‘আমি আমার ৫৫ বছরের জীবনে এমন তাণ্ডব দেখছি না’

গতকাল থেকে আমার মাথায় ঘুরছে ৫৫ বছরের বৃদ্ধা পূর্নিমা দাসের এই কথাটা। সোমবার দুপুরে আমি এই বৃদ্ধার বাড়িতে গিয়ে দেখি টিনের বেড়াটি কুপিয়ে ছিন্নভিন্ন করা। ঘরের ভেতর ছড়িয়ে আছে ভাঙাচোরা আসবাব, হাঁড়িপাতিল, এমনকি বহু যত্নের হারমোনিয়ামটিও। বঙ্গবন্ধুর দুটি ছবিও দলাইমলাই করা।

এসব দেখিয়ে কাঁদতে কাঁদতে বৃদ্ধা পূর্ণিমা দাস আমাকে বললেন, ‘ওরা দল বেঁধে আইছে। তছনছ কইরা দিছে। বাড়িতে রাখা আমার পুলার বউয়ের দুই ভরি স্বর্ণসহ বাড়ির সব দামি জিনিসপত্র লুট কইরা নিছে। আমার দুই বছরের নাতিটা তখন ভয়ে কাঁপতাছে। কেউ একজন তহন কইলো, এইটারে জবাই কর। আমি হেরার কাছে কাকুতি মিনতি করলাম। কেউ একজন তহন কইলো, কানের দুলটা খুইল্যা দে। আমি ভয়ে ভয়ে দিয়া দিছি। আমি গান গাইতাম। যাইবার আগে হেরা আমার হারমোনিয়ামটা ভাইঙা গুঁড়াইয়া দিয়া গেছে।

গত চারদিনে আমি শত মানষের এমন কান্না শুনে এসেছি। একটা কথা ব‌লি যে রসরা‌জের ছ‌বি‌কে কেন্দ্র ক‌রে এই ঘটনা সেই রসরাজ লেখাপড়া জা‌নে না। পেশায় সে জে‌লে। অ‌া‌মি তার সা‌থে এক ঘন্টা কথা ব‌লে‌ছি। তার প‌ক্ষে এমন ছ‌বি বানা‌নো বা ফেসবু‌কে দেওয়া অসম্ভব।

তারপ‌রেও বল‌তে চাই ফটোশপের একটা ছবি দেখলে যাদের ধর্মীয় অনূভূতিতে আঘাত লাগে যারা এতো উত্তেজনা ক‌রেন একবার ভাবুন তো ১৫ টা মন্দির ভাঙা, শত মানুষের বাড়িঘর ভাঙচুর লুটপাট, হাজারো মানুষ আতঙ্কে কেমন লাগে তাদের? নাকি হিন্দুদের কোন অনুভূতি থাকতে নাই?

যারা এসব হামলায় উস্কা‌নি দেন, যারা এসব হামলা দে‌খে নীর‌বে অানন্দ পান তারা নি‌জে‌কেই জিজ্ঞাসা করুন অাপ‌নি কী ধা‌র্মিক না মানুষ দুটোর কোনটা কী হ‌তে পে‌রে‌ছেন? মানুৃষ হ‌লে তো অার‌েকজন‌কে অাঘাত দিতেন না। ধা‌র্মিক হ‌লেও না। অাচ্ছা ব‌লেন তো ইসলা‌মের কোন জায়গায় অা‌রেকজ‌নের ম‌ন্দি‌রে হামলা চালা‌নোর কথা বলা অা‌ছে?

একবার ভাবুন তো যে মানুষটা আজ এই তাণ্ডব দেখলো মৃত্যুর আগ পর্যন্ত কী সে এই ঘটনা ভুলতে পারবে? একবার ভাবুন তো যে শিশুটা আজ এই তাণ্ডব দেখলো এই দেশে কী তারা আর কখনো স্বাভাবিকভাবে চিন্তা করতে পারবে? একবার ভাবুন তো এই দেশের কোটি হিন্দুর মনে আজ কী যাতনা।

গত চারদিন ধরে আমি আমার যতো হিন্দু বন্ধুর সাথে কথা বলেছি, যতো হিন্দু মানুষের দেখা পেয়েছি প্রত্যেকটা জায়গায় আমার খুব লজ্জা লেগেছে। জা‌নি এদে‌শে হিন্দু‌ বৌদ্ধ‌দের উপর হামলা হ‌লে কোন‌দিন বিচার হ‌বে না। কোন সরকারই সেটা কর‌বে না। কারণ এইটা যে শুধু মুসলমান‌দের দেশ।

জানি না এইদেশে আর কতবার এমন ক্ষমা চাইতে হবে। তবুও বলছি একজন মানুষ হিসেবে আমি আপনাদের কা‌ছে ক্ষমা চাই।

সিনিয়র রিপোর্টার, প্রথম আলো

আপনার কাছে কেমন লেগেছে এই ফিচারটি?
  • Fascinated
  • Happy
  • Sad
  • Angry
  • Bored
  • Afraid

আপনার গুরুত্বপূর্ণ মতামত দিন-

এই ক্যাটাগরির অন্যান্য লেখাগুলো