ইতিহাস জানতে আমাদের বড্ড অনীহা যেন! কী হয়েছে আগে, এত কিছু জেনে কী লাভ! বাঁচতে হবে তো বর্তমান নিয়েই! কিন্তু রক্তে ভেজা এই স্বাধীন বাংলাদেশ পেতে যে হারাতে হয়েছে ৩০ লক্ষ প্রাণ! ৪ লক্ষ মা-বোনের আহাজারিতে ভারী হয়েছে এই জনপদের বাতাস। কী করে ভুলি আমরা নিজেদের এই শেকড়কে? আর তাই চলছে অন্যরকম বিজ্ঞানবাক্সের উদ্যোগে পাঁচ পর্বের কুইজ আয়োজন, ‘যেভাবে পূর্ব পাকিস্তান থেকে হলো বাংলাদেশ’। কুইজের মাধ্যমেই হোক ইতিহাসের পাঠ। আজ থাকছে দ্বিতীয় পর্ব। প্রথম পর্ব এই লিংকে।

১। ১৯৭১ সালের কোন তারিখে পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে সর্বপ্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধ গড়ে তোলেন জয়দেবপুর তথা গাজীপুরের বীর জনতা?

১৯শে মার্চ ১৯৭১ পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে ছাত্র-জনতা জয়দেবপুরের রেলক্রসিং এলাকা ও চান্দনা চৌরাস্তায় সশস্ত্র প্রতিরোধ গড়ে তোলেন। পাকিস্তানীদের নির্বিচার গুলিবর্ষণে নিহত হন চারজন, আহত ও পঙ্গু হন অনেকে। এটাই ছিল মুক্তিযুদ্ধের প্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধযুদ্ধ।

২। ১৯৭১ সালের ২৫শে মার্চ দিবাগত রাতে পাকিস্তানী সেনাবাহিনী নিরীহ বাঙ্গালীদের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। হাজার হাজার মানুষকে হত্যা করা হয় এক রাতের ভেতরেই। এই অপারেশনের একটি সাংকেতিক নাম ছিল, নামটি কি?

৩। বঙ্গবন্ধুকে পয়েট অফ পলিটিক্স উপাধিতে ভূষিত করেন কে?

১৯৭১ সালের ৫ মে বিখ্যাত মার্কিন সাময়িকী নিউজ উইকস বঙ্গবন্ধুকে 'পয়েট অফ পলিটিক্স' উপাধিতে ভূষিত করে।

৪। জাতীয় পতাকা প্রথম কবে ও কোথায় উত্তোলিত হয়েছিল?

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলাভবনের সামনে বটতলায় ১৯৭১ সালের ২রা মার্চ এক ছাত্রসমাবেশে প্রথম জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন তৎকালীন ছাত্রনেতা আ স ম আবদুর রব।

৫। ফেব্রুয়ারির ১০ তারিখে পাকিস্তান সশস্ত্র বাহিনীর সিনিয়র বাঙ্গালী কর্মকর্তাদের বৈঠকে কে দম্ভোক্তি করে বলেছিল, ‘ম্যায় ইস হারামজাদে কওমকি নাসাল বাদাল দিউঙ্গা। ইয়ে মুঝে কিয়া সামাঝতি হ্যায়?’( এই হারামজাদা জাতির চেহারা আমি বদলে দেব। তারা আমাকে কী মনে করে)?

ঢাকায় সিনিয়র বাঙালি কর্মকর্তাদের উদ্দেশে ১৯৭১ সালের ১০ মার্চে দেওয়া এক বক্তব্যে বাঙ্গালী নারীদের উপর নির্বিচারে ঝাঁপিয়ে পড়ে, তাদের ধর্ষণ করবার নির্দেশ দিয়ে জেনারেল নিয়াজী বলেছিল, ম্যায় ইস হারামজাদে কওমকি নাসাল বাদাল দিউঙ্গা। ইয়ে মুঝে কিয়া সামাঝতি হ্যায়?’( এই হারামজাদা জাতির চেহারা আমি বদলে দেব। তারা আমাকে কী মনে করে?)

৬। ১৯৭১ সালের ২৫শে মার্চ দিবাগত রাতে অপারেশন সার্চলাইট শুরু হবার পর পাকিস্তানী সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে প্রথম কারা অস্ত্র হাতে রুখে দাঁড়িয়ে লড়াই করেছিলেন?

১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ রাতে হানাদার বাহিনীর হামলা প্রতিরোধ করতে গিয়ে রাজারবাগসহ রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় পুলিশের শতাধিক সদস্য শহীদ হয়েছিলেন। রাজারবাগসহ দেশের বিভিন্নস্থানে প্রায় ১৪ হাজার পুলিশ সদস্য মুক্তিযুদ্ধে অংশ গ্রহণ করেছিলেন। এদের মধ্যে শহীদ হয়েছিলেন ৭৩৯ জন পুলিশ সদস্য।

৭। ২৫শে মার্চের কালরাতে রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সে পাকিস্তানীদের হামলার পর কে সর্বপ্রথম হামলার খবর সারা দেশের পুলিশ স্টেশনগুলোতে বেতারের মাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়েছিলেন?

কনস্টেবল শাহজাহান মিয়া। রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সে পাকিস্তানীদের হামলার পর সেখানে থাকা পুলিশ সদস্যরা তাৎক্ষণিকভাবে সশস্ত্র প্রতিরোধ গড়ে তোলে। সারা দেশের পুলিশ স্টেশনগুলোতে বেতারের মাধ্যমে সেই খবর ছড়িয়ে দিয়েছিলেন তখনকার ওয়্যারলেস অপারেটর কনস্টেবল শাহজাহান মিয়া।

৮। ১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল আনুষ্ঠানিকভাবে গঠিত হয় প্রথম অস্থায়ী বাংলাদেশ সরকার। কোথায় গঠিত হয় এই সরকার?

অস্থায়ী প্রবাসী সরকার গঠিত হয় মেহেরপুরের বৈদ্যনাথতলার আম্রকাননে, যে স্থানটির নাম পরবর্তীতে রাখা হয় মুজিবনগর।

৯। বাঙ্গালী জাতির মুক্তিসনদ বা ম্যাগনাকার্টা ছিল কোনটি?

১৯৬৬ সালের ৫ ও ৬ ফেব্রুয়ারি লাহোরে অনুষ্ঠিত বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর এক সম্মেলনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান উত্থাপিত ছয় দফাকে বাঙ্গালী জাতির মুক্তিসনদ বা ম্যাগনাকার্টা হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

১০। পৃথিবীর ইতিহাসে যুদ্ধে পরাজিত হয়ে একমাত্র পাবলিক সারেন্ডারের লজ্জা পেয়েছিলো কোন দেশ, কোথায়, কবে?

থিবীর একমাত্র পাবলিক সারেন্ডারের লজ্জা পেয়েছিলো পাকিস্তান। ১৯৭১ সালের ১৬ই ডিসেম্বর তৎকালীন রেসকোর্স ময়দানে যৌথবাহিনীর কাছে পাকিস্তানী সেনাবাহিনীর আত্মসমর্পণের ঘটনা আজ পর্যন্ত পাবলিকলি আনুষ্ঠানিকভাবে আত্মসমপর্ণের একমাত্র উদাহরণ!

সার্বিক সহযোগিতায়- বিজ্ঞানমনস্ক বাংলাদেশের জন্যে অন্যরকম বিজ্ঞানবাক্স। আরো জানতে যোগাযোগ করুন- 01847103102

Comments
Spread the love