুকি না। কচি খুকী হলে হয়তো তাদের ভুলিয়ে নিয়ে গিয়ে রেপ করার অপরাধে ছেলেগুলোকে একটু বকে দিতে পারতেন। কিন্তু যেহেতু মেয়েগুলো বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া এবং বন্ধুদের অনুরোধে গেছে, সুতরাং তাদের রেপ করা…

"এই বরাহের দেশে ধর্ষকের পক্ষে থাকা মানুষগুলো!"

শিক্ষা ও সমাজ সংস্কারক রবীন্দ্রনাথ এবং আদর্শ শিক্ষাব্যবস্থার মডেল

‘কাব্যরস নামক অমৃতে যে আমাদের অরুচি জন্মেছে,তার জন্য দায়ী এ যুগের স্কুল এবং তার মাস্টার। কাব্য পড়বার ও বোঝবার জিনিস, কিন্তু স্কুলমাস্টারের কাজ হচ্ছে বই পড়ানো এবং বোঝানো। লেখক এবং পাঠকের মধ্যে এখানে স্কুল মাস্টার দন্ডায়মান। এই মধ্যস্থদের কৃপায় আমাদের সঙ্গে কবির মনের মিলন দূরে যাক,চার চক্ষুর মিলনও ঘটেনা। স্কুলঘরে আমরা কাব্যের রূপ দেখতে পাই নে, শুধু তার গুণ শুনি। টীকা- ভাষ্যের প্রসাদে আমরা কাব্য সম্পর্কে সকল নিগূঢ় তত্ত্ব জানি, কিন্তু সে যে কি বস্তু…

"শিক্ষা ও সমাজ সংস্কারক রবীন্দ্রনাথ এবং আদর্শ শিক্ষাব্যবস্থার মডেল"

তবে কি আমরা নিজেদের বোন কিংবা মেয়ের ধর্ষিত হবার অপেক্ষা করছি?

ঘটনা ১- বন্ধুর জন্মদিনের পার্টিতে এসে ধর্ষণ এবং শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়েছে দুই তরুণী। ঘটনাটি ঘটেছে গত মাসের ২৮শে মার্চ, বনানীর দ্য রেইনট্রি হোটেলে। সেই ঘটনার ভিডিও ধারণ করেছিল ধর্ষকরা। এখন ওই ভিডিও প্রকাশসহ তাদের খুন ও গুম করার হুমকি দেওয়ায় এবং একই সঙ্গে সামাজিকভাবে হেয় করার জন্য নানাভাবে ধর্ষকেরা চেষ্টা চালানোয় শুরুতে মামলা করার সাহস পায়নি তরুনীদ্বয়। তারপর যখন তারা মামলা করতে গেল, তখন পুলিশ শুরুতে মামলা নিতে চায়নি, ৪৮ ঘন্টা ঘুরিয়েছে। শেষ পর্যন্ত…

"তবে কি আমরা নিজেদের বোন কিংবা মেয়ের ধর্ষিত হবার অপেক্ষা করছি?"

পরের মুখে শেখা বুলি, পাখির মতো কেন বলি?

– বাবা, বলো তো তুমি বড় হয়ে কি হবে? – বলে দাও তো সোনামনি, আমি বড় হয়ে ডাক্তার হবো। – না, না, ও ইঞ্জিনিয়ার হবে। – আচ্ছা বড় হোক তো আগে, ডাক্তার ইঞ্জিনিয়ার যেকোনো একটা হলেই হবে। এই প্রশ্ন আমাদের করা হয় জন্মের পর থেকেই। হ্যাঁ, মানে পেট থেকে বের হতে না হতেই, বাবা কেমন আছো, এতদিন পেটে কেমন ছিলে, সবার সাথে পরিচয় করানো হোক বা না হোক; সে বড় হয়ে কি হবে সেটা আগে…

"পরের মুখে শেখা বুলি, পাখির মতো কেন বলি?"

ব্যর্থদের অনুপ্রেরণা দিতে গিয়ে সফলদের হেয় করা নয়!

কোন একটা পাবলিক পরীক্ষার ফল প্রকাশ হওয়া মাত্রই কেউ কেউ নিজেকে পাউলো কোয়েলো মনে করে অনুপ্রেরণামূলক কথাবার্তা বলতে উঠেপড়ে লাগে। কিছু গৎবাঁধা বুলি আউড়াতে দেখা যায় তাদের – এইসব এসএসসি/এইচএসসির রেজাল্টের কোন মূল্য নেই, এইসব রেজাল্ট বাস্তব জীবনে কোন কাজেই আসে না, এইসব পরীক্ষায় যারা খারাপ করে- বাস্তব জীবনে তারাই প্রকৃত অর্থে সফল হয়, ইত্যাদি ইত্যাদি। আর গত কয়েক বছর ধরে তো একটা নতুন ট্রেন্ড চালু হয়েছে। জিপিএ ৫ পাওয়া ছাত্রছাত্রীদের নিয়ে ট্রল করা, তাদেরকে…

"ব্যর্থদের অনুপ্রেরণা দিতে গিয়ে সফলদের হেয় করা নয়!"

এ প্লাসই সব, না পেলে বাতিল?

আমার ডিসিশন ফাইনাল। বিয়ে করব, বাচ্চাকাচ্চা হবে, বাচ্চাকাচ্চাদের স্কুলে যাওয়ার বয়স হলে স্কুলে নিয়ে দিন কয়েক ঘুরিয়ে নিয়ে আসব, তাদের যদি স্কুল দেখে মনে হয় যে তারা স্কুলে পড়াশোনা করতে চায়, তাহলে করবে, না হলে করবে না। স্কুলে পড়াশোনা না করে তারা নিশ্চয়ই নিরক্ষর থাকবে না! তাদের পড়াশোনা করানোর মত পড়াশোনা নিশ্চয়ই আমার আর আমার বউয়ের থাকবে । হয়তো সময় থাকবে না। সময় না থাকলে সময়ের ব্যবস্থা করা হবে। বাচ্চাকাচ্চাদের ভবিষ্যৎ কি হবে? বাচ্চা কাচ্চাদের…

"এ প্লাসই সব, না পেলে বাতিল?"

একজন হালিমার আর্তনাদ এবং ১০০০ টাকায় কেনা সম্ভ্রমের গল্প

বাজারে গরুর মাংসের কেজি এখন কত জানেন? ৫০০ থেকে ৫৫০ টাকা। দু’কেজি গরুর মাংস কিনতে আপনার পকেট থেকে বেরিয়ে যাবে প্রায় ১১০০টাকা। অথচ জানেন কি, এই দেশে আজকাল একটা নারীর সম্ভ্রম রফা হয় মাত্র ১০০০ টাকায়। কি সাশ্রয়ী, তাই না? গোসিঙ্গা ইউনিয়নের কর্ণপুর সিটপাড়া গ্রামের নিঃসন্তান হজরত আলী ও হালিমা বেগমদম্পতি ৮ বছর আগে তিন মাসের শিশু আয়েশাকে লালন-পালনের দায়িত্ব নেন। পেটের সন্তানের মতোই আদর-যত্ন আর স্নেহ ভালোবাসায় বড় হচ্ছিল আয়েশা। পড়ছিল হেরাপটকা সরকারি প্রাথমিক…

"একজন হালিমার আর্তনাদ এবং ১০০০ টাকায় কেনা সম্ভ্রমের গল্প"