রকমারিরিডিং রুম

বিশ্বের কঠিনতম ভাষাগুলোর একটি বাংলা?

বিশ্বের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভাষাগুলোর একটি বাংলা। এ ভাষায় কথা বলে বাংলাদেশ, ভারতের পশ্চিমবঙ্গ ও পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা সর্বমোট ২৫ কোটিরও বেশি বাঙালি। এ ভাষার রয়েছে হাজার বছরের সমৃদ্ধ ইতিহাস। বিচিত্র, সুমিষ্ট, শ্রুতিমধুর — এরকম অনেক বিশ্লেষণই শোনা যায় বাংলা ভাষার নামের পাশে। তবে এবার বাংলা ভাষার পরিচয় মিলল একদম ভিন্ন এক আঙ্গিকে। পৃথিবীর কঠিনতম ভাষাসমূহের একটি নাকি বাংলা! এমন তথ্যই মিলেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ‘ফরেইন সার্ভিস ইনস্টিটিউট’ থেকে প্রকাশিত একটি গবেষণার ফলাফলে।

বিশ্বে সর্বাধিক ব্যবহৃত ৭০টি ভাষা নিয়ে কাজ করে তারা বের করেছে যে কোন ভাষা শিখতে কতটা সহজ বা কঠিন। এর মাধ্যমে তারা সহজ থেকে কঠিনের ক্রমান্বয়ে সকল ভাষার এক থেকে চারের মধ্যে র‍্যাংকিংও তৈরি করেছে, যেখানে গ্রীক, হিব্রুর মত দুর্বোধ্য সব ভাষার সাথে এক কাতারে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে বাংলা ভাষা। এবং একই অবস্থানে রয়েছে বাংলার সাথে অনেকাংশেই মিল থাকা হিন্দি ও উর্দু ভাষাও।

তবে এখানে উল্লেখ্য যে, এই সহজ বা কঠিনের হিসাব করা হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অধিবাসীদের দৃষ্টিকোণ থেকে, অর্থাৎ একজন মার্কিন নাগরিকের পৃথিবীর বিভিন্ন ভাষা শিখতে কতটা সময় লাগে। এবং এই হিসাব অনুযায়ী তাদের বাংলা, হিন্দি বা উর্দুর মত ভারতীয় উপমহাদেশের ভাষাগুলো শিখতে সময় লাগে প্রায় ৮৮ সপ্তাহ বা দেড় বছরেরও বেশি, যেখানে তারা পৃথিবীর অন্যান্য অধিকাংশ ভাষাই শিখে ফেলতে পারে মাত্র ৪৪ সপ্তাহের মধ্যেই।

এর একটি প্রধান কারণ হতে পারে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাথে ভারতীয় উপমহাদেশের সংস্কৃতি ও আচার-ব্যবহারগত দিক থেকে বিশাল ব্যবধান, যার প্রভাব পড়েছে ভাষা শিক্ষার ক্ষেত্রেও। একটি বিষয় সহজেই অনুমিত যে মার্কিনীদের বাংলা ভাষা শিখতে যে ব্যাপক সময় লেগে থাকে, এশিয়া-আফ্রিকা-ইউরোপের অধিবাসীরা তার থেকে তুলনামূলক অনেক কম সময়ই বাংলা ভাষা আয়ত্ত করে ফেলতে পারবে।

যুক্তরাষ্ট্রের ‘ফরেইন সার্ভিস ইনস্টিটিউট’ তাদের ‘সিআইএ ওয়ার্ল্ড ফ্যাক্টবুক’-এর মাধ্যমে একটি বিশ্বমানচিত্রও প্রণয়ন করেছে, যেখানে দেখানো হয়েছে যে সেদেশের ডিপ্লোম্যাটদের পৃথিবীর বিভিন্ন অঞ্চলের ভাষা শিখতে আনুমানিক কত সময় লেগে থাকে। এখানে লক্ষণীয় যে ইউরোপের ভাষাসমূহ তারা খুব কম সময়ের মধ্যেই শিখে ফেলতে পারে, কিন্তু আফ্রিকান ভাষাসমূহ শিখতে তাদের একটু বেশি বেগ পোহাতে হয়, এবং কাজটি আরও বেশি কঠিন হয়ে যায় যখন তারা এশিয়ার ভাষাসমূহ শিখতে যায়।

কাঠিন্যের ভিত্তিতে ভাষাসমূহের র‍্যাংকিং (সহজ থেকে কঠিনের ক্রমানুসারে)

১ – ড্যানিশ, ফ্রেঞ্চ, ডাচ, ইটালিয়ান, নরওয়েজিয়ান, পর্তুগিজ, রোমানিয়ান, স্প্যানিশ, সুইডিশ

২ – জার্মান, হাইতিয়ান ক্রিওল, ইন্দোনেশিয়ান, মালয়, সোয়াহিলি

৩ – আজারবাইজানিয়া, আলবেনিয়ান, আমহারিক, আর্মেনিয়ান, বাংলা, বুলগেরিয়ান, বার্মিজ, চেক, দারি, এস্তোনিয়ান, ফারসি, ফিনিশ, জর্জিয়ান, গ্রীক, গুজরাতি, হাউসা, হিব্রু, হাঙ্গেরিয়ান, আইসল্যান্ডিক, কাজাখ, খেমের, কুরদিশ, কিরগিজ, লাও, লাটভিয়ান, লিথুয়ানিয়ান, মেসিডোনিয়ান, মঙ্গোলিয়ান, নেপালি, পাশতু, পোলিশ, রাশিয়ান, সার্বো ক্রোয়েশিয়ান, সিংহলিজ, স্লোভেনিয়ান, স্লোভাক, সোমালি, তাগালোগ, তাজিকি, তামিল, তেলেগু, থাই, তিব্বতি, তুর্কি, তুর্কমেন, ইউক্রেনিয়ান, উর্দু, উজবেক, ভিয়েতনামিজ

৪ – আরবি, চীনা, জাপানি, কোরিয়ান

তথ্যসূত্র- কিউজিডডটকম

Comments
Tags
Show More

Related Articles

Close