সিনেমা হলের গলি

বলিউডে ‘ফরেস্ট গাম্প’ রূপে আসছেন আমির খান!

ফরেস্ট গাম্পকে কে না চেনে! ১৯৯৪ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত, রবার্ট জেমেকিস পরিচালিত ‘ফরেস্ট গাম্প’ ছবিতে নাম ভূমিকায় অভিনয় করে সকলের মন জয় করে নিয়েছিলেন টম হ্যাংকস। রাতারাতি বনে গিয়েছিলেন বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় অভিনয়শিল্পীদের একজন। জিতেছিলেন অস্কার পুরস্কারও। বিশ্বজোড়া কোটি কোটি মানুষের হৃদয়ে তিনি একটি খুবই বিশেষ জায়গা দখল করে নিয়েছিলেন ভীষণই বোকাসোকা, সহজ-সরল ফরেস্ট গাম্পকে অসাধারণভাবে বড় পর্দায় ফুটিয়ে তুলে।

চলচ্চিত্রটির মূল কাহিনী শুরু হয় ১৯৮১ সালের কোনো এক সময়ে, কোনো এক বাস ষ্টেশনে। বোকাসোকা ফরেস্ট গাম্প কিভাবে ঘটনাক্রমে তার জীবনকে আমেরিকার ইতিহাসের কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক ঘটনার সঙ্গে জড়িয়ে ফেলে, তারই বর্ণনা ছিল গাম্পের কন্ঠে। কোনো রকম চেষ্টা ছাড়াই সে ফুটবল তারকা হয়ে যায়, জন এফ কেনেডির সঙ্গে ব্যক্তিগতভাবে দেখা করার সুযোগ পায়, ভিয়েতনাম যুদ্ধে দেশের হয়ে যোগ দেয়, লাভজনক চিংড়ি ব্যবসায় জড়িয়ে পড়ে, বছরের পর বছর ধরে গ্রামান্তর দৌঁড়ে অংশ নেয়। শুধু তাই নয়, ওয়াটার গেট কেলেঙ্কারিও সে উন্মোচন করে। জন লেননের সাথেও সময় কাটিয়েছিল গাম্প। নিজের সরল ব্যক্তিত্ব ও সাদামাটা জীবনে ফরেস্ট গাম সব সময়ই ছোট্ট বেলার বান্ধবী জেনীকে কাছে চেয়েছিলো। কিন্তু নিরীহ, সরল ফরেস্ট গাম আমেরিকার সব বড় বড় ঘটনার সাক্ষী হয়ে ওঠে। তবুও শেষ পর্যন্ত সে সাধারণই থেকে যায়।

উইন্সটন গ্রুমের লেখা উপন্যাস ‘ফরেস্ট গাম্প’ অবলম্বনে নির্মিত ছবিটির চিত্রনাট্য লিখেছিলেন এরিক রথ। ছবিটি ১৯৯৫ সালের অস্কার প্রতিযোগিতায় সর্বমোট ১৪টি বিভাগে মনোনয়ন পায় এবং ৬টি বিভাগে শ্রেষ্ঠ পুরস্কার লাভ করে। সর্বকালের অন্যতম সেরা হিসেবে বিবেচিত হয় ছবিটি, আইএমডিবিতে পনের লক্ষেরও বেশি দর্শকের ভোটে ছবিটির অবস্থান ১২তম। মুক্তির ২৪ বছর বাদেও আজও এ ছবির জনপ্রিয়তা রয়েছে অটুট। নতুন প্রজন্মের চলচ্চিত্রপ্রেমীরাও একই রকম পাগল ফরেস্ট গাম্পের জন্য।

কখনও কি চিন্তা করে দেখেছেন, কেমন হবে যদি ফরেস্ট গাম্প চরিত্রটিকে বলিউডেও দেখা যায়? অনেকেই হয়ত এমন সম্ভাবনার কথা শুনেই আঁতকে উঠবেন। বলবেন, ফরেস্ট গাম্পকে নিয়ে ছবি বানানোর কোনো যোগ্যতাই নেই বলিউডের। অসাধারণ একটি চরিত্রের স্রেফ বারোটা বাজিয়ে দেয়া হবে এখানে। সে আপনারা এমনটি বলতেই পারেন। কিন্তু ফরেস্ট গাম্পের বলিউডি সংস্করণে কে অভিনয় করতে চলেছেন, তা জানার পর সিংহভাগ লোক আবার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করতেও বাধ্য হবেন। কারণ বলিউডে ফরেস্ট গাম্প হিসেবে যে দেখা মিলবে মিস্টার পারফেকশনিস্ট আমির খানকে!

হ্যাঁ পাঠক, ঠিকই পড়েছেন। স্বয়ং আমির খানই হতে চলেছেন বলিউডের ফরেস্ট গাম্প। এমনটিই রিপোর্ট করেছে ভারতের অন্যতম শীর্ষস্থানীয় দৈনিক ডিএনএ ইন্ডিয়া। তাদের ভাষ্যমতে, বলিউডে ‘ফরেস্ট গাম্প’ ছবিটির অফিসিয়াল রিমেক নির্মাণের জন্য নাকি ইতিমধ্যেই নাকি ছবিটির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান প্যারামাউন্ট পিকচার্সের সাথে কথাবার্তা বলে সবকিছু অনেকটাই চূড়ান্ত করে ফেলেছেন আমির খান।

নির্ভরযোগ্য সূত্রের বরাত দিয়ে ডিএনএ ইন্ডিয়া জানিয়েছে, “আমির হিন্দিতে ফরেস্ট গাম্প নির্মাণ করতে চান, যেখানে তিনি নিজেই অভিনয় করবেন। তাকে দেখা যাবে ছবির মুখ্য ভূমিকায়, প্রকৃত সংস্করণে যে চরিত্রটিতে রূপদান করেছিলেন টম হ্যাংকস। তিনি (আমির) বেশ অনেকদিন ধরেই এ ব্যাপারে ইচ্ছা পোষণ করে আসছিলেন।”

সূত্রটি আরও জানায়, “এই মুহূর্তে ছবিটির চিত্রনাট্য তৈরীর কাজ পুরোদমে চলছে। আমির চান ছবিটির পুরো কাহিনীই যেন নতুনভাবে বিন্যস্ত করা হয়, যাতে তা ভারতীয় প্রেক্ষাপটের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ হয়।”

আমির খানের সর্বশেষ ছবি ছিল ‘দঙ্গল’। এছাড়াও ‘সিক্রেট সুপারস্টার’ ছবিতে তাকে একটি সংক্ষিপ্ত চরিত্রে দেখা গেছে। আর এই মুহূর্তে তিনি ব্যস্ত রয়েছেন নভেম্বরের ৭ তারিখ মুক্তির অপেক্ষায় থাকা বিজয় কৃষ্ণ আচার্য পরিচালিত ‘থাগস অফ হিন্দুস্তান’ ছবির শেষ মুহূর্তের কাজে, যেখানে তার সহশিল্পী হিসেবে রয়েছেন অমিতাভ বচ্চন, ক্যাটরিনা কাইফ, ফাতিমা সানা শেখ ও রনিত রয়। অনেকেরই ধারণা, প্রথম বলিউড ছবি হিসেবে ৫০০ কোটির ক্লাবে প্রবেশ করতে পারে এই ছবিটি। এছাড়াও আমির টি-সিরিজের ভূষণ কুমারের সাথে সহ-প্রযোজনা করছেন গুলশান কুমারের জীবনের উপর ভিত্তি করে নির্মিতব্য ‘মোগুল’ ছবিটি।

তথ্যসূত্র: ডিএনএ ইন্ডিয়া, ফার্স্ট পোস্ট

Comments

Tags

Related Articles