ইউফোরিয়া | কবিতা

দেশলাই ডুবে গেছে দূর্বাঘাসে নক্ষত্র মুছে গেছে নীল আকাশে বাতাস হারিয়ে গেছে দীর্ঘশ্বাসে রক্তাক্ত কিশোর ভাসে ও তিতাসে সর্বনাশ দ্যাখা দিচ্ছে চৈত্রমাসে হিম ঘর ভরে উঠছে কাটালাশে বাঁশির বিষণ্ণধ্বনি ঠোঁটে হাসে বুক ভেঙে যাচ্ছে লাল অবিশ্বাসে নিজের ছায়াও নেই আশেপাশে আক্রান্ত শহর বৃষ্টি ও সন্ত্রাসে এমন সময়ও যদি কল আসে সংক্ষেপে জানিয়ে দিও পূর্বাভাসেঃ “তারপরও আঙুরলতা নন্দকে ভালবাসে…” (ছবি- কি জানি দেশের না জানি কে)

"ইউফোরিয়া | কবিতা"

মুনাজাত

কখনো, কখনো, ক্ষমা কোরো না ঈশ্বর তারাও একদিন যেনো কোনো নদী তীরে এভাবেই পড়ে থাকে কাদার ভিতর মরামুখে হাসি নিয়ে রক্তাক্ত শরীরে তাদের সমস্ত সঙ্ঘে আর রাষ্ট্রে যেনো দাউ দাউ করে জ্বলে অগ্নি নরকের ওরা তো পশুরও করুণাযোগ্য নয় কলঙ্ক হয়ে আছে মানব জন্মের নামহীন গোত্রহীন এই শিশু, তাকে বুকে ধরে রাখতে কষ্ট হবে কবরেরও ওকে তুমি ঠাঁই দিও স্বর্গের উদ্যানে ফোয়ারার পানি হয়ে উপচে পড়তে দিও নিষ্পাপ মৃত্যুর স্মৃতি বুকে বয়ে নিয়ে আমরা বেরোব…

"মুনাজাত"