পৃথিবীজুড়ে রয়েছে অগণিত সমুদ্র সৈকত। সৈকত বলতেই আমরা বুঝি, নির্মল হাওয়া আর অসীমের সীমায় অন্য রকম এক ভাললাগায় হারিয়ে যাওয়াকে। আমরা জানি, পৃথিবীর প্রায় সব সমুদ্র সৈকতই দৃষ্টিনন্দন। কিন্তু আমরা কি জানি, সমুদ্র সৈকত কতটা বর্ণিল হতে পারে? সমুদ্র সৈকতের চিকচিকে রুপালি বালির রঙ কতটা বৈচিত্রময় হতে পারে? দেখেছেন কখনো- লাল, কমলা, বেগুনী, গোলাপী, কালো এমন বিচিত্র রঙের সমুদ্র সৈকত?

যদি না দেখে থাকেন, বা না জেনে থাকেন এখনো, চলুন জেনে আসি এমনই কিছু বর্ণিল সমুদ্র সৈকতের কথা।

লাল রঙের সমুদ্র সৈকত

যুক্তরাষ্ট্রের হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জের মাওই দ্বীপে, একটি ’রেড স্যান্ড’ বা লাল বালির সমুদ্রসৈকত আছে। এ সমুদ্র সৈকতের আরেকটি নাম রয়েছে, ”কাইহালুলু সমুদ্র সৈকত”। কাইহালুলু সমুদ্র সৈকতের বালি গাঢ় কালচে-লাল রঙের। মাওই দ্বীপের এ সৈকতের আশেপাশের পাহাড়গুলাতে আয়রণের আধিক্যই সৈকতের বালির এ কালচে-লাল রঙের কারণ। সৈকতের বালির কালচে-লাল রঙ, সমুদ্রের পানি আর চারপাশের সবুজ গাছপালার সাথে মিশে অদ্ভূত যে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের সৃষ্টি করে কাইহালুলু দ্বীপে, তা ব্যাখ্যাতীত।

সমুদ্র সৈকত, সাতরঙা সমুদ্র সৈকত

ওহ্ ভালো কথা, এমন লাল বালির সৈকত কিন্তু পৃথিবীতে এই একটিই নয়! কানাডা, পর্তুগাল, মাল্টা, গ্রীস, ইতালি, ইকুয়েডর এসব দেশে আরও কয়েকটি রয়েছে। তবে হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জের এই কাইহালুলু দ্বীপের লাল বালির সৈকতটিই সম্ভবত সবচেয়ে দৃষ্টিনন্দন।

সবুজ রঙের সমুদ্রসৈকত

যুক্তরাষ্টের হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জের পাপাকোলিয়া সমুদ্রসৈকত, প্রশান্ত মহাসাগরীয় গুয়াম দ্বীপের তেলাফোফো সমুদ্রসৈকত, ইকুয়েডর পুনটা করমোরেন্ট সমুদ্রসৈকত, নরওয়ের হরলিন্দালিজভ্যাটনেট সমুদ্রসৈকত…বিশ্বের এই চারটি সমুদ্র সৈকতের বালির রঙ সবুজ।

সমুদ্র সৈকত, সাতরঙা সমুদ্র সৈকত

পৃথিবীতে অনেক সমুদ্রসৈকত রয়েছে, যেগুলো সবুজে ঘেরা। কিন্তু সবুজ বালির সমুদ্রসৈকত কেবল এই চারটি। এসব সমুদ্র সৈকতের বালিতে আছে অলিভিন নামক স্ফটিকের মত এক ধরণের কণা, ভারি একধরণের সিলিকেট যা সহজে সমুদ্রের পানিতে ধুয়ে যায় না। এই কণাগুলোর কারণেই বালির রঙ  হয় এমন সবুজ, যা সৈকতের রঙে এনেছে এই অসাধারণ বৈচিত্র।

সাদা রঙের সমুদ্র সৈকত 

পৃথিবীতে সাদা বালির সমুদ্র সৈকতের কোন অভাব নাই। সমুদ্রের তীরে বিস্তীর্ণ এলাকাজুড়ে ছড়িয়ে আছে সাদা ধবধবে বালি। সাদার শুভ্রতাই এমন সৈকতে মন জুড়াবার জন্য যথেষ্ট। শুধু অস্ট্রেলিয়াতেই আছে এমন সাদা বালির অনেকগুলো দ্বীপ।

সমুদ্র সৈকত, সাতরঙা সমুদ্র সৈকত

তবে, অস্ট্রেলিয়ার নিউ সাউথ ওয়েলসের হায়েমস সমুদ্র সৈকতই বুঝি এ সবগুলোর মধ্যে সবচেয়ে সাদা।  গিনিচ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস এ এই সৈকত পৃথিবীর সবচেয়ে শুভ্র সৈকতের স্থানটি দখল করে নিয়েছে। সমুদ্রের নীল জলরাশির সাথে সৈকতের এই সাদা বালি মিশে কি অপরুপ সৌন্দর্য সৃষ্টি করে তা নিয়ে কি আর বেশি কিছু বলার দরকার আছে?

কালো রঙের সমুদ্র সৈকত

কালো রঙটাই খুব অভিজাত! আর সমুদ্র সৈকতের রং যদি হয় নিকষ কালো, পানির সাথে মিশে যে সে রঙ কেমন  অপরুপ এক দৃশ্যের সৃষ্টি করবে তা কল্পনা করা খুব কঠিন নয়। অবশ্য কল্পনা করার দরকার কি! পৃথিবীতেই তো অস্তিত্ব রয়েছে  এমন কতকগুলো কালো বালির সমুদ্র সৈকতের।

সমুদ্র সৈকত, সাতরঙা সমুদ্র সৈকত

সমুদ্র পাশ্ববর্তী আগ্নিয়গিরির লাভা আর খনিজ উদগিরিত হয়ে সমুদ্রের পানিতে মিশে গিয়ে সৃষ্টি করেছে এমন সব অদ্ভূত সুন্দর কালো রঙের কিছু সমুদ্র সৈকতের। নিউজিল্যান্ড, আইসল্যান্ড, গ্রিস, যুক্তরাষ্ট্র, জাপান প্রভৃতি দেশে রয়েছে এমন কিছু কালো রঙের সমুদ্র সৈকত।

গোলাপী রঙের সমুদ্র সৈকত

দুনিয়া জুড়ে অনেক দেশেই রয়েছে গোলাপী রঙের সমুদ্র সৈকত। বিশেষ ধরণের প্রবালের ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র টুকরো, আলো আর চোখের এক ধরণের বিভ্রম সমুদ্র সৈকতের এই গোলাপী রঙ।ফোরামিনিফেরা (foraminifera) নামক এক প্রকার অনুবীক্ষণীক জীব, যার খোলস লালচে-গোলাপী রঙের, এর সঙ্গে সৈকতের বালি, ক্যালসিয়াম কার্বনেট প্রভৃতি মিশে সৈকতে গোলাপী রঙের এই বিভ্রম সৃষ্টি করে। কেমন করে সৈকতের বালির রঙ গোলাপী হলো এটা বুঝতে কষ্ট হলেও, এমন গোলাপী রঙের সৈকত দেখতে যে কি চমৎকার লাগবে তা বুঝতে কারোরই কষ্ট হবার কথা নয়।

সমুদ্র সৈকত, সাতরঙা সমুদ্র সৈকত

এমন গোলাপি রঙের সমুদ্র সৈকত বারবাডোজ, গ্রিস, ইন্দোনেশিয়া, স্পেন, বারমুডা, বাহামা..প্রভৃতি জায়গায় রয়েছে।

বেগুনী বা নীলচেবেগুনী রঙের সমুদ্র সৈকত

কখনো কি শুনেছেন, বালির রঙ হয় বেগুনী বা নীলচে বেগুনী? হ্যাঁ এমন বালিরই সমুদ্র সৈকত রয়েছে কানাডার বেশ কয়েকটি অঞ্চলে। অনন্য সুন্দর এই সৈকতগুলির বালির রং বেগুনী হবার কারণ সম্ভবত হিমবাহ। কানাডার দক্ষিণ দিক থেকে সমুদ্রের পানিতে ভেসে আসা একরকম গার্নেট পার্টিকল বা তামড়ি কণার আধিক্যই সমুদ্র তীরের বালির এমন বেগুনি রঙের কারণ।

সমুদ্র সৈকত, সাতরঙা সমুদ্র সৈকত

বেগুণি রঙের সমুদ্র সৈকত যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায়ও রয়েছে একটি।

কমলা রঙের সমুদ্র সৈকত

মাল্টার গোজো দ্বীপের রামলা বে সমুদ্র সৈকতটির বালির রং কমলা। ”রামলা বে”- এর অর্থ মাল্টার লাল সৈকত। তবে লাল নয়, সৈকতের রং আসলে লালচে-কমলা। এটি মাল্টার সবচেয়ে সুন্দর আর আকর্ষণীয় সমুদ্র সৈকতগুলোর একটি। সৈকতের উজ্জ্বল লালচে-কমলা রং, সমুদ্রের আকাশী-নীল পানিতে মিশে এ সৈকতের সৌন্দর্যকে দিয়েছে নতুন মাত্রা।

রামলা বে সমুদ্র সৈকতে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের পাশাপাশি এর আশেপাশে রয়েছে নানা রকম প্রাচীন ঐতিহাসিক নিদর্শন। যা দেখার জন্য প্রতিবছর প্রচুর দর্শনার্থীর ভীড় জমে মাল্টার এ ছোট্ট দ্বীপে।

Comments
Spread the love